Ameen Qudir

Published:
2019-09-15 12:04:04 BdST

চিকিৎসা সেবায় লাইফ টাইম অ্যাওয়ার্ড পাওয়ায় অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়াকে বিপুল অভিনন্দন


ডেস্ক
_____________________

উপমহাদেশের চিকিৎসকদের শ্রেষ্ঠত্বের স্বীকৃতি ”অধ্যাপক পিএস রামানি লাইফ টাইম অ্যাওয়ার্ড-”এ সম্মানিত হওয়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়াকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দনে অভিষিক্ত করলো
বাংলাদেশের মনোরোগ চিকিৎসকদের অন্যতম শীর্ষ মঞ্চ এসোসিয়েশন অব থেরাপিউটিক কাউন্সেলরস বাংলাদেশ :এটিসিবি।
বাংলাদেশের শীর্ষমনোরোগ চিকিৎসক, থেরাপিউটিক কাউন্সেলরস ও মনোরোগসেবীদের সংগঠন এসোসিয়েশন অব থেরাপিউটিক কাউন্সেলরস বাংলাদেশ :এটিসিবি র ৯ম বার্ষিক মহাসম্মিলনীর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ডা. সুলতানা আলগিন উদ্দীপনাময় বক্তব্যে অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়াকে বাংলাদেশের সকল মনোরোগ চিকিৎসক, বিশেষজ্ঞ , মনোবিজ্ঞানী , থেরাপিউটিক কাউন্সেলরদের পক্ষ থেকে বিপুল ভাবে অভিনন্দিত করেন ।

এসময় বিএসএমএমইউর মনোরোগ বিদ্যার জ্যেষ্ঠ সহযোগী অধ্যাপক, ওসিডি কনসালটেন্ট এবং এটিসিবির সাধারণ সম্পাদক ডা. সুলতানা আলগিন তার আবেগঘন বক্তব্যে বলেন,
এটা আমাদের জন্য অত্যন্ত গৌরবের যে , শুধু বাংলাদেশই নয়, উপমহাদেশের একজন শ্রেষ্ঠ নিউরোসার্জনকে আমরা মহতী চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান বিএসএমএমইউর মাননীয় উপাচার্য হিসেবে পেয়েছি। সম্প্রতি তিনি দক্ষিণ ভারতের কোচিনে উপমহাদেশের চিকিৎসকদের শ্রেষ্ঠত্বের স্বীকৃতি ”অধ্যাপক পিএস রামানি লাইফ টাইম অ্যাওয়ার্ড-”এ সম্মানিত হয়েছেন।
মেডিকেল সায়েন্সসহ দেশ-বিদেশে নিউরোসার্জারি বিষয়ক চিকিৎসাসেবা, গবেষণা ও শিক্ষকতায় অসামান্য অবদানের জন্য তিনি গত আগস্ট মাসে জগৎখ্যাত এই সম্মাননা পান। এর আগে জুলাইয়ে লন্ডনে রয়্যাল কলেজ অফ ফিজিশিয়ান্স-এর ফেলোশীপে সম্মানিত হন।
আজকের মঞ্চ থেকে এবং আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে অধ্যাপক কনককান্তি বড়ুয়া স্যারকে এজন্য আমরা ফুলেল অভিনন্দন জানাই।
উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি আরও বলেন ,
এসোসিয়েশন অব থেরাপিউটিক কাউন্সেলরস অব বাংলাদেশ এটিসিবি-র পক্ষ থেকে সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই।
এটিসিবি-র নবম বার্ষিক সাধারণ সভা ও বৈজ্ঞানিক সভার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ।
আজকের উদ্বোধন অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপউপার্চায অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার, আজকের অনুষ্ঠানের গেস্ট অব অনার, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব মেন্টাল হেলথ-এর পরিচালক অধ্যাপক ডা. মোহিত কামাল, বাংলাদেশের মনোরোগ চিকিৎসার প্রাণ অধ্যাপক ডা. এম এস আই মল্লিক , বিএসএমএমইউর মনোরোগ বিদ্যা বিভাগের চেয়ার ম্যান অধ্যাপক ডা. সালাউদ্দিন কাউসার বিপ্লব,আজকের অনুষ্ঠানের সম্মানিত চেয়ার পারসন, বাংলাদেশের আধুনিক মনোরোগ চিকিৎসার পথিকৃৎ অগ্রণী, অধ্যাপক ডা. ঝুনু শামসুন নাহার সকলের প্রতি এটিসিবির- পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।
এবারের প্রতিপাদ্য“Psychological Management of OCD”। . ওসিডি রোগের ব্যাপকতা ও ভয়াবহতা অকল্পনীয়। আনন্দের সাথে বলতে চাই আজ এটিসিবি সাইকিয়াট্রিস্ট, সাইকোলজিষ্ট, সোশালওয়ার্কার সবাইকে নিয়ে এরোগের চিকিৎসাক্ষেত্রে একটি কার্যকর প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করছে। এর কৃতিত্ব আমাদের সকলের । কিন্তু থেমে থাকলে চলবে না । সারাদেশের নানা পর্যায়ের ছড়িয়ে থাকা ওসিডি রোগীদের কাছে চিকিৎসা ও পরামর্শ পৌছে দিতে আমরা ব্রতী।
নানা চড়াই উৎরাই পেরিয়ে এটিসিবি সকলের আন্তরিক সহযোগিতা , ভালবাসায় আজকের অবস্থানে এসে পৌঁছেছে। আমাদের সাধ্য কম; কিন্তু ভুক্তভোগী মানুষের কাছে সেবা ও যত্নপৌছে দেবারস্বপ্ন অপরিসীম। আমাদের সকল স্তরের করমীর উদ্যম অফুরন্ত । এই উদ্যম ও উদ্দীপনাকে করমে রুপান্তরের কাজে আমাদের সুযোগ্য নেতা অধ্যাপক ঝুনু শামসুন নাহারের নেতৃত্বে আমরা সকলেই সদা তৎপর।
এই উদ্যোগে , আমাদের সেবাস্বপ্নের সফলায়নে দেশের ¯স্বাস্থ্য সেক্টরের উপস্থিত সুযোগ্য নেতৃবৃন্দর সহযোগিতা চাই। তাদের আশীরবাদ চাই। চাই সূধীজনের একান্ত সহযোগিতা। সকলের শুভ কামনা ও সহযোগিতার মেলবন্ধনেই আমাদের কাজ ও স্বপ্ন নেবে বাস্তব রুপ।
তাদের সকলের পৃষ্ঠপোষকতা আমাদের কাক্সিখত লক্ষ্যে নিয়ে যাবে বলে আমি গভীর ভাবে বিশ্বাস করি।
আজকের সম্মেলন আয়োজনে এটিসিবির সকল সদস্য,কর্মী,পৃষ্ঠপোষকগন আন্তরিকতার সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করেছেন; সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। আগামী দিনগুলোতে তাদের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে; সবাইকে আমরা এটিসিবির উত্তরোত্তর অগ্রযাত্রায় পাশে পাব, এই প্রত্যাশা করছি। এবং আমাদের পরের অনুষ্ঠানমালায় সপ্রাণ অংশগ্রহন ও সহযোগিতা কামনা করছি।

বিভিন্ন পর্বে সহযোগিতা করে
জেনারেল ফার্মাসিউটিক্যালস , ইনসেপটাফার্মাসিউটিক্যালস , বীকন পয়েন্ট, মনন হাসপাতাল। তাদেরকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।

আপনার মতামত দিন:


বিএসএমএমইউ এর জনপ্রিয়