Ameen Qudir

Published:
2018-06-02 06:52:33 BdST

যেভাবে অপমান ও আহত হয়েও পথিকৃৎ বিশেষজ্ঞ হয়েছিলেন অধ্যাপক ডা. মুজিবুল হক


 


অধ্যাপক ডা. মুজিবুল হক
_____________________________

একদিনও ভাবিনি, ঢাকা কলকাতার বাইরে কখনও যাওয়া হবে।
আমি ৩ বছর বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মেডিসিন এর সিএ /রেজিস্ট্রারার ছিলাম।এর পরই মেডিসিনে বিশেষজ্ঞ হবার পালা। সে সময় তা ছিলো একেবারই অনায়াস সাধ্য। বাধ্য হয়ে ইচ্ছাটা বদলাতে হয়। মনোকষ্ট ভোলার নয়।

নিয়তি ছিলো অন্যরকম।সময়টাও ছিলো প্রতিকূল।

 

সুলতান সুলেমানের প্রাসাদে

 

এমনিতে ঢাকার পরেই শিক্ষায় বরিশাল এগিয়ে ছিলো।মুরব্বীরা ছিলেন, অভিজাত, উদারমনা,সজ্জন ।

তবে মুরব্বীদের নিয়ন্ত্রণ হীন সেই অসুন্দর, অসংস্কৃত, সময়টিতে পাড়ায়, পাড়ায় তরুণেরা ছিলেন উন্মত্ত, অপ্রতিরোধ্য দ্বন্ধে লিপ্ত।

হাসপাতাল টি মূল ভবনে শিফট হচ্ছিল।

ভীতিকর "আলেকান্দায়" ছিলো অস্থায়ী মেডিকেল ওয়ার্ড। আমি সেখানেই কাজ করতাম।

ডাক্তার, নার্সদের উত্যক্ত করা এক প্রিয় কাজ ছিলো উঠতি রোমিওদের। তারা ছিল সংযমহীন। নিয়ন্ত্রণ হীন।

নানা তুচছতম ঘটনায়ও বার বার নিজে মারাত্মক ভাবে আহত হতে থাকলো।

 ইউরোপে আবার পোস্ট গ্রাজুয়েশন

 

এমনকি, এত শান্ত, বিচক্ষণ(বিলাত থেকে খুবই দুঃসাধ্য MRCP করা, সে দেশেই খুবই সন্মানিত কনসালটেন্ট পদে কাজ করা) অধ্যাপককে ও লাঞ্ছিত করা হলে;

আমার অধ্যাপক ও মাতৃসমা তার বিদেশীনি স্ত্রী,আমার দুর্দশা দেখে মেডিসিনে কাজ করা চিরতরে ছেড়েই দিতে উপদেশ দেন। গভীর দুঃখে তারা এটা বলেন।

অন্যায় উত্তেজনার সুযোগ বিহীন এক সাবজেক্টে পোস্ট গ্রাজুয়েশন করতে বলেন।

বিক্ষুব্ধ আমি অনেক মনোকষ্টে রাজী হই।

আমি skin/ std বিশেষজ্ঞ হই।

 

উদয়পুরে সস্ত্রীক অধ্যাপক ডা. মুজিবুল হক

 

সারা দেশে তখন এ বিষয়ে মাত্র ৪/৫ জন স্পেশালিস্ট ছিলাম । রুগীর সংখ্যা ছিল অগনিত।

পরে ইউরোপে আবার পোস্ট গ্রাজুয়েশন করি।
সব মিলিয়ে পৃথিবীর নানা দেশ ভ্রমণ করা হয়।

প্রচুর বিদেশী আমন্ত্রণ পাই। সম্মান পাই,সম্মাননা পাই। নানা দেশ বিদেশ ঘোরা র সুযোগ হয়।
নিয়তি যে পথেই নিয়ে গেছে তাতে আল্লাহর কাছে সন্তোষ ই প্রকাশ করি।

"আমারে তুমি অশেষ করেছো প্রভু" ।
______________________________

অধ্যাপক ডা. মুজিবুল হক । দেশের প্রখ্যাত লোকসেবী চিকিৎসক। সুলেখক ।
FCPS FRCP(uk)DDV(austria)
Skin & Sexul medicine specialist
Popular Dhanmondi 2 ।

স্মৃতিময় আরও কিছু ছবি


 

দুবাই য়ে

 

বেইজিংএ

 

আপনার মতামত দিন:


প্রিয় মুখ এর জনপ্রিয়