ডা শাহাদাত হোসেন

Published:
2022-05-28 08:39:34 BdST

মানসিক ও মাদকাসক্ত রোগীর সঙ্গে যে ৫টি আচরণ কখনওই করা যাবে না




 

 

অধ্যাপক ডা. সুলতানা এলগিন


জনমনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ
অধ্যাপক
মনোরোগ বিদ্যা বিভাগ
কনসালটেন্ট , ওসিডি ক্লিনিক ও জেরিয়াট্রিক ক্লিনিক
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় , ঢাকা
-------------

মানসিক রোগী ও মাদকাসক্ত রোগীর সঙ্গে নিচের ৫ টি আচরণ কখনওই করা যাবে না । মানসিক রোগী ঘরে থাকুক, বা ক্লিনিক হাসপাতালে থাকুক ; কোথাওই কোন অবস্থায় এই ৫ নির্মম আচরণ করবেন না। মনে রাখবেন, সে অসুস্থ। তার রোগের চিকিৎসা দরকার। তার সঙ্গে চিকিৎসাবিজ্ঞান নির্দেশিত পথ্য বিধির বাইরে কিছু করা যাবে না। করবেনও না। অন্যায় আচরণ করলে তা অপরাধ।


যে ৫টি আচরণ করবেন না
------------
১.

ঘরে বা ক্লিনিক হাসপাতালে মানসিক রোগী বা মাদকাসক্তির রোগীকে মারধোর করা যাবে না। সাধারণ যে কোন অসুস্থ রোগীকে মারধোর করা যে রকম আইনি অপরাধ। মানসিক রোগীর সাথেও সেই নির্মম আচরণ করলে তা অবশ্যই অপরাধ।

২.
মানসিক রোগী বা মাদকাসক্তির রোগীকে হাত পা বেঁধে নির্যাতন কোন অবস্থাতেই করা যাবে না। নির্যাতন মারধোর মানসিক রোগ বা মাদকাসক্তি চিকিৎসার কোন উপায় নয়। এটা অপরাধ।
৩.
মানসিক রোগীকে হাতপা বেধে অবিরাম গোছল করানোর বিপদজনক চিকিৎসা এখনও গ্রামে শহরে করানো হয়। এটা করানো যাবে না । এটা কোন চিকিৎসা নয়।

৪.

মানসিক রোগী বা মাদকাসক্তির রোগীকে তার আত্মীয় স্বজনরা কোন অস্বাস্থ্যকর কক্ষে , নোংরা জায়গায়, গ্যারেজে , মাঠে , ফুটপাতে দড়ি শিকল দিয়ে বেধে রাখেন বলে অনেক রোগীর তরফে স্টেটমেন্টে পাই। এটা করা যাবে না। এটাও অপরাধ।

মানসিক রোগী বা মাদকাসক্তির রোগী একজন সাধারণ রোগীর মত অসুস্থ ব্যাক্তি। সে অপরাধী নয়।
তাকে চিকিৎসা দিতে হবে। বেঁধে রাখা কোন চিকিৎসা নয়। বরং এটা হল রোগীকে দরকারি চিকিৎসা না দেওয়ার সামাজিক অজুহাত।



৫.
মানসিক রোগী বা মাদকাসক্তির রোগী যদি বাড়াবাড়ি করে , তবে প্রয়োজনে পুলিশি সহযোগিতা নিয়ে তাকে চিকিৎসা কেন্দ্রে আনুন। পুলিশ কর্মীরা উত্তেজিতদের ট্যাকল করার নানা বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতি জানেন। নিজেরা ডাক্তারি বা নির্যতন করবেন না।

ঝাড়ফুক ওঝা, গায়েবি হেকিম,এলম অলা ফকির, কবিরাজের কাছে নিয়ে তার জীবনকে ঝুঁকিপূর্ণ করবেন না। তাকে নানা ধরণের টোটকা , আজেবাজে জিনিস , সালসা খাইয়ে মরণাপন্ন করবেন না।
মানসিক রোগী বা মাদকাসক্তির রোগীকে যত দ্রুত সম্ভব মানসিক রোগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে নিয়ে আসুন। এখন বাংলাদেশের শতাধিক সরকারি বেসরকারি মেডিকেল কলেজে মানসিক ওয়ার্ডসহ আলাদা বিভাগ আছে । সেখানে নিয়ে যান। মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান। মানসিক রোগী বা মাদকাসক্তির রোগীকে বাঁচতে দিন। তার জীবনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন। তাকে অবহেলা , ঘৃণা, অবজ্ঞা দেবেন না। তাকে ভালবাসা দিন।

আপনার মতামত দিন:


মন জানে এর জনপ্রিয়