SAHA ANTAR

Published:
2020-10-28 15:02:28 BdST

বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ফলোআপ ডেট কেন দেন , কেন রোগী তা মানবেন : ৮টি দরকারি উত্তর


 

 

 


ডা. সুলতানা আলগিন

সহযোগী অধ্যাপক, মনোরোগবিদ্যা বিভাগ এবং

কনসালট্যান্ট ,ওসিডি ক্লিনিক ও জেরিয়াট্রিক ক্লিনিক,

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা
_________________________

মেডিসিন, মনোরোগ সহ বিভিন্ন বিভাগের একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার তার রোগীর জন্য ১৫ দিন, ১মাস , ২/৩/৪/৫/৬ মাস অন্তর ফলোআপ ডেট দেন। সেই ফলোআপ ডেট অনুযায়ী রোগীকে আবারও দেখা করতে বলেন। প্রাইভেট চেম্বার হলে এপয়েন্টমেন্ট নিতে বলেন।

রোগী ও তার স্বজনদের মধ্যে একটি সাধারণ ও খুবই কৌতুহলী প্রশ্ন হল : এই ফলো আপ কেন দেন ডাক্তার। তিনি তো চাইলে একবার রোগী দেখেই তাকে চিরস্থায়ী ভাল করে দিতে পারেন।

নইলে তিনি বিশেষজ্ঞ বা বড় কিসের ডাক্তার।
রোগী ও স্বজনদের মনে নিত্য ঘুরপাক খাওয়া এই প্রশ্নের জবাব পাওয়া অবশ্যই তাদের ন্যায্য অধিকার।

রোগী ও তার স্বজনদের অবশ্যই এই ফলো আপের ব্যখ্যা জানার ন্যায় সঙ্গত অধিকার আছে। তারা যদি কারণ না জানেন, তবে তারা কেন তা মানবেন!

 

ডাক্তাররা ঈশ্বর খোদা আল্লাহ ভগবান তুল্য; এমন কথা অনেকের মধ্যে হর হামেশা শোনা যায়।
বাস্তবে ডাক্তাররা ঈশ্বর খোদা আল্লাহ ভগবান কিছুই নন। তারা নিতান্তই বিজ্ঞানসেবী ডাক্তার মাত্র। তারা তাদের পড়াশোনা ও জ্ঞান মাফিক নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে চিকিৎসা দেন । তাদের হাতে কোন জাদুর কাঠি নাই। অলৌকিক কোন ক্ষমতা নেই। তাদের পরম শাস্ত্র ও রহস্য হল চিকিৎসা বিজ্ঞান। সে অনুযায়ী তারা চিকিৎসা দেন। তাদের
ঈশ্বর খোদা আল্লাহ ভগবান-এর সঙ্গে তুলনা করা নিছকই হাস্যকর চরম বোকামি।

কেন ফলো আপ : কেন রোগী তা মানবেন :৮টি দরকারি জবাব
_________________________

১. ১৫ দিন, ১মাস , ২/৩/৪/৫/৬ মাস অন্তর ফলোআপ ডেট দেয়া হয় রোগীর সার্বিক অবস্থার বিবেচনায়।

২. দেওয়া ওষুধ রোগীর ওপর কি প্রতিক্রিয়া করে , কোন ওষুধ কোন মাত্রায় রোগীর জন্য প্রয়োজনীয় ;তা বোঝার জন্য বিভিন্ন মেয়াদে ফলোআপ দেয়া হয়।

৩. ফলো আপে ওষুধের কার্যকারীতা ডাক্তার পর্যবেক্ষণ করেন চিকিৎসা বিজ্ঞান অনুযায়ী। সেই অনুযায়ী রোগীর ওষুধের মাত্রা কম বেশি করেন। এই কাজ হেলা ফেলায় করা সম্ভব নয়। ডাক্তারদের সুচিন্তিত সিদ্ধান্ত নিতে হয়। তার ওপর রোগীর ভাল মন্দ নির্ভর করে। তিনি গভীর মনোযোগে পর্যবেক্ষণ করেন।

৪. প্রথম দিকে স্বল্প মেয়াদের বিজ্ঞ পর্যবেক্ষণ শেষে সুচিন্তিত সিদ্ধান্ত নিয়ে তিনি রোগীর প্রয়োজনীয় দীর্ঘ মেয়াদী ফলো আপ ডেট দেন।


৫. রোগী বা স্বজনদের কখনওই এই ফলো আপ ডেটগুলোকে অবহেলা করা ঠিক হবে না। রোগীর ঠিক ম ত পর্যবেক্ষণ না হলে , ওষুধর ডোজ ও অন্যান্য পর্যবেক্ষণ সঠিকভাবে না হলে রোগী খুবই ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।


৬. ডাক্তার রোগীর জন্য কোন পরীক্ষা দরকার মনে করলে তা দেন। সেটা জেনে আবার রোগীর জন্য চিকিৎসা বিজ্ঞান ভিত্তিক প্রেসক্রিপশন করেন। এটা কত জরুরি রোগীর জন্য , তা বিশেষজ্ঞ ডাক্তারই জানেন।

৭. রোগীর অবস্থা স্থিতিশীল হলে , রোগী ক্রমশ সুস্থ হয়ে উঠলে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ফলোআপ ডেট দীর্ঘ মেয়াদে দেন। সেটাও অনুসরণ করা দরকার।
৮.

ফলো আপ চিকিৎসা বিজ্ঞানের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ। নিয়মিত চেক আপ যে কোন মানুষের জন্য দরকারি। উন্নত বিশ্বে আপাত সুস্থ সবল ব্যাক্তিও নিয়মিত চেক আপ করেন। বাংলাদেশে , ভারতবর্ষেও তা শুরু হয়েছে।
বাংলাদেশের অনেকেই থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর , দিল্লি , কলকাতা , বেঙ্গালুরু গিয়ে নিয়মিত চেক আপ , ফলো আপ করছেন। যারা বাংলাদেশের মধ্যে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছেন , তাদেরও এই সচেতনতা দরকার।

আপনার মতামত দিন:


মন জানে এর জনপ্রিয়