Ameen Qudir

Published:
2019-06-15 19:48:31 BdST

বরিশালের শেরে বাংলা মেডিকেল হাসপাতালকে আমূল বদলে দিলেন ডাক্তার পরিচালক


 

বরিশাল থেকে সংবাদদাতা
___________________

হাজারো অভিযোগের কেন্দ্র শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ  হাসপাতালকে কাজের মাধ্যমে বদলে দিলেন একজন ডাক্তার পরিচালক।

ভুক্তভোগীদের বক্তব্য, প্রতিদিন হাজারো রোগী তাদের স্বজনদের নিয়ে বিভিন্ন জেলা থেকে এখানের আউটডোরে ডাক্তার দেখাতে আসে।কিন্তু মাত্র কদিন আগেও বরিশালের বাইরের রোগীদের এখানে ডাক্তার দেখাতে দীর্ঘ লাইন পেরিয়ে একদিনে ডাক্তার দেখাতে পারলেও প্রয়োজনীয় পরীক্ষা নীরিক্ষা শেষে ওইদিনই আর ডাক্তারের পরামর্শ পাওয়া যেতো না। এজন্য দায়ী ছিল সেবা প্রদানের সময়ে প্রাইভেট হাসপাতালের দালালদের প্রবেশ এবং অনর্থক দীর্ঘ আলোচনা। সেই জায়গা থেকে হাসপাতাল প্রশাসনের একটি সুন্দর উদ্যোগ দূরবর্তী জেলা থেকে আগত রোগীদের স্বস্তির কারণ হয়েছে। প্রশাসন প্রতিদিন সকাল ৮ টা থেকে ১ টা পর্যন্ত হাসপাতাল কম্পাউন্ডে প্রাইভেট হাসপাতালের দালালদের উপস্থিতির ওপরে নিষেধাজ্ঞা জারির পর আগের চেয়ে অনেক বেশি সময় ডাক্তারেরা রোগী দেখার সুযোগ পাচ্ছেন। তার ফলে এখন সাধারণ রোগীরা ডাক্তার দেখিয়ে সেদিনই প্রয়োজনীয় পরীক্ষা সম্পন্ন করে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে পারছেন।

প্রাইভেট হাসপাতালের দালালরা চিকিৎসা দেবার সময়টাতে হাসপাতালে ভীড় করতো। তারা প্রতিদিন নিরীহ ও গরীব অনেক রোগীকে ভুল বুঝিয়ে শহরের অন্যান্য প্রাইভেট ক্লিনিক গুলোতে পাঠাতো কমিশনের বিনিময়ে।
এখন ঠিক বিপরীত চিত্র শেবাচিম হাসপাতালে। নেই কোন অভিযোগ। পুরো বদলে গেছে হাসপাতাল। এই বদলের নায়ক একজন চিকিৎসক । তার দক্ষ কর্মব্যবস্থাপনায় ঢেলে সাজানো হয়েছে শেবাচিম। তিনি হলেন,
হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ মোঃ বাকির হোসেন । তিনি মিডিয়াকে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনসাধারনের সুষ্ঠু এবং উন্নত চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতকরনে দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ, তারই ধারাবাহিকতায় যুগোপযোগী চিকিৎসাসেবা এবং হাসপাতালের শৃঙ্খলা রক্ষায় হাসপাতালের সকল কর্মকর্তা কর্মচারী একযোগে কাজ করছেন, কিন্তু বাধা হয়ে দাড়াচ্ছেন নানা চক্র ও প্রাইভেট হাসপাতালের দালাল। তারা চিকিৎসা প্রদানের সময়টাতে হাসপাতালে ভীড় করে সবাইকে বিরক্ত করে। তাই সকাল ৮ টা থেকে ১ টা পর্যন্ত আমি হাসপাতালে সেসব চক্রের অযথা ঘোরাঘুরির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছি। নতুন এই নিয়মকে সাধুবাদ জানিয়েছেন চিকিৎসক ও সাধারণ রোগীরা।
হাসপাতালের রক্ত পরিসঞ্চালন বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডাঃ শিরিন সাবিহা তন্বী বলেন, ” জনগণের দুর্ভোগ লাঘব করতে বর্তমান সিদ্ধান্তটি প্রশংসার। নির্ধারিত কর্মঘণ্টায় আমরা আগের চেয়েও বেশি রোগীকে সেবা দিতে পারবো।

আপনার মতামত দিন:


ক্যাম্পাস এর জনপ্রিয়