আহির ফা হিয়ান বুবকা

Published:
2016-11-10 05:27:33 BdST

বিএসএমএমইউ-তে যৌন সমস্যা নিয়ে সফল কর্মশালাসেক্স নিয়ে কেন লুকোচুরি, লাজলজ্জা


আহির ফা হিয়ান বুবকা
নির্বাহী সম্পাদক
ডাক্তার প্রতিদিন

 

  

সেক্স বা যৌনতা নিয়ে আমাদের মাঝে নানারকম সংস্কারের শেষ নেই। এ নিয়ে খোলা মেলা আলোচনায় দ্বিধাদ্বন্ধও কম নয়। সেক্স বললেই লুকোচুরি, অনীহা ,লাজশরম।
দেশের শীর্ষ মেডিকেল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান - বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়- বিএস এম এম ইউ-র মনোরোগবিদ্যার চিকিৎসকরা এই অচলায়তন ভাঙতে সদা তৎপর।

৬ ও ৭ নভেম্বর বিএস এম এম ইউর সাইকিয়াট্রিক সেক্স ক্লিনিকের উদ্যোগে হয়ে গেল -সেক্সুয়াল ডিসফাংশনঃ এ হিডেন চ্যাপ্টার ইন সাইকিয়াট্রি-নিয়ে প্রশিক্ষণ কর্মশালা।
অসাধারণ ছিল আয়োজন। উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন, বেশ কিছু দিনের প্রস্তুতি নিয়ে তারা কাজে নেমেছিলেন। যে কারণে দারুণ সফল ও ফলপ্রসূ হয়েছে উদ্যোগটি। মনোরোগ বিদ্যা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. ঝুনু শামসুন নাহারসহ সেক্সক্লিনিকের সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগন ছিলেন সদা সক্রিয়। ফেসবুকসহ অনলাইন মিডিয়ায় প্রচার ; সাংগঠনিক তৎপরতায় সবার অংশগ্রহন দুদিনের কর্মশালাকে করে তোলে উপভোগ্য ও আনন্দময়।
মনোরোগবিদ্যা বিভাগের কনসালটেন্ট ডা. সরদার আতিক তো ডাক্তার প্রতিদিনকে বললেন, আমরা যৌন রোগ নিয়ে সবার মাঝে যে দ্বিধা - লাজ লজ্জা-সেটার নিরসনে কাজ করছি। সেটা কাটিয়ে উঠে রোগের দরকারি চিকিৎসা ভুক্তভোগীদের কাছে যাতে পৌছে দেয়া যায় ; সেজন্য বিএস এম এম ইউর মনোরোগবিদ্যা বিভাগ নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছি।
সহযোগী অধ্যাপক ডা. সালাউদ্দিন কাউসার বিপ্লবের নেতৃত্বে সেক্স ক্লিনিক টিম নিয়মিত সেবা দিচ্ছে। এই সেবা রোগী ও ভুক্তভোগীদের মাঝে সাড়া ফেলেছে। সারাদেশ থেকেই রোগীরা আসছেন সেক্স ক্লিনিকে।
সেক্স নিয়ে অনেকের মঝে যে দ্বিধা, চিকিৎসায় অনীহা কাজ করে, সেটা কেটে যাচ্ছে। নিশ্চিত করা সম্ভব হচ্ছে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা।
আমরা যদি নিয়মিত এ ধরণের কর্মশালা , সিম্পোজিয়াম, সেমিনার বিভিন্ন জেলায় আয়োজন করতে পারি , তবে সবার কাছে চিকিৎসা সেবা পৌঁছে দেয়ার অঙ্গীকার পূরণ সম্ভব হবে। যোগ করলেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক।

 

 

 


দুদিনের যে কর্মশালাটি হলো, তাতে এসেছিলেন , বিএস এমএমইউর উপাচার্য , চিকিৎসা ও চিকিৎসকঅভিভাবক প্রফেসর ডাঃ কামরুল হাসান খান।

কর্মশালাটির দ্বিতীয় দিনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ করেন তিনি। এসময় উপাচার্য বলেন, এদেশের ৮০ শতাংশ মানুষই জানেনা যে এদেশে কি কি চিকিৎসা সেবা রয়েছে। এই অবস্থার অবসানে চিকিৎসক সমাজকে এগিয়ে আসতে হবে। সবাই মিলে কাজ করতে হবে।

৬ ও ৭ নভেম্বর- দুদিনই বিএসএমএম ইউর মনোরোগবিদ্যা বিভাগ ছিল উৎসব ও কর্মমুখর। অনুষ্ঠান স্থল ছিল বর্নাঢ্য ফেস্টুন, ছবি ও দরকারি প্রচারের নানা ব্যানারে সজ্জিত। এ কাজে বিভাগের চিকিৎসক ও আয়োজনসহযোগীরা ছিলেন সক্রিয়।

বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ডা. ঝুনু শামসুন্নাহারের সভাপতিত্বে

দ্বিতীয় দিনের অনুষ্ঠানে অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. এ এস এম জাকারিয়া (স্বপন) ও পরিচালক (হাসপাতাল) বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মো. আব্দুল্লাহ আল হারুন।

 

 


৬ নভেম্বর সকালে কর্মশালার শুরু। উদ্বোধন করেন প্রফেসর ডা. ঝুনু শামসুন্নাহার। দুদিনের আয়োজনে
অংশ নেন, দেশের অন্যতম শীর্ষ মনোরোগ বিশেষজ্ঞ বিএস এম এম ইউর মনোরোগ বিদ্যা বিভাগের জনপ্রিয় শিক্ষক অধ্যাপক ডা. এম এস আই মল্লিক ।
অধ্যাপক ডা. এম এ সালাম।
সেক্স ক্লিনিককে দেশে সুপরিচিত ও ভুক্তভোগীদের কাছে নেয়ার পাইওনিয়ার সহযোগী অধ্যাপক ডা. সালাউদ্দিন কাউসার বিপ্লব।সহযোগী অধ্যাপক ডা. নাহিদ মেহজাবিন মোরশেদ।

সহযোগী অধ্যাপক ও ডাক্তার প্রতিদিন সম্পাদক , মনোরোগ সমস্যাদির লেখক ডা. সুলতানা আলগিন।

জনপ্রিয় সেক্স মেডিসিন বিশেষজ্ঞ সহকারী অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ শামসুল আহসান মাকসুদ।

সহকারী অধ্যাপক ফাতেমা বিনতে শহীদ। সহকারী অধ্যাপক ডা. সিফাত ই সাঈদ। কনসালটেন্ট ডা. সরদার আতিক। কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজের মনোরোগবিদ্যার অধ্যাপক ও চেয়ার ম্যান ডা. অনুপম দাস । ডা. নাসিম জাহান, প্রমুখ।

 

  


দুইদিন ব্যাপি উক্ত প্রশিক্ষণ প্রোগ্রামে মোট দশটি সেশন অনুষ্ঠিত হয়। এবং তিনটি কেস এবং ডিটেইল ম্যানেজমেন্ট ও চিকিৎসা পদ্ধতি নিরুপণের মাধ্যমে কর্মশালাটির সমাপ্তি টানা হয়। সেশনগুলোতে যৌন রোগ, রোগের ধরণ, কারণ, মেডিকেল ম্যানেজমেন্ট, সাইকোলজিক্যাল ম্যানেজমেন্ট সহ যৌন স্বাস্থ্যের বিভিন্ন সমস্যাদি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়।


লেখক - নির্বাহী সম্পাদক , ডাক্তার প্রতিদিন।

আপনার মতামত দিন:


মন জানে এর জনপ্রিয়