Ameen Qudir

Published:
2019-08-24 14:46:50 BdST

শিক্ষক মায়ের সন্তান যেভাবে বাংলাদেশের ডাক্তার শিক্ষামন্ত্রী


 


ডা. মহম্মদ কামাল হোসেন


_________________________

কিছু কিছু ছবি মানুষের জীবনকর্মের মহত্তম কীর্তিকে তুলে ধরে। এই ছবি তেমনই এক ছবি। এই ছবির জননী ছিলেন একজন মানুষ গড়ার কারিগর। শিক্ষক। লাখো শিক্ষার্থীদের সুশিক্ষা দিয়েছেন। তার মধ্যে আমার দুজন ডাক্তার বোন রয়েছেন।
সেই শিক্ষিকার মেয়েই আজ দেশের প্রথম নারী শিক্ষামন্ত্রী। তিনিও একজন ডাক্তার। সবাই এক নামে চেনেন।
ড. দিপু মনি । তার মা হলেন শিক্ষক রহিমা ওয়াদুদ।
স্বাধীনতার ৪৭ বছর পর দেশ একজন নারী শিক্ষামন্ত্রী হয়েছেন। বাংলাদেশের ইতিহাসে যুক্ত হয়েছে নতুন এক অধ্যায়। নবম জাতীয় সংসদে তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছিলেন। দায়িত্ব পালনে ছিলেন সফল। এ এক অনন্য গৌরবের ইতিহাস।
ষাটের দশকের মাঝামাঝি ভাষাবীর এমএ ওয়াদুদ এবং শিক্ষিকা রহিমা ওয়াদুদের ঘর আলোকিত করে জন্ম নেয়া শিশুটিই ডা. দীপু মনি। নতুন এই শিক্ষামন্ত্রীর মা রহিমা ওয়াদুদও ছিলেন একজন মানুষ গড়ার কারিগর। জ্ঞানের আলো বিলিয়েছেন দীর্ঘসময়। সাদামাটা তার জীবন-যাপন। তার মধ্যে কখনোই পরশ্রীকাতরতা নেই। কারো কিছু দেখলে পাওয়ার কোন লোভও নেই। অন্যের সফলতা দেখে ঈর্ষান্বিত হন না, বরং খুশি হন। সেই শিক্ষিকার মেয়েই চিকিৎসক ও শিক্ষামন্ত্রী।


দীপু মনি ছিলেন সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি। এখন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। দলের অন্যতম মুখপাত্র হিসেবে সারাদেশে এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সুনাম কুড়িয়েছেন। তরুণ প্রজন্মের কাছেও প্রিয় নেত্রী হতে পেরেছেন। আশা করা যায়, আগামীতে আরও বড় দায়িত্ব পাবেন দলের।

_____________________

ডা. মহম্মদ কামাল হোসেন । চাঁদপুর।

আপনার মতামত দিন:


প্রিয় মুখ এর জনপ্রিয়