Ameen Qudir

Published:
2019-06-19 11:07:32 BdST

কুয়েত মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে কলকাতা বেঙ্গালুরুর চিকিৎসকদের চিকিৎসা সেবা!


 

ডেস্ক
______________________

কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে কলকাতা বেঙ্গালুরুর বিশিষ্ট চিকিৎসকদের এনে চিকিৎসা সেবার আয়োজন করেছে নারায়ণা হেলথ তথ্য কেন্দ্র। চিকিৎসা দেবেন, ডা. পিয়ংকর সিনহা , ডা. কিরণএম এবং ডা. প্রতীক দাস । তিন জন যথাক্রমে কার্ডিয়াক সার্জারি, নিওরো সার্জারি ও মেডিসিনের ডাক্তার। তারা সেবা দেবেন ২২ ও ২৩ জুন। ২০১৯ সালে। এ নিয়ে বিজ্ঞাপণও এসেছে মিডিয়ায়।
প্রশ্ন উঠেছে, সরকারি হাসপাতালে এভাবে মেডিকেল ক্যম্প করা যায় কিনা !

ডা. কামরুল হাসান রাহাত অন্তর্জালে জানতে চেয়েছেন, এটা কি ধরনের সরকারী হাসপাতাল? এখানে চিকিৎসক নিয়োগ হয় কিভাবে?

ডা. শারমিন মারিয়ার বক্তব্য, এরপর একে একে মেডিসিন, কার্ডিও, নেফ্রো, হেমাটো, ডার্মাটো সবাই আসবে। একে তো পিসি, স্যাকমো, ভুয়া ডাক্তার, কবিরাজ অর্ধেক রোগি নষ্ট করে, বাকি যা থাকে তা যায় প্রফেসরদের কাছে না হয় ইন্ডিয়া। মিড লেভেল ছিঁটেফোঁটাই পায়। এখন তেনারা আমদানী হলে এমবিবিএস বা মিড লেভেলের আর রোগি দেখতে হবে না, অন্য প্রফেশনে যেতে হবে।
ডা. নাসরিন সুলতানার কথা হল, নতুন কিছু নয়।
সারা দেশে প্রায় সব সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে এইসব পাশের দেশের জনগনকে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে।
এমনকি বাংলাদেশ ব্যাংকে।
ডা. মাসুদ আল মামুন বলেন,
অসুবিধা কি? এ বাংলার শিল্পীরা যদি ওই বাংলায় গান গাইতে পারে তবে ওই বাংলার ডাক্তারা এই বাংলায় একটু সেবা দিল আর কি। আমরা আমরাই তো।

 

কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালের বক্তব্য :

কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালের একজন কর্মকর্তা জানান, এ নিয়ে কোন ভুল বোঝাবুঝির অবকাশ নেই। এটা কোন সরকারি কর্মসূচি নয়। এই হাসপাতালের কর্মসূচিও নয়। এ নিয়ে অযথাই মিডিয়ায় নেতিবাচক প্রচার হচ্ছে। যা কাম্য নয়। এখানে নারায়ণা হেলথ তথ্য কেন্দ্র শুধু এই হাসপাতাল প্রেমিসেস ব্যবহার করছে। এটা সৌজন্য কর্ম। কলকাতা , বেঙ্গালুরুর সরকারি হাসপাতালেও বাংলাদেশের বিশিষ্ট চিকিৎসকরা লেকচার , শিক্ষা , ট্রেনিং, রোগী সেবার জন্য যাচ্ছেন। এটা সৌজন্য বিনিময় কর্মসূচি।
এ ধরণের সৌজন্য কর্মসূচি বিশ্বজুড়ে চালু। বাংলাদেশের অন্য বড় সরকারি হাসপাতালে যেমন বিএসএমএমইউ , ঢাকা চট্টগ্রাম সলিমুল্লাহ মেডিকেলে যখন সিঙ্গাপুর , লন্ডন আমেরিকার চিকিৎসক এসে সৌজন্য চিকিৎসা ও লেকচার দেন , তখন আমরা ধন্য হয়ে যাই। ড. ইউনূস সহ অনেকে বিদেশে লেকচার দেন , বিরাট অনারিয়াম পান। তখনও ধন্য হই। তখন এসব প্রচার কোথায় থাকে। শুধু ওপা র বাংলার কলকাতা , দক্ষিণ ভারতের বেঙ্গালুরুর চেন্নাইর ডাক্তার এসে সেবা বা লেকচার দিলে সব গেল সব গেল রব ওঠে। এটা ঠিক নয়। আমরা তাদের যেমন শেখাতে পারি। তেমনি তাদের কাছে শিখতেও পারি।

আপনার মতামত দিন:


ক্যাম্পাস এর জনপ্রিয়