Ameen Qudir

Published:
2020-04-08 15:59:18 BdST

সৌদিতে সেকেন্ডারী ও টারসিয়ারি হাসপাতাল গুলো ইমার্জেন্সি রোগী ছাড়া সব ওপিডি বন্ধ রেখেছে


ডা. আজাদ হাসান
______________________

সৌদি আরবে সেকেন্ডারী এবং টারসিয়ারি কেয়ার হাসপাতাল গুলো ইমার্জেন্সি রোগী ছাড়া সব ওপিডি বন্ধ রেখেছে। রুটিন ওটি বন্ধ আছে। তবে জরুরী সার্ভিস এবং ইনডোর চালু আছে।
ক্রনিক ডিজিজ রোগীরা সংশ্লিষ্ট ফার্মেসীতে ঔষধ পাচ্ছে।
করোনা রোগী সন্দেহ হলে নির্দিষ্ট পরীক্ষা শেষে সনাক্ত কৃত রোগীদের নির্দিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসা করা হয়।

এখানে বলে রাখি, এখানকার সেকেন্ডারী ও টারশিয়ারি কেয়াট হাসপাতালে এবং কিছুই কিছু প্রাইমারী কেয়ার হাসপাতালে ~
★চিকিৎসকরা রোগীর চিকিৎসা দেয়ার পর কম্পিউটারে সংশ্লিষ্ট রোগীর চিকিৎসা / প্রসক্রিপশন লিখেন।
★সংশ্লিষ্ট রোগীর মোবাইলে তৎক্ষনাৎ একটি এসএমএস চলে যায়।
★রোগীরা সরকার কর্তৃক নির্ধারিত ফার্মেসিতে যেয়ে উক্ত এসএমএস দেখানো মাত্র উক্ত ঔষধ বিনামূল্যে পেয়ে থাকে।

তবে উল্লেখ্য, এখানকার প্রাইমারী হেলথ কেয়ার সেন্টার বর্তমানে খোলা আছে।
★ প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোতে রোগীরা এলে, ট্রায়েজ-এর মাধ্যমে রোগীদের স্ক্রিনিং করে কোভিড-১৯-এর সন্দেহ ভাজন রোগীদের নির্দিষ্ট সেন্টারে রোগী রেফার্ড করা হয়।
উল্লেখ্য, এখানে রেফারাল এবং এপয়েন্টমেন্ট ছাড়া কোনো সেন্ডারী কিংবা টারসিয়ারি কেয়ার হাসপাতালে রোগী দেখা হয় না। ব্যতিক্রমঃ ইমার্জেন্সি সার্ভিস।

আপনার মতামত দিন:


ক্লিনিক-হাসপাতাল এর জনপ্রিয়