Ameen Qudir

Published:
2019-09-23 13:06:23 BdST

খোদ আমেরিকার মত দেশেও চিকিৎসা শাস্ত্রে ভন্ডর আবির্ভাব হয়েছিল


ডা. সাইয়েদ সুজন
সুলেখক
_____________________

শুধু আমাদের দেশ নয়, খোদ আমেরিকার মত দেশেও চিকিৎসা শাস্ত্রে ভন্ডর আবির্ভাব হয়েছিল কিছু বছর আগে। “হালদা ক্লার্ক” নামের এক অল্টারনেটিভ মেডিসিন স্পেশালিস্ট ছিলেন যিনি দাবী করেছিলেন – “দুনিয়ার সমস্ত রোগ হয় প্যারাসাইটিক ইনফেকশন থেকে”। তিনি আরো দাবী করেন- “তিনি কিছু ন্যাচারাল মেডিসিন দিয়ে ক্যান্সার , এইডস এর মত রোগ চিরতরে নির্মুল করে দিতে পারেন”।
এটার জন্য তিনি একটা চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানও গড়ে তোলেন মেক্সিকো তে। যার নাম দেন “ সেঞ্চুরি নিউট্রিশন ক্লিনিক” । যেখানে তিনি ক্যান্সার , এইডস রোগীদের ইলেক্ট্রিক শক ও কিছু ন্যাচারাল মেডিসিন দিয়ে চিকিৎসা করতেন। তিনি এই জন্য এতো প্রচারনা চালিয়েছিলেন – যে তার লেখা “দ্যা কিউর অল ক্যান্সারস, দ্যা কিউর ফর এইডস এন্ড কিউর ফর অল ডিজেজ” নামের বই এক সাথে ৭০ লাখ কপি সেল হয় ।
তার থিওরি মতে- মানব শরীরের সমস্ত ক্যান্সারের উৎস হলো খাদ্য নালীর একটা প্যারাসাইট । যার নাম – "ফ্যাসিওলোপসিস বুচকি (Fasciolopsis Buski)"। যেটা খাদ্যনালী ও লিভার কে আক্রান্ত করে । এবং সমস্ত ক্যান্সার এখান থেকেই সৃষ্টি হয় ।
তিনি এটাও বিশ্বাস করতেন – ডিপ্রেশন, এপিলেপ্সি, পারকিনসন ডিজেজও হয় ওয়ার্ম ইনফেস্টেশনে । এসব চিকিৎসার জন্য তিনি জ্যাপার, সিঙ্ক্রোমিটার , লিভার ফ্ল্যাশ , হোমিওগ্রাফি নামের বিভিন্ন চিকিৎসা পদ্ধতি আবিষ্কারও করেন।
এই ঘটনা বিদ্যুতের মত সাড়া উত্তর আমেরিকা তে ছড়িয়ে পড়ে। US FDA তার এসব আজগুবি আবিষ্কার গুলো নিয়ে এক্সটেন্সিভ গবেষণা শুরু করেন। গবেষণা শেষে ঘোষনা দেয়া হয়- “ তার সমস্ত চিকিৎসা পদ্ধতি ভূয়া, এবং যার কোনো বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা নাই” । ডিগ্রীর নথি টানতে গিয়ে বেরিয়ে আসে আরেক তথ্য – তার পোস্ট গ্রাজুয়েশনের ডিগ্রী টাও ভূয়া ছিল ।
Sad But True এবং পরবর্তী ইতিহাস:
ক্লার্ক দুনিয়ার মানুষের ক্যান্সার চিকিৎসা কইরা উল্টাইতে গিয়া , নিজেই উইল্টা পড়ছিলেন । ২০০৯ সালে হঠাত করেই তার “Multiple Myeloma” নামের ক্যান্সার ধরা পড়ে । ধরা পড়ার কয়েকদিনের মাথায় মারা যান ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ

(বিশেষজ্ঞ= বিশেষ ভাবে অজ্ঞ) ক্লার্ক ।

আপনার মতামত দিন:


ক্লিনিক-হাসপাতাল এর জনপ্রিয়