ডা শাহাদাত হোসেন

Published:
2022-09-20 11:10:20 BdST

বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের দক্ষিণ এশিয়া জয়ে চিকিৎসক লেখকদের প্রতিক্রিয়া



ডেস্ক
________________________

বাংলাদেশের প্রমীলা ফুটবল দল দক্ষিণ এশিয়ার শিরোপা জিতে নেওয়ায় বিজয়-আনন্দ উদযাপন হচ্ছে দেশ জুড়ে। এতে সামিল হয়েছেন অগ্রসর চিকিৎসক লেখক ছড়াকার কবিগন।

বাংলাদেশের স্বাস্থ্যাচার্য
অধ্যাপক ডা. শুভাগত চৌধুরী নারীর জয়কে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন , নারী শক্তির উত্থান
মুক্ত করো ভয় আপনা মাঝে শক্তি ধরো
নিজেরে করো জয়।

অধ্যাপক ডা. কবি ভাস্কর সাহা বলেন , জেন্ডার ডিসক্রিমিনেট করে লাভ নাই।
কোন রক্ষনশীলতাই প্রগতি অগ্রগতি থামিয়ে রাখতে পারে নাই। ভবিষ্যতেও পারবে না।
নারী পুরুষের সমান সুযোগ তৈরি করে দেয়া সমাজ ও রাষ্ট্রের দ্বায়িত্ব।
প্রতিটি পরিবারের উচিত কন্যা শিশুর প্রতি সুবিচার করা।
শুভ সকাল
সালাম শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলকে অসম্ভবকে ছিনিয়ে আনার জন্য।

বিশিষ্ট চক্ষু চিকিৎসক অধ্যাপক সালেহউদ্দিন বলেন , আসুন আমরা বাংলাদেশ নারী দলকে বিপুলভাবে অভিনন্দিত করি।

কষ্টে অনেক কেঁদেছ মা, আনন্দে আজ কাঁদো! শীর্ষক ছড়া-আলেখ্যে ছড়াকার ডা.
রোমেন রায়হান লিখেছেন ,
আমি তোমার উপোস থাকা দুষ্টু মেয়ে, মাগো!
দারিদ্র‍্য আর অনটনে মাথা নোয়াই না গো।
লড়াই করা স্বভাব আমার, লড়তে ভালোবাসি
মাগো, তোমার হাসি আমার বাংলাদেশের হাসি।
মাগো, দেখ, তোমার মেয়ে ক্ষুধার জ্বালা ভুলে
ট্রফির সাথে অনেক উঁচুয় দেশ ধরেছে তুলে!
পূরণ করে নিয়েছে সে আকাশ ছোঁয়ার সাধও
কষ্টে অনেক কেঁদেছ মা, আনন্দে আজ কাঁদো!
১৯/০৯/২০২২
অভিনন্দন বাংলা মায়ের দুরন্ত মেয়েদেরকে
তোমরাই আমাদের আনন্দের উপলক্ষ

------
কার্টুন আর নানারকম পোস্ট দিয়ে মৌলবাদী

গোষ্ঠীকে উস্কালে সেটা হবে পাগলাকে সাঁকো

নাড়ানোর কথা মনে করিয়ে দেওয়া- ডা. উজ্জ্বল

লেখক সঙ্গীত শিল্পী রক্তরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. গুলজার হোসেন উজ্জ্বল বলেন ,
ফুটবলে মেয়েদের যে বিজয় সেটি আর সব খেলার চেয়ে একটু আলাদা। মাঠের প্রতিপক্ষর বাইরেও তাদেরকে লড়তে হয় রক্ষণশীল সমাজ, পরিবার আর নানারকম জাজমেন্টের বিরুদ্ধে। কি ভয়াবহ বাধাবিপত্তির ভেতর দিয়ে তারা ফুটবলার হয়ে উঠেছে সেটা হয়ত আমরা অনেকে ভাবতেও পারছিনা। ফলে এই বিজয় মাঠের বাইরেও নানারকম প্রতিবন্ধকের প্রতিশোধ।
তবে এই বিজয়ই তাদের চূড়ান্ত বিজয় না। এখানেই শেষ হয়ে যাবে বা ধরাশায়ী হয়ে যাবে রক্ষণশীল সমাজ তাও নয়। নতুন করে তারা আবারো আক্রান্ত হবে পরিবার ও সমাজের কাছে। সেই অনাগত যুদ্ধে তারা মনোবল কতখানি ধরে রাখতে পারবে তা জানিনা।
তবে প্রগতিশীল সমাজ যেভাবে এই উসিলায় মৌলবাদীদের বিরুদ্ধে একহাত নিচ্ছে তাতে আমার আশংকা হচ্ছে মেয়েগুলির বিপদ একটু বাড়বেই। মেয়েগুলি জবাব দিয়েছে কাজের ভেতর দিয়ে। এই জবাব খুব কঠিন। লক্ষণীয় যে রক্ষণশীল সমাজ এই বিজয়ে একদম চুপসে গেছে৷
কিন্তু কার্টুন আর নানারকম পোস্ট দিয়ে মৌলবাদী গোষ্ঠীকে উস্কালে সেটা হবে পাগলাকে সাঁকো নাড়ানোর কথা মনে করিয়ে দেওয়া৷ এর আল্টিমেট সাফারার হবে আমাদের খেলোয়াড় মেয়েগুলিই। কে জানে এরা কেউ কেউ হয়ত সারাজীবন দিয়েই এই সাহস আর শৃংখল ভাংগার মূল্য দিয়ে যাবে৷

 

বিশিষ্ট লেখক ডা. সুকুমার সুর রায় লিখেছেন , ছেলে এবং মেয়ের মধ্যে খুব বেশি পার্থক্য নেই এটা প্রমাণ হল। নানান প্রতিকূলতা ও বৈষম্যের শিকার হয়েও আমাদের সোনার মেয়েরা দেশের জন্য বয়ে এনেছে অভাবনীয় সম্মান। ওদেরকে প্রাণঢালা অভিনন্দন।
সবাই যখন নেপালে আমাদের নারী ফুটবল টিমের চ্যাম্পিয়ন হওয়া নিয়ে উচ্ছ্বসিত তখন আবুধাবিতে আমাদের নারী ক্রিকেট টিম স্কটল্যান্ডকে উড়িয়ে দিয়েছে!
নারীরাই আমাদের ভরসা। নারীবিদ্বেষীদের প্রতি সমবেদনা।

ডাক্তার প্রতিদিন সম্পাদক ও মনোরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. সুলতানা আলগিন লিখেছেন, ছবি কথা বলে,
বিশ্ববেহায়াদের কান দিলো ম'লে।

ছড়াকার চিকিৎসক ব্রত রায় বলেন, বুঝেছেন তো গোলগুলো কাদের দিয়েছে?
গোল দিয়েছে ভারত, নেপাল, পাকিস্তানের জালে
গোল না ওটা, চড় ছিল ঠিক অনেক লোকের গালে।#

 

আপনার মতামত দিন:


মেডিক্যাল ক্যাম্প এর জনপ্রিয়