Ameen Qudir

Published:
2020-04-14 14:04:10 BdST

নববর্ষ, ডায়াবেটিস এবং করোনাকালে ঘরে ব্যায়াম


 

ডা. অসিত মজুমদার
লোকসেবী চিকিৎসক

____________________


করোনায় অনেকে ঘরে বসে বসে অস্বস্তি পাচ্ছেন আর মোটা হচ্ছেন। তারপর যদি ডায়াবেটিস থাকে তাহলে তো একটু নতুন করেই ভেবে চিন্তে বসতে হয়। তার উপর আজ নববর্ষ। করোনার এই দিনেও আনন্দের কোন ঘাটতি নেই। খাবার দাবারের ক্ষেত্রেও নিশ্চয়ই কোন ঘাটতির অভাব হবে না। খাবার খেয়ে ফেলছেন কিন্তু এখন কি করবেন? উপায় একটাই ঘরে বসে এই সময় কিছু ব্যায়াম করা। সুতরাং করোনাকালে ঘরে বসে ব্যায়াম করেই শরীর ঠিক রাখুন।

ব্যায়াম শুধু ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য নয়। সবার জন্যই ব্যায়াম গুরুত্বপূর্ণ। মনে রাখবেন ব্যায়াম ওষুধের চেয়ে অনেক বেশী উপকারী। পরীক্ষায় দেখা গেছে ডায়াবেটিসে ব্যায়াম রক্তের গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে অনেক বেশি কার্যকর।

★ব্যায়ামে কী উপকার হয়
*নিয়মিত ব্যায়াম করলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে।
* ব্যায়ামে শক্তি খরচ হয় ফলে শরীরের ওজন ঠিক থাকে এবং শরীরে চর্বি কমে
* ব্যায়াম ইনসুলিনের কর্মক্ষমতা বাড়ায় ফলে শরীরে রক্তের গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রিত থাকে।
* ব্যায়ামের ফলে শরীরের রক্ত সঞ্চালন বাড়ে।
* ডায়াবেটিসের জটিলতা কমান সম্ভব হয়।
* ব্যায়াম রক্তের ভালো কোলস্টেরল বাড়ায় এবং খারাপ কোলস্টেরল কমায়।
* উচ্চরক্তচাপ কমায়
* ব্যায়াম দুশ্চিন্তা দূর করে মনকে সতেজ প্রফুল্ল রাখে।
* ঘুম ভালো হয়
* হাড় ও হৃৎপিণ্ডকে শক্তিশালী করে।
* জয়েন্ট সচল রাখে।
* বৃদ্ধ বয়সে হাড়ভাঙার প্রধান কারণ অস্টিওপোরসিস বা হাড় ক্ষয় হয়ে যাওয়া কমায়।
* নিয়মিত ব্যায়াম যৌন ক্ষমতা অটুট রাখে।
* ব্যায়াম ডায়াবেটিস রোগ প্রতিরোধেও উপকারী। নিয়মিত ঠিকভাবে ব্যায়াম করলে ডায়াবেটিস দেরিতে হবে অথবা নাও হতে পারে।

মনে রাখবেন খাবার এক ঘন্টা আগে বা খাবার দুই ঘন্টা পরে এর মধ্যে ব্যায়াম করবেন না।
★ করোনার এই সময় ঘরে থেকে কী ধরনের ব্যায়াম করবেন
স্ট্রেংথেনিং ব্যায়াম
স্ট্রেচিং ব্যায়াম
ব্যালান্সিং ব্যায়াম


স্ট্রেংথেনিং ব্যায়াম
স্ট্রেংথ মানে শক্তি। মাংশপেশির শক্তি বাড়ানোর জন্য এ ধরনের ব্যায়াম। এ ব্যায়ামে কাজ করতে হয় বেশি যেমন ওজন তোলা বা স্প্রিং টানা ইত্যাদি।

স্ট্রেচিং ব্যায়াম
মাংশপেশি এবং গিটের জড়তা কাটিয়ে সচল করাই হল এ ব্যায়ামের উদ্দেশ্য। এরোবিক ব্যায়াম শুরু করার আগে স্ট্রেচিং করা উচিত।

ব্যালান্সিং ব্যায়াম
ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য এ ব্যায়াম। যেমন এক পায়ের ওপর দাঁড়ানো। এ ব্যায়াম চলাচল করতে সাহায্য করে এবং পড়ে গিয়ে আঘাত পাওয়া থেকে রক্ষা করে।

* একটু বেশি পানি খাবেন, ব্যায়াম শুরুর আগে, ব্যায়াম করার সময় বা ব্যায়ামের পরে।
* বাসার কাজ নিজে করবেন, ঘর নিজেই পরিষ্কার করবেন
* সময় থাকলে বাগান বা সবজি চাষ করবেন
* হাট-বাজার নিজেই করবেন
* বাচ্চাদের সঙ্গে খেলাধুলা করবেন
*৩০ মিনিট বসে কাজ করে পরবর্তী ৩ মিনিট হাঁটবেন।
*উঠবস করবেন শরীরের শক্তি অনুযায়ী যত বেশী সংখ্যক পারেন করবেন।
*বুকে শ্বাস প্রশ্বাস বাড়ায় এমন ব্যায়াম করবেন।

ঘরে ব্যায়াম করার অনেক উপায় আছে। পিটুইটারী, থায়রয়েড এর জন্য অথবা শ্বাসপ্রশ্বাস বাড়ায় বা হাত-পাসহ সমস্ত শরীরে রক্ত প্রবাহ বাড়ায় এমন ব্যায়াম করার অনেক নিয়ম কানুন আছে। আপনি আপনার প্রয়োজনমত ব্যায়ামটি করবেন। তবে ব্যায়াম নির্বাচনের ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নিবেন। তাহলে আজই শুরু হয়ে যাক আপনার জন্য নির্ধারিত ব্যায়াম। করোনা নিয়ে ভয় নয়। রোগ প্রতিরোধ বাড়ান। আমরা করব জয়।

আপনার মতামত দিন:


কোথায় ডাক্তার এর জনপ্রিয়