Ameen Qudir

Published:
2017-02-03 08:36:18 BdST

ডাক্তারদের সম্ভ্রমহানির জবাব দিন শিক্ষামন্ত্রী


 


ডা. শিরিন সাবিহা তন্বী
______________________________·

মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী,
আর কত ভুল করলে আপনার এবং আপনার ষড়যন্ত্রকারী শিক্ষকদের বিচার করবেন?

বহু পুরনো একটা প্রবাদ বাক্য আজ ঘুরে ফিরে বার বার মনে আসছে!অল্প শোকে কাতর,,অধিক শোকে পাথর!!
ঘটনার আকস্মিকতায় সত্যি ই আজ আমি খানিক টা পাথর!


শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড আর শিক্ষক জাতির বিবেক!সেই জাতির অনেক বিবেকের মধ্য থেকেই কোন এক বিবেকহীন শিক্ষক ২রা ফেব্রুয়ারী,২০১৭ - বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত এস এস সি পরীক্ষার আবশ্যিক বিষয় বাংলা প্রশ্ন পত্রের একটি সৃজনশীল প্রশ্নে দেশের একটি অন্যতম সম্মানিত এবং গুরুত্বপূর্ন পেশার প্রতিটি পেশাজীবীকে হেনস্থা করে প্রশ্ন করেছেন।

"জাহেদ সাহেব একজন লোভী ডাক্তার।অভাব ও দারিদ্র বিমোচন করতে গিয়ে সব সময় অর্থের পেছনে ছুটতেন।একসময় গাড়ি-বাড়ি,ধন-সম্পদ সব কিছুর মালিক হন।তার চাওয়া পাওয়ার শেষ নেই।অর্থ উপার্জনই তার একমাত্র নেশা।"


এই একটি প্রশ্ন আজ অপেক্ষাকৃত নির্ঝঞ্জাট,শান্তিপ্রিয় এক বিশাল চিকিৎসক সমাজকে যেন হাই ভোল্টেজ শক দিয়ে দিল!দেশের কিছুসংখ্যক অসৎ শিক্ষিত এবং অশিক্ষিত সাংবাদিক গোষ্ঠী দীর্ঘদিন চিকিৎসা পেশাকে তাদের চাঁদাবাজি এবং দুর্নীতির হাতিয়ার করবার নোংরা উদ্দেশ্য নিয়ে হলুদ সাংবাদিকতা করে করে ডাক্তারদের ভিলেন রুপে সমাজে প্রতিষ্ঠিত করবার প্রাথমিক কাজটা অত্যন্ত যত্নের সাথে করেছেন।

এই বিষয়টি আমরা সব ডাক্তাররাই জানি।কিন্তু যে বিষয়টি অনেকের অজানা কিন্তু অষ্টম পে স্কেল সংশোধনের আন্দোলন করতে গিয়ে লেখালেখির এক পর্যায়ে আমি উপলব্ধি করেছিলাম,তা হলো কিছু সংখ্যক শিক্ষকদের প্রচন্ড বিদ্বেষ ডাক্তারদের প্রতি!বিষয়টি আমাকে ভাবিয়েছিল!আর আজ তার বিষবাষ্প কতদূর পৌছেছে,পুরো জাতি তা টের পেলাম!


শুনতে অবাক লাগলে ও সত্য আমি এই কিছু সংখ্যক অকৃতজ্ঞ,পাপিষ্ঠ,শিক্ষকদের ক্ষমা করতে পারছি না!আমি জানি,এই লেখা পড়ে সকলেই সত্যটা উপলব্ধি করবে!সমাজে বিত্তবান অনেকে আছেন।কিন্তু একজন শিক্ষক সে গৃহ শিক্ষক বা প্রতিষ্ঠানের ই হোক - একজন চিকিৎসক সন্তানকে সময় না দেয়ার অপরাধবোধ থেকে ই হোক বা সেনসেবেল জনগোষ্ঠী বলেই হোক একজন শিক্ষককে যতটা সম্মানের সাথে আপ্যায়ন করেন,সম্মানী দেন তা শিক্ষকরা অন্য কোন বিত্তবানদের থেকে আশাও করতে পারেন না!একজন চিকিৎসক কখনো সখনো নিজের কিংবা সন্তানদের শিক্ষকদের পুরো পরিবারের চিকিৎসা ব্যয় তার সাধ্যের বাইরে গিয়েও ফ্রি করানোর চেষ্টা করেন!আজকের এই ঘটনা ডাক্তারদের চোখে শিক্ষকদের সেই সম্মানের আসনটি মুহূর্তে ভুলুন্ঠিত করল!


মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীকে আমি ছোট করছি না।আমি যতদূর জানি এস এস সি পরীক্ষার মত গুরুত্বপূর্ন একটি পরীক্ষার প্রশ্ন কোন ক্লাসটেষ্ট এ একজন শিক্ষকের বিদ্বেষ ফলাও হয়নি।এই প্রশ্ন পত্র বহূধাপে ফিল্টার হয়েছে।অসংখ্য শিক্ষক এই পুরো প্রশ্ন তৈরীর প্রক্রিয়ার জড়িত।এবং আমি অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে বলছি,এটা একটা পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র!আপনারা শিক্ষক গন ডাক্তার হবার লোভ করবেন।হতে না পেরে সন্তানদের ডাক্তার বানাতে অস্থির হবেন!স্বয়ং শিক্ষামন্ত্রী ও ডাক্তারকেই জামাই করবেন!আবার ডাক্তারদের ই লোভী প্রমান করবার নীলনকশা আঁকবেন???

জাহেদ সাহেব লোভী ডাক্তার।এর পরের লাইনে কোন কাজটাতে তার লোভী নমুনা পেল তা লিখতে পারত!জাহেদ সাহেবের বন্ধুকে টেনে এনে যে জনহিতৈষী কাজের বর্ননা দিয়েছেন,সেখানেও লিখতে পারতেন,তার বন্ধু একজন উদার ডাক্তার!এতে বোঝা যেত যে উনারা কোমলমতি ছাত্রদের একটি পেশার ভাল মন্দ দুটো দিক বোঝাতে চেয়েছেন!কিন্তু না!এটা নির্জলা অন্যায়!একটি দেশের স্বাস্থ্যখাতকে সম্পূর্ন ধ্বংস এবং ঐ পেশার পেশাজীবীদের প্রশ্নের সম্মুখীন করতে শিক্ষকদের সম্মিলিত ষড়যন্ত্র এটা!
আমরা বাংলাদেশের লক্ষ ডাক্তার এবং মেডিকেল ছাত্র ছাত্রীবৃন্দ এই প্রশ্নের সঠিক তদন্ত করে প্রশ্নকর্তার এবং সংশ্লিষ্ট সকলের চাকুরী থেকে বরখাস্ত এবং কারাদন্ড চাই!!!
মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী,আর কত ভুল করবেন?বইয়ের ছাপায় ভুল!সাম্প্রদায়িকতা!জেন্ডার ডিসক্রেমিনেশন!প্রশ্নপত্রে একটি পেশাজীবীদের সম্ভ্রম হানি!!
এই ষড়যন্ত্রের কি বিচার করবেন?

________________________________

ডা. শিরিন সাবিহা তন্বী । দেশের জনপ্রিয় কলামিস্ট। মহৎপ্রতিভাবান কথাশিল্পী। মেডিকেল অফিসার, শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল।

আপনার মতামত দিন:


ক্যাম্পাস এর জনপ্রিয়