Ameen Qudir

Published:
2019-06-18 13:25:41 BdST

অনারারি চিকিৎসকদের ভাতা দেয়ার সিদ্ধান্ত



বিএসএমএমইউ সংবাদদাতা
__________________________

অনারারী মেডিকেল অফিসার : বাংলাদেশের মেডিকেল পেশার নির্মমতম শোষণ। ডাক্তার প্রতিদিনে এ নিয়ে অনেক লেখা প্রকাশ হয়েছে। অবশেষে এই দাসযুগের অবসান হচ্ছে।
বিএসএমএমইউসহ বাংলাদেশের সরকারি মেডিকেল কলেজের হাসপাতাল ব্যবস্থাপনায় ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান হচ্ছে।
অনারারি চিকিৎসকদের ভাতা দেয়ার নীতিগত সিদ্ধান্ত চুড়ান্ত করা হয়েছে। এখন থেকে অনারারী চিকিৎসকরা আর অবৈতনিক থাকবেন না। তারাও পাবেন শ্রমের সঠিক মূল্য। দীর্ঘ দিন ধরে অনলাইন পত্রিকা ডাক্তার প্রতিদিন সহ মেডিকেল পেজগুলোতে এ নিয়ে অসংখ্য মানবিক প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছে। কোন কোন লেখা লাখো শেয়ার হয়েছে । এসবই ছিল ভুক্তভোগী ডাক্তারদের যন্ত্রণার বহি:প্রকাশ। অবশেষে তা অবসান ঘটছে। এ বিষয়ে সরকার থেকে অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় বিএসএমএমইউর একজন শীর্ষ পদাধিকারী বলেন, বলেন, এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি পদক্ষেপ। আমরা গত দুই বছর ধরে এটা নিয়ে কাজ করে আসছি। আমি যখন বিসিপিএস এ ছিলাম, তখন সেক্রেটারিসহ আরও অনেককে নিয়ে অনারারী ট্রেইনিদের ভাতার ব্যাপারে স্বাস্থ্য সচিবের সাথে বসেছিলাম। সেখানে তিনি এ ব্যাপারে একমত পোষণ করেছিলেন।

পরবর্তীতে এটা নিয়ে বেশ কিছু বৈঠক হয়েছে। স্বাস্থ্য সচিবসহ সবাই এ বিষয়টির ব্যাপারে ইতিবাচক ধারণা পোষণ করেন। যদি অনারারি চিকিৎসকদের জন্য ভাতার ব্যবস্থা করা হয়, তাহলে তাদের দায়বদ্ধতা আরও বাড়বে এবং তাদের কাছ থেকে আরও সেবা পাওয়া যাবে। এমনকি এসব চিকিৎসকদের ঐকান্তিকতা ও উৎসাহ আরও বাড়বে।

অনারারি চিকিৎসকদের ভাতা কেমন হবে ! জানা যায়: এই ভাতাটা নির্ধারিত হয়েছিলো ২০ হাজার টাকা। ওই কর্মকর্তা বলেন, যদিও মন্ত্রণালয়ের কেউ কেউ এটাকে আরও কমাতে চেয়েছিল, তারপর আমরা যখন ব্যাপারগুলো বুঝিয়ে বললাম তখন সচিব মহোদয় আমাদের সাথে একমত পোষণ করে ভাতা বিশ হাজার টাকা নির্ধারন করেন।

বিসিপিএসের সঙ্গে যুক্ত একজন শীর্ষ অধ্যাপক জানান, সোমবারের মিটিংয়ে এ ব্যাপারে প্রস্তাব করা হয়েছে। শীঘ্রই এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে। তখন বিস্তারিতভাবে সবাইকে জানাবো। তিনি বিষয়টি নিশ্চিত বলে জানান।

আপনার মতামত দিন:


বিএসএমএমইউ এর জনপ্রিয়