Ameen Qudir

Published:
2018-09-30 20:34:25 BdST

বাংলাদেশের প্রথম নারী মেজর জেনারেল হলেন একজন চিকিৎসক


 

 


ডেস্ক:
বাংলাদেশের ইতিহাসে নারীর ক্ষমতায়নের এক ঐতিহাসিক ঘটনা ঘটল। প্রথম নারী মেজর জেনারেল হলেন একজন চিকিৎসক: যিনি রাজশাহী মেডিকেলের প্রাক্তন শিক্ষার্থী। তাকে অভিনন্দনের আনন্দ এখন দেশের চিকিৎসক মহলে।
গৌরবের অংশীদার হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ সহ নবীন তরুণ প্রবীন চিকিৎসক বৃন্দ এবং ,তার গর্বিত সহপাঠি গন তাকে অভিনন্দিত করছেন ইনটার নেট মিডিয়ায়।


আইএসপিআর সূত্র থেকে পাওয়া তথ্যে জানা যায় , বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ইতিহাসে প্রথমবারের মতো নারী মেজর জেনারেল পদে পদোন্নতি পেয়েছেন ডা. সুসানে গীতি।

সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ, সেনাবাহিনীর কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল লেফটেন্যান্ট জেনারেল মো. সামছুল হক, পিএসসি রোববার ৩০ সেপ্টেম্বর সেনা সদরদফতরে তাকে মেজর জেনারেল পদবির র‌্যাংক ব্যাজ পরিয়ে দেন। এ সময় ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

মেজর জেনারেল সুসানে গীতিকে র‌্যাংক পরিয়ে দিচ্ছেন সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমদ ও লেফটেন্যান্ট জেনারেল শামসুল হক ছবি:আইএসপিআর

 

উল্লেখ্য, ডা. সুসানের স্বামী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আসাদুল্লাহ মো. হোসেন সাদ (অবসরপ্রাপ্ত) একজন সফল সামরিক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ছিলেন।

রোববার আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর)-এর পাঠানো এক বিবৃতিতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী নারীর ক্ষমতায়নে যে যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিয়েছেন সেনাবাহিনীতে মহিলা অফিসারকে মেজর জেনারেল হিসেবে পদোন্নতি প্রদানের মাধ্যমে সেই পদক্ষেপের আরও একটি নতুন দিগন্তের সূচনা হলো।

মেজর জেনারেল সুসানে গীতি ১৯৮৫ সালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করেন। পরবর্তীতে ১৯৮৬ সালে তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে নারী ডাক্তার হিসেবে ক্যাপ্টেন পদবিতে যোগদান করেন। তিনি ১৯৯৬ সালে প্রথম নারী হিসেবে হেমাটোলজিতে এফসিপিএস ডিগ্রি অর্জন করেন।

এ ছাড়াও তিনি জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী মিশন এবং বিভিন্ন সামরিক হাসপাতালে প্যাথলজি বিশেষজ্ঞের দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে তিনি আর্মড ফোর্সেস মেডিক্যাল কলেজের প্যাথলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

আপনার মতামত দিন:


প্রিয় মুখ এর জনপ্রিয়