ডেস্ক

Published:
2021-08-02 18:42:52 BdST

বিএসএমএমইউর নতুন উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমদ দায়িত্ব নিলেন


 

ডেস্ক 


বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন দেশ বরেণ্য জেনারেল, ল্যাপারোস্কোপিক ও ক্যান্সার সার্জন অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্জারি অনুষদের ডীন ও জেনারেল সার্জারি বিভাগের সম্মানিত শিক্ষক অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমদ (Prof Dr. Saif Uddin Ahmed)।

ডাক্তার প্রতিদিন সম্পাদক ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোরোগ বিভাগের প্রফেসর ডা সুলতানা আলগিন এক শুভেচ্ছা বার্তায় নতুন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ডা ছয়েফ উদ্দিনকে অভিনন্দন জানান।

 

আজ সোমবার ২ আগস্ট ২০২১ইং তারিখে তিনি উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) এর দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর ও বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি জনাব মোঃ আব্দুল হামিদ তাঁকে এই নিয়োগ দেন। প্রো-ভাইস-চ্যান্সেলর হিসেবে তাঁর নিযুক্তির মেয়াদ হবে ০৩ (তিন) বছর । দায়িত্বভার গ্রহণের পর নবনিযুক্ত উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমদ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের বি ব্লকে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে ও ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেছেন।


অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমদ ১৯৬২ সালের ১লা জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর গ্রামের বাড়ি মৌলবীবাজার জেলায়। তাঁর পিতার নাম মরহুম ছমির উদ্দীন আহমদ। মাতার নাম সায়রা আহমেদ। সহধর্মিনী হলেন হাবিবা আক্তার। বরেণ্য এই চিকিৎসক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন সিন্ডিকেট সদস্য হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।
স্বনামধন্য চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমদ ১৯৮৫ সালে সিলেট মেডিক্যাল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাশ করেন। ২০০০ সালে তিনি বিসিপিএস থেকে এফসিপিএস (সার্জারি) ডিগ্রী অর্জন করেন। পরবর্তীতে তিনি যুক্তরাজ্যের রয়েল কলেজ অফ গ্লাসগো থেকে এফআরসিএস এবং যুক্তরাষ্ট্র থেকে এফএসিএস ডিগ্রী অর্জন করেন। তাঁর ৯টি গবেষণাপত্র ও ৪১টি নিবন্ধ দেশি বিদেশী জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। তিনি ১৯৮৬ সালে সহকারী সার্জন হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা রয়েছে ২০ বছর। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ৭১টি সেমিনারে অংশগ্রহণ করেছেন। তিনি ১৯৮৪-৮৫ সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সিলেট মেডিক্যাল কলেজ এর সভাপতি এবং সিলেট ইউথ জেসিস এর সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) এর প্রতিষ্ঠাতা ক্রীড়া সম্পাদক। বিএমএ কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাচিত কার্যকরী সদস্য ছিলেন এবং তিনি ২০০৩ সালে স্বাচিপ এর নির্বাচন কমিশনার ছিলেন এবং বিএমএ জার্নালের প্রাক্তন সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি সোসাইটি অফ ল্যাপারোসকপিক সার্জারি বাংলাদেশ এর বর্তমান কোষাধ্যক্ষ এবং এ্যাসোসিয়েশন অব ব্রেস্ট সার্জনস অব বাংলাদেশ (এবিএসবি) এর বর্তমান সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

সম্পাদনা: সহকারী অধ্যাপক ডা. এস এম ইয়ার ই মাহাবুব। 

আপনার মতামত দিন:


বিএসএমএমইউ এর জনপ্রিয়