Ameen Qudir

Published:
2016-12-01 12:33:57 BdST

ডাক্তারের বাবারও ফ্লোরে চিকিৎসা হয়,মিডিয়া তা লেখে না




ডা. রাজীব হোসাইন সরকার
____________________________
·

খাদিজার চেয়েও সিরিয়াস লক্ষ লক্ষ রোগী প্রতিদিন বেঁচে যাচ্ছে ডাক্তারদের জন্য।

এক খাদিজার বেঁচে যাওয়ায় সাংবাদিকরা লিখল কি লিখল না তাতে ডাক্তারদের তেমন কিছু যায় না... আসেনা।

গতরাত তিনটার সময় হাত ভেঙে এক রোগী আসল। অনেকেই ফ্লোরে শুয়ে আছে। তিনি শুবেন না। বারবার বেডের জন্য জোরাজুরি করছিলেন।আমি অনেকবার বোঝালাম। কাজ হলনা। ভদ্রলোক শেষে বললেন, কাউকে নামিয়ে দিয়ে যেন তাকে বেড দিই।

আমি হাসিমুখে বললাম,
আমার বাপ অসুস্থ্য হয়ে আসলেও আমি তাকে এইমুহুর্তে বেড দিতে পারব না। তাকেও ফ্লোরে শুয়েই চিকিৎসা নিতে হবে। সরকারি বেড। প্রত্যেকটা বেডের আমদানী মূল্য নয় লক্ষ টাকা। নয় লাখের বেডে যদি একজন মুচি বা ডোমও শুয়ে থাকে আমি তার হাত পা ধরেই পালস বিপি দেখেই চিকিৎসা দিব। নামিয়ে দিতে পারব না। উল্লেখ্যঃ আমার বাবা অসুস্থ্য হয়ে ফ্লোরেই ছিল। সব বেডে তখন রোগী ।

ভদ্রলোক তবুও বুঝলেন না। বারবার বলছেন তিনি একটি বিশেষ প্রতিষ্ঠানের নামকরা ইংরেজির শিক্ষক। আমি তাকে সালাম করর ডিউটি ডক্টরস রুমে চলে আসলাম।

যেখানে শিক্ষিত শিক্ষকরা বোঝেন না, সেখানে পত্রিকা চালানো লোকগুলো কিভাবে খাদিজার মৃত্যু থেকে ফিরে আসার ক্রেডিট ডাক্তারদের দিবে?
পত্রিকার প্রতি ইঞ্চি জমির দাম আছে। ওটা বিজ্ঞাপনের জন্য। একটা কোচিং সেন্টারের তিন বাই তিন ইঞ্চি বিজ্ঞাপন দিলেও দুই লাখ টাকা ইনকাম।

 


_________________________


লেখক ডা. রাজীব হোসাইন সরকার । ডিউটি ডাক্তার (নিউরো-সার্জারী)
রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল

আপনার মতামত দিন:


কোথায় ডাক্তার এর জনপ্রিয়