Ameen Qudir

Published:
2016-12-02 04:55:29 BdST

কেমনে কি ! কিভাবে সম্ভব !




 

ডাক্তার প্রতিদিন
______________________

কেমনে সম্ভব! তিনি একাই সর্বরোগের ডাক্তার।
কি রোগ তিনি সারাতে পারেন না। সেই রোগের নাম এখন মেডিকেল সাইন্সের অজানা।
এ তো সেই হরে কর কমবা জিওবা রুদের কারখানা।
ইনিও হরে কর কম ডাকতা রিরদোকা কানও কারখানা খুলে বসেছেন খোদ সিলেট স্টেডিয়ামে।

মেডিসিন, নিউরোমেডিসিন, স্নায়ু, স্ট্রোক ( তিনি লিখেছেন স্টোক ) ব্রেইন মানসিক পাইলস খাদ্যে অরুচি যক্ষ্মা চর্ম যৌন কিডনি প্যারালাইসিস বাত ব্যথা বুক জ্বালা কাশি হাপানি বক্ষব্যাধি এলার্জি সেক্স দুর্বল শরীর দুর্বল ব্লাড প্রেশার,

মাদকাশক্তি ( বানান তার এরকম; সম্ভবত মাদকের শক্তি নিয়ে কাজ করেন )
ঘাড় কোমর ব্যাথা মেরুদন্ড হাঁটু হাড়ের জোড়া ব্যথা আর্থাইটিস, দুশ্চিন্তা টাইফয়েড ম্যালেরিয়া ঘুম কম বমি গেজ নাক কান গলা সাইনোসাইটিস , শরীর ফুলঅ শরীর জ্বলা প্রসাবের সমস্যা, আঘাত জনিত সমস্যা, বাতজ্বর -- সব রোগের তিনি ডাক্তার।

মাশাল্লাহ। এই ডাক্তারকেই তো খুঁজছে বাংলাদেশ।
এই বিকট ডাক্তারের কার্ডখানা পাঠিয়েছেন সিলেটের সাধারণ মেডিকেল চিকিৎসকগন।
তাদের বক্তব্য , পেশাজীবি ডাক্তারদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের অভিযোগের শেষ নেই। কিন্তু এই ডাক্তারভয়ংকর খোদ স্টেডিয়ামে চেম্বার খুলে বসলেও প্রশাসন তা দেখছে না।
অনেকে খেদোক্তি করে বলেন, সম্ভবত প্রশাসন এইরকম সর্ববিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের মহাভক্ত।

ওয়াকিবহাল চিকিৎসক গন বলেন, একজন এমবিবিএস ডাক্তার প্রাথমিকভাবে জেনারেল প্রাকটিসে নানা রোগের লক্ষ্মণ চিহ্ণিত করতে পারেন। কিন্তু তিনি কোন রোগেরই বিশেষজ্ঞ নন। এই ডাক্তার এম বি বি এস ডিগ্রিও ব্যাবহার করছেন। আবার এম ফিল আছে বলে দাবি করছেন। কোন বিষয়ে বিশেষজ্ঞ সেটা না বলে সর্বরোগের ডাক্তারি করে চলেছেন।

দেশে বর্তমানে তিন মাসে এম বিবিএস, এমফিল ইত্যাদি ডাক্তারি ডিগ্রি জনপ্রিয় সব দৈনিকে বিজ্ঞাপণ দিয়ে ফেরী করা হয়। বিএমডিসির অনুরুপ একটি ভূয়া প্রতিষ্ঠান খুলে এই ব্যবসা ফাঁদা হয়েছে। তবে তিনি সিলেট মেডিকেল কলেজ থেকে পাশ করা ।

ডাক্তার প্রতিদিনের পক্ষে এই সর্বরোগডাক্তারের কাছে মোবাইলে ফোন দেয়া হয়েছিল । ডাক্তার সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে নম্বর থেকে বলা হয়, "আমি টিকেট। আমি টিকেট। "
--টিকেট মানে কি ভাই ! এটা কি আপনার নাম!
--হ্যাঁ । আমি টিকেট। অামি টিকেট।
_ কিসের টিকেট ভাই!
--আমি স্যারের টিকেট।
পরে বোঝা গেল, তিনি ডাক্তার সাহেবের টিকেট বা সিরিয়াল দেন। চেম্বারে গিয়ে ফি দিলে ডাক্তার কথা বলবেন।

জানতে চাওয়া হল, তিনি কিসের এম ফিল। মি. টিকেট জানান, সাইকোলজি।
বলা হয়, ডাক্তারি শাস্ত্রে সাইকোলজির কোন এমফিল দেয়া হয় না।
মি. টিকেট বলেন, "তাইলে ধরে নেন, উনি সবরোগের বিশেষজ্ঞ। একসপাট ।ওনার সাইনবোট দেখেন নাই! ভিজিটিং কাডে সব লেখা আছে। "

--ভাই আপনার অসল নাম বলবেন !
টিকেটের জবাব,
-বললাম তো, আমি টিকেট। অন্য নাম নাই। অন্য নাম দিয়া কাম নাই। ফোন নম্বর তো ঠিক আছে।
ওইটা লইয়া আসেন। সিরিয়াল নেন।

আপনার মতামত দিন:


কোথায় ডাক্তার এর জনপ্রিয়