Ameen Qudir

Published:
2018-02-07 07:09:31 BdST

৭৫ বছর বয়সী পিএইচডিধারী লেখিকা মেলায় নিজেই বই নামক আলো ফেরি করেন


 

 

ডা. আইনুল হক
______________________

 

বাংলা একাডেমী বইমেলায় এখন সবার নজর কেড়েছেন একজন লেখক । তিনি নিজেই তার বই ঘুরে ঘুরে বিক্রি করেন। ৭৫ বছরের এই মহান নারী লেখক হিসেবে অক্লান্ত। কাজের মাঠেও ক্লান্তিহীন। তিনি একজন সত্যিকারের পিএইচডি ধারী হয়েও পাঠকের কাছে বই পৌছে দিতে তার কোন কার্পণ্য নেই। বার্ধক্যের কোন জরাও তাকে স্পর্শ করে নি।
তার নাম ড. আকন্দ সামসুন নাহার ।


এই লেখকের ইতোমধ্যেই বিরাট ভক্তকুল গড়ে উঠেছে তার অক্লান্ত পরিশ্রমের কারণে।
সম্প্রতি ঢাকা বইমেলা ঘুরে মার্কিন প্রবাসী কলকাতা মেডিকেল কলেজ থেকে পাস করা খ্যাতনামা চিকিৎসক শুভেন্দু চট্টোপাধ্যায় ফেসবুকে এক স্টাটাস দিলে দেশে বিদেশে এই লেখককে ঘিরে আলোচনা ও শ্রদ্ধাভালবাসার ঝড় ওঠে।

শুভেন্দু ফেসবুকে লিখেছেন, "বইমেলায় গিয়ে সাক্ষাৎ সরস্বতীর মুখোমুখি হলাম। জীবনে এমন মধুর অভিজ্ঞতা হবে কল্পনাও করি নি।

তিনি একজন আলোকিত লেখক । মানুষ গড়ার কারিগর শিক্ষক। পেশাগত জীবন কাটিয়েছেন লিখে ও শিক্ষকতা করে।"

 


বইমেলার হাজারও বানিজ্য বেসাতির ক্লেদ এড়িয়ে তিনি একাই তার বই পৌছে পাঠকের কাছে।

 


প্রতিবছর বইমেলায় হাজার অখাদ্য কুখাদ্য বই প্রকাশ হলেও এই মানবিক লেখকের বই কোন প্রকাশক প্রকাশ করে নি। কিন্তু নিজের অতিমানবিক পরিশ্রমে তিনি ঠিকই লেখক হিসেবে তার অবস্থান তৈরী করে নিয়েছেন।

১৯৪৩ সালে ভোলার তজুমুদ্দীন থানায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ইডেন কলেজ থেকে বাংলায় অনার্স ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন। পরে আবার রাষ্ট্রবিজ্ঞান এবং শিক্ষা ব্যবস্থাপনার উপরও মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন। ভারতের কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেছেন।


বাংলা একাডেমী অমর একুশে গ্রন্থমেলায় গেলে দেখা মিলবে এই লেখকের। ড. আকন্দ সামসুন নাহার বই বিক্রী নিজেই ফেরি করে।

 

বিভিন্ন মিডিয়ায় তাকে নিয়ে লেখাও হচ্ছে।

 

ইশতিয়াক আহমেদ চৌধুরী নামে একজন লিখেছেন, ‘আমার বই পড়তে ভালো লাগে। সে যেই বই হোক। তবে এটা স্বীকার করি, সব বই মন্ত্রমুগ্ধ করে না। অনেকদিন পর একটা বই পড়তে শুরু করলাম যেটা আমাকে আটকে ফেলেছে। মন্ত্রমুগ্ধ করেছে। অসাধারণ বইটার নাম 'নিঝুম দ্বীপের মহাকাব্য', লেখিকার নাম ড. আকন্দ সামসুন নাহার।’

ড. শামসুন নাহারের লেখা গ্রন্থ হল,


নিঝুম দ্বীপের কাব্য, সোহরাব রুস্তম, যখন বৃষ্টি নামল না, যূথবদ্ধ, গল্প লোকের বাড়ি, বাতিঘর প্রভৃতি।


এই পরিশ্রমী লেখক একজন রত্নগর্ভা মাতাও।

, শিরোনামহীন ব্যান্ডের জনপ্রিয় ভোকাল তানযির তুহিনের মা তিনি। তানযির তুহিন এখন আভাস নামে একটি নতুন ব্যান্ড দল গঠন করেছেন ।


লেখক মাসুম আহমেদ জানান, ‘বইমেলায় প্রতিবছর তিনি নিজের বই ফেরি করে বিক্রি করেন। টাকা কামানো উনার উদ্দেশ্য না। উনি শুধু চান নতুন প্রজন্ম উনার বইগুলো পড়ুক।’

 

কর্মজীবনে তিনি দীর্ঘ সময় সরকারি কলেজে অধ্যাপনা করেছেন। পেশাগত দায়িত্ব পালন করেছেন ন্যাশনাল কারিকুলাম অ্যান্ড টেক্সটবুক বোর্ড -এ। ২০০১ সালে তিনি সরকারি চাকরি থেকে অবসরে যান। এরপর তিনি এশিয়া ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের শিক্ষা ও ট্রেনিং বিভাগের প্রধান ও ডিনেরও দায়িত্ব পালন করেছেন।
----------------------------------

আইনুল হক। ঢাকা।

আপনার মতামত দিন:


প্রিয় মুখ এর জনপ্রিয়