Dr. Aminul Islam

Published:
2021-06-12 22:12:35 BdST

অতিমারীর বিরুদ্ধে বাংলাদেশের লড়াইয়ে রিয়েল হিরো ঢাকা মেডিকেলের ডাক্তাররা


ডেস্ক
________________________

অতিমারীর বিরুদ্ধে বাংলাদেশের লড়াইয়ে ঢাকা মেডিকেলের অবদান অবিস্মরণীয়।


ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) দ্বায়িত্ব নেওয়ার আগে করোনা মোকাবিলায় দেশ অগোছলো ছিল। ঢাকা মেডিকেলের চিকিৎসকরা সেই অবস্থা থেকে দেশকে রক্ষা করেছে।

শনিবার (১২ জুন) ঢাকা মেডিকেলের ডা. মিলন অডিটোরিয়ামে সম্মুখ সারির করোনা যোদ্ধাদের সম্মানোনা ও ক্রেস্ট প্রদান অনুষ্ঠানে বক্তারা একথা বলেন।

তারা বলেন, কোভিড-১৯ বা করোনাভাইরাসের শুরুতে ঢাকা মেডিকেলের সবচেয়ে বেশি অবদান । ফলে যদি রিয়েল কোনো অনার দিতে হয় তাহলে সেটা দিতে হবে ঢাকা মেডিকেল কলেজকে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ দ্বায়িত্ব নেওয়ার আগে দেশের অবস্থা অগোছলো পরিবেশ ছিল। ঢামেক সঠিক সময়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। তারপরও রোগীরা জায়গা পাচ্ছিলো না।

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য বিভাগের লাইন পরিচালক ডা. রোবেদ আমিন বলেন, ‘একজন ডাক্তার হওয়া খুব কঠিন। কারণ এটার সাথে ইথিকাল এবং মোরাল বিষয় জড়িত থাকে। ইথিকাল এবং মোরালি আপনি একটা পেশেন্টকে সেবা দিতে বাধ্য। কিন্তু যখন কোনো পেন্ডেমিক সিচ্যুয়েশন আসবে তখন আপনি কনফ্লিক্টে পড়ে যাবেন যে, এটার জন্য আপনি আপনার পরিবারকে মেরে ফেলছেন কি না। এটা ভেরি ডিফিকাল্ট সিচ্যুয়েশন। ওই ডিফিকাল্ট সিচ্যুয়েশনে শুধুমাত্র ঢামেক ছাড়া কেউ রিস্ক নেয়নি। এজন্য ঢামেকের তখনকার কর্মকর্তাদেরকে আমি স্যালুট জানাই। সুতরাং যদি অনার দিতে হয় তাহলে ঢামেককেই দিতে হবে। যেসকল ইনস্টিটিউট কোভিড সিচ্যুয়েশন ট্যাকেল দিচ্ছে তাদের সবাইকেই স্যালুট। তবে অনার করলে ঢামেককে করতে হবে।’

দেশে কোভিড প্রেক্ষাপটের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আপনি জানেন না যে, বাংলাদেশ থেকে কখন আমরা কোভিড-১৯ শেষ করতে পারবো। কারণ আমরা এখন পর্যন্ত আনস্টাবল ট্রান্সমিশনে রয়েছি। আনস্টাবল ট্রান্সমিশনে থাকলে আপনি কখোনই প্রেডিক্ট করতে পারবেন না যে, কখন এটা শেষ হবে। স্বাস্থ্যবিধি মানার পাশাপাশি আমরা যদি ভ্যাসিনেটেড না করতে পারি তাহলে আনস্টাবল ট্রান্সমিশন চলতেই থাকবে।’

কোভিড ওয়ারিয়রসদের অবদানের কথা উল্লেখ করে অধ্যাপক ডা. রোবেদ আমিন বলেন, ‘ওয়ারিয়রস মানে হচ্ছে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন যোদ্ধা। যিনি যুদ্ধের সাথে সম্পৃক্ত থাকেন। আমি সেনাবাহিনীসহ এমন অভিজ্ঞদেরকে ওয়ারিয়রস ভাবতাম। এই ওয়ারিয়রসের অংশ হিসাবে বর্তমনা সময়ে যারা রয়েছে তারা হচ্ছেন আপনারা অর্থাৎ কোভিড যোদ্ধারা। যারা এই সময়ে রিয়েল যুদ্ধ করেছেন। আপনারাই সত্যিকারের যোদ্ধা। এ জন্য আমি আপনাদেরকে স্যালুট জানাই।’

আপনার মতামত দিন:


ক্লিনিক-হাসপাতাল এর জনপ্রিয়