Ameen Qudir

Published:
2019-10-21 10:56:07 BdST

উদ্দাম ঝরনা বয়ে যাচ্ছে বাংলোর পাশ দিয়েই: এমন ভ্রমণস্বর্গ এখন বাংলাদেশেই


 

ডেস্ক
_____________________

উদ্দাম উচ্ছল ঝরনা বয়ে যাচ্ছে বাংলোর পাশ দিয়েই: এমন স্বর্গীয় পরিবেশ উপভোগ করতে কেবল ভুটানেই যেতে হবে ; তা কিন্তু নয়। বাংলাদেশের শ্রীমঙ্গলেই আছে তেমন বিস্ময়কর ভ্রমণ রিসোর্ট । চাইলেই পা ছড়িয়ে বসা যাবে ঝরনার পাশে। রাতে দেখা যাবে তারা মন্ডলী। মহাবিশ্বের পানে তাকিয়ে থাকব ক্ষুদ্র সবুজ পৃথিবী থেকে। যাবেন নাকি! প্রখ্যাত লেখক গবেষক ভ্রমণকার মারজিয়া লিপি তার অসাধারণ ভ্রমন অভিজ্ঞতা লিখে জানিয়েছেন তার এক লেখায়। সেটা ডাক্তার প্রতিদিন পাঠকদের জন্য প্রকাশ হল।ছবিও তার তোলা।

শ্রীমঙ্গলে অবস্থিত বালিশিরা রিসোর্ট

আলহামদুরিল্লাহ্ শ্রীমঙ্গলে অবস্থিত - পাহাড়, বন ও চা বাগান এলাকার কাছাকাছি বালিশিরা রিসোর্ট লিমিটেড সম্মানিত অতিথিদের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে।

আমরা কয়েকজন সহকর্মী ও বন্ধু শ্রীমঙ্গলের রাধানগরে গ্র্যানড সুলতানের খুব কাছেই প্রকৃতি বান্ধব বালিশিরা রিসোর্টটির কাজ শুরু করি ।

বালিশিরা রিসোর্টটি এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যাতে পর্যটকরা বন, পাহাড় ও প্রাকৃতিক প্রবাহের (শিরা) সৌন্দর্য অনুভব করতে পারেন। অতিথিরা তাঁদের কটেজ থেকে প্রকৃতি এবং বৃষ্টি উপভোগ করতে পারবেন।

শিশুদের খেলার মাঠ, লং টেনিস, ব্যাডমিন্টন, সুইমিং পুল, টেবিল টেনিস, ওপেন এয়ার মিউজিক, হল রুম, ব্যক্তিগত সুইমিং পুল, রেস্টুরেন্ট ইত্যাদি ভ্রমণ প্রেমীদের আনন্দিত করবে। কটেজ এবং সুইটগুলি পাহাড়ের ঢালে মুখোমুখিভাবে ছড়িয়ে আছে।

গত তিন বছর ধরে নির্মানাধীন রিসোর্টে আমি তেমন কোন অবদানই রাখতে পারিনি তবে রির্সোটের প্রাথমিক পর্যায়ে নির্মিত ১১টি কটেজের নামকরণের ক্ষেত্রে আমার একটু অবদান রয়েছে। বিভিন্ন উপন্যাস বা কাব্যগ্রন্থের নামে কটেজের নামকরণ করেছি যেমন-- মাধুকরী, অরণ্যের দিনরাত্রি, ঝরাপালক, নীলকন্ঠ পাখির খোঁজে, শেষের কবিতা, অগ্নিবীণা, এইসব দিনরাত্রি, লাল-নীল দীপাবলী, সোনালী কাবিন, কালবেলা, গায়ত্রী সন্ধ্যা ইত্যাদি। ধামরাইয়ের মৃৎশিল্পী গোবিন্দ পাল উপন্যাস বা কাব্যগ্রন্থের নামে টেরাকোটার ডিজাইন করেছেন।

বিভিন্ন কটেজের মান অনুযায়ী ভাড়া (৩০০০ থেকে শুরু করে ৯৫০০ টাকা) নির্ধারণ করা হয়েছে। সেসব ডুপ্লেলেক্স কটেজে নিজস্ব সুইমিংপুল রয়েছে সেখানে স্বাভাবিকভাবে ভাড়া একটু বেশি । নিয়মিত ভাড়ার পাশাপাশি করপোরেট অফার রয়েছে। ওয়ার্কিং দিনগুলো (রবিবার থেকে বুধবার) ভাড়া কম থাকবে; ছুটির দিনগুলোতে (বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার ) ভাড়া সে তুলনায় একটু বেশি থাকবে।

 

গত তিন বছর ধরে নির্মানাধীন রিসোর্টে আমি তেমন কোন অবদানই রাখতে পারিনি তবে রির্সোটের প্রাথমিক পর্যায়ে নির্মিত ১১টি কটেজের নামকরণের ক্ষেত্রে আমার একটু অবদান রয়েছে। বিভিন্ন উপন্যাস বা কাব্যগ্রন্থের নামে কটেজের নামকরণ করেছি যেমন-- মাধুকরী, অরণ্যের দিনরাত্রি, ঝরাপালক, নীলকন্ঠ পাখির খোঁজে, শেষের কবিতা, অগ্নিবীণা, এইসব দিনরাত্রি, লাল-নীল দীপাবলী, সোনালী কাবিন, কালবেলা, গায়ত্রী সন্ধ্যা ইত্যাদি। ধামরাইয়ের মৃৎশিল্পী গোবিন্দ পাল উপন্যাস বা কাব্যগ্রন্থের নামে টেরাকোটার ডিজাইন করেছেন।

বিভিন্ন কটেজের মান অনুযায়ী ভাড়া (৩০০০ থেকে শুরু করে ৯৫০০ টাকা) নির্ধারণ করা হয়েছে। সেসব ডুপ্লেলেক্স কটেজে নিজস্ব সুইমিংপুল রয়েছে সেখানে স্বাভাবিকভাবে ভাড়া একটু বেশি । নিয়মিত ভাড়ার পাশাপাশি করপোরেট অফার রয়েছে। ওয়ার্কিং দিনগুলো (রবিবার থেকে বুধবার) ভাড়া কম থাকবে; ছুটির দিনগুলোতে (বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার ) ভাড়া সে তুলনায় একটু বেশি থাকবে।

সবুজ গাছপালা, প্রাকৃতিক প্রবাহ ও লতাপাতা দিয়ে ঘেরা প্রতিটি কটেজ প্রিয় কবি, লেখক ও কথা সাহিত্যিকের প্রিয় বই গুলোর প্রচ্ছদ অনুযায়ী নামকরণ করা ।

টেরাকোটার ডিজাইনের নিচে থাকবে সে লেখক, কবি অথবা কথা সাহিত্যিক পরিচিতি এবং তাঁদের উল্লেখযোগ্য বই এর সংগ্রহশালা। ‘শেষের কবিতা’ কটেজে রয়েছে বিশব করি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কিছু উল্লেখযোগ্য বই; ‘এইসব দিনরাত্রি’ কটেজে আছে প্রিয় কথা সাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদের বই, ‘মাধুকরী’তে থাকবে বুদ্ধদেব গুহের উল্লেখযোগ্য বই ইত্যাদি।

তাছাড়াও কেন্দ্রীয়ভাবে শিশু কিশোরদের বই এবং অন্যান্য উল্লেখযোগ্য বই এর সংগ্রহশালা থাকবে - যা অবসরে অতিথিদের নির্মল সময় কাটাতে সাহায্য করবে; সমৃদ্ধ হবে সাহিত্য জ্ঞানে আমাদের প্রযুক্তিনির্ভর প্রজন্ম ।

রিসোর্ট বুকিং এবং তথ্যের জন্য সার্বক্ষনিক যোগাযোগ:

880 1766-557760

Facebook ID:https://www.facebook.com/BalishiraResort/

Balishira Resort Owner, Balishira Resort

ভিডিও লিঙ্ক : দেখুন নিজ চোখে

https://www.facebook.com/BalishiraResort/videos/2456636377947086/

আপনার মতামত দিন:


ভ্রমণ এর জনপ্রিয়