ডেস্ক

Published:
2021-05-11 05:44:14 BdST

"আলহামদুল্লিলাহ মৃত্যুকে একদম কাছ থেকে দেখে নতুন জীবন নিয়ে রংপুরে পৌছেছি"


ডা. নুরুল হাসান বাবু

__________________________

আলহামদুল্লিলাহ মৃত্যুকে একদম কাছ থেকে দেখে নতুন জীবন নিয়ে রংপুরে পৌছেছি গত ১০ই মে দুপুর ২.৩০ । না বিমানবন্দরে ঢোকা থেকে শুরু করে , ওয়েটিং লবি , সাটল বাস বিমান উঠা নামা ভিতর কোথাও করোনা স্বাস্থ্য সচেতন ব্যবস্থাপনা সামাজিক দূরত্বের মেনে চলার যুযোগ অধিকার আমাদের দেশের নাগরিকদের কোথাও ছিল না সে জন্য নয় বা বিমানে ময়লা নোংরা জামা পড়া কেবিন ষ্টাফের অকাজে বিরক্তিকর ঘোড়াঘড়ি করতে থাকার জন্যও নয়-

বাংলাদেশ বিমান ফ্লাইট বিজি ০৬৯৩ ফ্যাক্ট -চুড়ান্ত দূর্ঘটনা না ঘটায় আর আমরা বোকা বাঙ্গালী বলে কোন খবর হলনা, দিল না কেউ কৈফিয়ত-

সেই বিমানের একমাত্র সন্মানীত দক্ষ পাইলট ছাড়া ধিক্কার দেই বাংলাদেশ বিমান মন্ত্রীসহ দেশের আভ্যন্তরীণ বিমান চলাচল ব্যবস্থাপনাকে -সার্বিক যোগ্যহীন দায়শূন্য আচরনের জন্য ।

আমার দেশ-বিদেশের ন্যুনতম শত এয়ারলাইন্সের ব্রান্ড ক্যারিয়ারে কয়েক শতবার বিমান ভ্রমণের অভিজ্ঞতায় মানুষের জীবন নিয়ে এমন চুড়ান্ত নিলজ্জ দায়িত্বহীন জোড়াতালি দোলা অব্যবস্থানা আর কোথাও পাইনি - খোদ আফ্রিকার ভ্রমণ করা দশটি দেশের বিমান সংস্থাতেও না।

আচ্ছা সৈয়দপুর বিমানবন্দর কি আদৌ ব্যবহার যোগ্য ! আবহাওয়া রাডার , ফ্লাইট ট্রাফিক কন্ট্রোল কি আছে ? সৈয়দপুরের আবহাওয়া কালোবৈখাখীর খবর ঢাকা বিমানবন্দরে বিমান উড়ার আগে বা অন্তত সৈয়দপুর থেকে ৫০ কিমি দূরে থাকা অবস্থায় জানাতে পারেন না ? উক্ত রাডার বা খালি চোখে ঝড় দেখার কোন চশমা যন্ত্র বা মহারাজ অফিসার যদি থাকেনও তিনি কি দক্ষ , চোখে দেখেন ? তিনি সংখ্যায় কি একজনই যার প্রচন্ড ঝড় দেখে হিসু লাগে বা এয়ারপোর্টে আসা কোন ভিভিআইপি বাপের কাছে গিয়ে ট্রান্সফারের জন্য পা ধরে বসে থাকে ? যিনি এয়ারপোর্ট থেকে মাত্র ২০ কিমি দূরে সৈয়দপুরের ঝড়ের খবর পাইলটকে দেননা ( পাইলটের স্পষ্ট ঘোষনা ছিল আমরা এখন ২০ কিমি দূরে ...উপরে গিয়ে ঝড় থামার জন্য অপেক্ষা করব) । মধ্য আকাশেই (সম্ভবত ১৬/১৭ হাজারেরও বেশী উচ্চতায় ) বিমান প্রচন্ড ঝড়ের মধ্যে পড়ে একটানা ন্যুনতম দশমিনিট একদম অন্ধকারে মাইল মাইল পথ ডান বাম উপর নীচ পাগলের মত ছুটে তার কলকব্জার চুড়ান্ত চিৎকারে মহান আল্লাহ কাছে তার বুকে থাকা অন্তত ৬৫/৭০ জন যাত্রী ক্রুদের (DASH 8 ) বাঁচানোর জন্য প্রচন্ড ঝড়ের সাথে লড়ে যায় ( এটা ছিল ঝড়ের সাথে টিকে বেঁচে থাকার চুড়ান্ত চেষ্টা লড়াই সাধারন বাপ্পিং নয় ) - মহান আল্লাহ কৃপায় অন্তত অতিরিক্ত ২৫/৩০ মিনিট পর সেই দক্ষ ক্যাপ্টেন আর সহপাইলটের প্রাণান্ত চেষ্টা আর দায়িত্বজ্ঞানে আমরা জীবিত আবার পৃথিবীর মাটি ছুতে পেরেছি ।

আল্লাহ মানুষের মৃত্যু দিনক্ষণ নির্ধারন করেছেন নিশ্চয়ই তবে- সৈয়দপুর রুটে ভ্রমন আর দেশের অন্তত তিন কম্পানির বিমানের আকাশে চলাচলের অযোগ্য - সাবধান হোন।

আমি আমার জীবনে এই প্রথম ক্ষোভ- গালি দিয়ে কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ নিয়ে বললাম ও গরীব কানাবাবার দরবার ফেসবুকে লিখলাম - আমার মনে হয় ঐ ফ্লাইটের আরো সব যাত্রীর কাছে এই সত্যতা প্রমানে কেউ খবর নিক -অন্তত মন্ত্রী মহোদয়

আপনার মতামত দিন:


ভ্রমণ এর জনপ্রিয়