SAHA ANTAR

Published:
2020-11-21 13:11:25 BdST

সাকিবকে হত্যার হুমকিদাতা কি মানসিক রোগী !




ডা. সুলতানা এলগিন


সহযোগী অধ্যাপক
মনোরোগ বিদ্যা বিভাগ
কনসালটেন্ট , ওসিডি ক্লিনিক ও জেরিয়াট্রিক ক্লিনিক
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় , ঢাকা
_______________________________

বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের খেলোয়াড় সাকিব আল হাসানকে বিচিত্র ভঙ্গীকে হত্যার হুমকি দিয়েছে সিলেটের এক কথিত ভায়োলেন্ট যুবক।
এ নিয়ে আলোচনা তুঙ্গে।
অনেকে আমার কাছে প্রশ্ন করছেন ,
সাকিবকে হত্যার এই হুমকিদাতা কি ভায়োলেন্ট মানসিক রোগী !
আমার জবাব হল , ডাক্তারি পরীক্ষা নিরীক্ষা করে তবেই বলা যাবে , সে মানসিক রোগী কিনা।
কয়েকজন পাঠকের দেয়া খবরের লিঙ্ক পড়ে জানলাম, তার নাম মহসিন তালুকদার। বয়স চল্লিশ। সাকিবের প্রতি অতিভক্তির বশেই নাকি সে হুমকি দিয়েছে বলে তার দাবি।
মহসিন সম্পর্কে জানা গেল , ব্যাক্তিজীবন বেশ অদ্ভুত। কখনও সে গায়ক; কখনও সে ওয়েস্টার্ন ড্রেস পরে হইহুল্লোড় করছে। কখনও নিজেই নাচছে। সাকিব যে ধর্মীয় মন্ডপে গেছে বলে তার অতিরিক্ত ধর্মীয় উত্তেজনা; সেরকম পুজো মন্ডপে সে নিজেও নাকি গেছে। ইউরোপের কোন এক দেশের ভিসা পেয়ে সে উল্লসিত।
পুলিশ সূত্রগুলো বলছে,
"সে খুব একটা ধার্মিক ছিল না। কিন্তু সাম্প্রতিক কালে জঙ্গী বিভিন্ন ওয়াজ শুনে হঠাৎই সে জঙ্গী জেহাদী হয়ে উঠেছে।"
তথ্যগুলো বেশ বিচিত্র বৈকি।

এসব তথ্যের ভিত্তিতে একজন চিকিৎসক ও মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ হিসেবে বলব, বৈজ্ঞানিক সব পরীক্ষা না করে মহসিনের ব্যপারে কোন সিদ্ধান্ত দেয়া বা বলা একদমই ঠিক নয়।

 

আমার আহবান , তাকে মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ দেখানো হোক। তারা পরীক্ষা করে বলতে পারবেন , মহসিনের মানসিক সমস্যা আছে কিনা , সে বাইপোলার ডিজঅর্ডারের রোগী কিনা।

আমার উদ্বেগ, এই ধরণের চরিত্রগুলো মানসিক রোগী হলেও হতে পারে। আবার নাও হতে পারে। কিন্তু মানসিক অবস্থার জন্য পরীক্ষার আওতায় আসে কি।
এরা অসুস্থ হলে আদৌ চিকিৎসা হয় কিনা। না হলে বিষয়টি ভয়ঙ্কর।
বিষয়টি সবাই খেয়াল করবেন। এদেরকে অন্তত: মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ দেখান। এরকম অপ্রচলিত , অস্বাভাবিক আচরণ করলে আত্মীয় স্বজনদের উচিত , এদেরকে মনোরোগ বিশেষজ্ঞ দেখানো।
তারাই সিদ্ধান্ত নেবেন এদের ভাল মন্দ নিয়ে।

মহসিন তালুকদারের মধ্যে এরকম অস্বাভাবিক আচরণ দেখা যাওয়ার পর তার স্বজনরা যদি তাকে মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের দেখাতেন , তাহলে মোটামুটি বলা যায়, মহসিন এতটা ভায়োলেন্ট হয়ে পড়ত না। সাইকিয়াট্রিস্টরা ওষুধ দিয়ে , সাইকোথেরাপি দিয়ে তাকে ভারসাম্যপূর্ণ জীবনে ফিরিয়ে দিতে পারতেন।

আপনার মতামত দিন:


মন জানে এর জনপ্রিয়