Ameen Qudir

Published:
2019-01-04 11:37:45 BdST

ফ্রেনেমি বন্ধুর মুখোশে শত্রু: ফ্রেনেমি , চিনে নিন বিশেষজ্ঞের ৫ পরামর্শে



ডেস্ক
_____________________

হাবেভাবে মনে হবে যেন তাঁদের চেয়ে বড় হিতাকাঙ্ক্ষী আর কেউ নেই। কিন্তু আসলে মুখোশের আড়ালে রয়েছে অন্য মুখ।

বিষয়টা নতুন কিছু নয়, কমবেশি সবাইকেই জীবনে এমন মানুষের পাল্লায় পড়তে হয়েছে। ইংরেজিতে এই ধরনের মানুষের জন্য রয়েছে একটি মজার শব্দ— ‘ফ্রেনেমি’। অর্থাৎ এমন এক ‘ফ্রেন্ড’, যে কি না আদতে ‘এনিমি’। সম্পর্ক বিশেষজ্ঞ ক্যারিনা উলফ একটি বাসল ডট কমে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে এমন বেশ কিছু লক্ষণের কথা বলেছেন।


এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পাঁচটি লক্ষণ হল এইগুলি—

১. আপনি ভাল কিছু করলে, কোনও কঠিন কাজে সফল হলে, সেই বিশেষ ‘বন্ধু’টি কিন্তু খুশি হন না। সেটা তাঁর হাবেভাবে প্রকাশ পাবেই। যতটা উচ্ছ্বাস আপনি আশা করছেন, ততটা যদি না হয়, তবে সেটা একটি বড় লক্ষণ।



২. এই ধরনের মানুষ সর্বক্ষণ আপনার খুঁত ধরতে থাকে। আপনার চিন্তা-ভাবনা, রুচি-পছন্দ, কাজ, পোশাক-আশাক, আত্মীয়স্বজন, অন্য বন্ধুবান্ধব— সব কিছুই যেন তার চোখে খারাপ।

৩. ফ্রেনেমি চেনার সবচেয়ে বড় উপায় হল যদি সেই ব্যক্তি যখন-তখন মজা করার ছলে আপনাকে জনসমক্ষে অপমান করেন। কোনটা মজা আর কোনটা অপমান, যে কোনও পরিণত মানুষ সেটা বোঝে। এমন লক্ষণ দেখলে সতর্ক হোন।

৪. এই ধরনের মানুষেরা অত্যন্ত স্বার্থপর এবং আত্মকেন্দ্রিক হয়ে থাকেন। নিজের কাজের সময়টুকু নিয়ে তাঁরা খুব সচেতন। আপনার কোনও প্রয়োজনেই তাঁরা কিন্তু সেই সময়টুকু দেবে না।

৫. ফ্রেনেমিরা সচরাচর খুবই উচ্চকিত ঝামেলা-ঝঞ্ঝাট পছন্দ করেন। যে কোনও বন্ধুত্বেই ওঠাপড়া থাকে। কিন্তু ফ্রেনেমিরা সব সময় বন্ধুত্বে ক্রাইসিস চায়। ভাল থাকা তাঁদের পোষায় না।


এ বিষয়ে মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ও ওসিডি কনসালটেন্ট ডা. সুলতানা এলগিন বলেন , ফ্রেনেমি আছে চারপাশেই। একজন মানুষকে ফ্রেনেমি নিয়েই জীবন যাপন করতে হয়। ফ্রেনেমি নিয়ে অতিরিক্ত দুশ্চিন্তার কিছু নেই। জীবন ও যাপন তার নিজস্ব পথেই চলছে চলবে। দরকার সতর্কতা। এই সতর্কতা স্ব:ত বুদ্ধিজাত প্রবৃত্তি। চলার পথেই মানুষ তার অভিজ্ঞতার মধ্যে দিয়ে ফ্রেনেমিকে চিনে নেয়। অতি বিশ্বাস যেমন ক্ষতিকর। অতি বিরাগও মনোসমস্যা। দুটোই এড়িয়ে চলাই ভাল।

আপনার মতামত দিন:


মন জানে এর জনপ্রিয়