ডা শাহাদাত হোসেন

Published:
2022-08-11 13:29:23 BdST

চিকিৎসা শিক্ষায় মানবদেহ এবং মানব কংকালের ব্যবহার প্রসঙ্গে ৬টি জরুরি প্রস্তাব


ডা সুরেশ তুলসান, কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ

 

ডা সুরেশ তুলসান
____________________________

স্কুলে পড়াকালীন সময়ের কথা, আমদের স্কুলের মুল ভবনের পিছনে ছিল বিজ্ঞান ভবন। ভবনটি বেশ পুরনো, রাজকীয় ডিজাইনের।
সংস্কারের অভাবে জীর্ণদশা। থমথমে ভুতুড়ে পরিবেশ।
শুধুমাত্র ব্যাবহারিক ক্লাস বাদে অন্যান্য সময়ে ওখানে কেহই যেত না।
আমরা বাচ্চাদেরতো যাওয়ার তো প্রশ্নই উঠেনা, অবশ্য সংগত কারণেই।
আমার জানতাম ওটাকে ভুতের আবাসস্থল হিসাবেই।
কারণ ওখানে বিজ্ঞান গবেষণাগারে ছিল একটি মানুষের কংকাল।
ওটা নাকি ছিলো একটা নারীর কংকাল, যে নাকি ভরদুপুরে এবং সন্ধ্যার পরে ভুতনি বা পেত্নী হয়ে গবেষণাগারের আশেপাশে ঘুরে বেড়ায় এবং সুযোগমতো বাগে পেলে যে কারও বিশেষ করে বাচ্চাদের ঘাড় মটকে রক্ত চুষে খেতেও দ্বিধা করে না।
মিথ্যা বলবো না, ছোট ক্লাসে থাকাকালীন সময়ে দরজার ফাঁক দিয়ে সাহসী ডানপিটে বন্ধুদের পাল্লায় পড়ে সেই নারী কংকালের সৌম্যমূর্তি দেখার দুঃসাহস আমারও দুই একবার হয়েছে। পরে বড় ক্লাসে খুব কাছথেকে তার হাড় গুলো ছুয়ে দেখেছি বার কয়েক।
একবারতো কয়েকজন সহপাঠীরা মিলে গুনে গুনে মিলিয়ে দেখার চেষ্টা করেছি হাড়ের সংখ্যা ২০৬ টা মিলে যায় কিনা।
একদিন ব্যাবহারিক ক্লাসে ডেমোনেস্ট্রেটর স্যারকে সাহস করে কংকাল রুপী সেই নারীর নাম ঠিকানা পরিচয় জিজ্ঞাসা করে সহপাঠীদের ব্যাঙ্গ বিদ্রুপের শিকারও হয়েছি।
পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজে ১ম বর্ষে ভর্তি হয়ে জানতে পারলাম প্রত্যেক শিক্ষার্থীদেরকে পড়াশোনার জন্য ব্যাক্তিগত এক সেট করে মানব কংকাল কিনতে হয়।
অনেকেই আবার কয়েকজন মিলে শেয়ারে একসেট কংকাল কিনে থাকে।
হোস্টেলের দেয়ালে সাঁটা "এক সেট বোন্ স বিক্রি হবে" মার্কা বিজ্ঞাপন দেখে আমিও কিনেছিলাম একসেট।
অবশ্যই একা একা।
টাকার প্রাচুর্য ছিলো এমনটা নয়,পার্টনার পেয়েছিলাম না তাই বাধ্য হয়েই।
তবে এতটুকু বলতে পারি আমার কংকালের সেটটিই ছিলো সেরা। দেখে বুঝেছিলাম হাড় গুলো ছিলো একজন সবল পেশীবহুল পুরুষ মানুষের।
কি মোটা মোটা আর শক্ত শক্ত হাত এবং পায়ের লম্বালম্বা হাড় গুলো দেখে হাড়ের মালিকের একটা চেহারা কল্পনা করার চেষ্টা করেছি অনেকবার।
এনাটমির ডিসেকশন হলে ফরমালিনে ভেজানো আস্ত আস্ত মানুষের শবদেহের ব্যাবচ্ছেদ বা মানুষের কর্তিত বিভিন্ন অঙ্গপ্রত্যঙ্গের ব্যবহার ছিলো একেবারেই স্বাভাবিক ব্যাপার।
তবে নিজেদের কোন স্বজনের মৃতদেহকে বা দেহাবশেষ এমনকি দেহভষ্ম কে আমরা যতখানি সন্মান করেছি তার ছিটেফোঁটা সন্মানও কোনদিন কোন মেডিকেল ছাত্রদের করতে দেখিনি এই মৃতদেহদের প্রতি।
মেডিকেলের হোস্টেলে দেখেছি খাটের বা টেবিলের উপরে বা নিচে অথবা জানালার ধারে অযত্ন অবহেলায় হাড় গুলো পড়ে থাকতে। কেউ কেউ হয়তো একটু যত্নে রেখেছেন তবে সেটা মুল্য বিবেচনায়, সন্মান বিবেচনায় না।
অনেকে আবার এক ধাপ উপরে, এদেরই কাউকে দেখেছি মানুষের মাথার খুলিকে ছোটখাটো নিত্য প্রয়োজনীয় কিছু রাখার জন্য পাত্র হিসাবে ব্যাবহার করতে। আর ডিসেকশন হলে ক্লাস শেষে মৃতদেহ গুলো টেবিলে এবং দেহের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ গুলো ট্রেতে পড়ে থাকে অযত্নে অবহেলায়।
এতো গেল মানবিক ভাবনা সমূহ। এবার আইনগত দিকগুলোর দিকে দৃষ্টিপাত করি একটু। এক একটি মৃতদেহ (বা মানব কংকাল, বা মানব অঙ্গপ্রত্যঙ্গ) মানেই এক একটি মৃত্যু।
একটি মৃত্যু মানেই হলো একজন মানুষ, তার একটি নির্দিষ্ট পরিবার, পরিচয়, মৃত্যুর কারণ। স্বাভাবিক মৃত্যু, নাকি দুর্ঘটনা, আত্মহত্যা, অপহরণ, খুন, গুম, ধর্ষণ এমন নানান প্রশ্ন।
অনেকবারই ভেবেছি আমার পড়ার টেবিলে থাকা মানব কংকালটি বা ডিসেকশন হলের সেই মৃতদেহগুলো বা অঙ্গপ্রত্যঙ্গ সমূহের নাম পরিচয় কি, কিভাবে মৃত্যুবরণ করলেন, তাদের মৃত্যুর খবর আদৌ তাদের পরিবার পেয়েছিলেন কিনা, আদৌ কি উনাদের কোন শেষকৃত্য হয়েছিল কিনা, উনাদের মৃতদের হতে অতি সযতনে হাড়গুলো কে কিভাবে বের করেছিলেন ইত্যাদি ইত্যাদি।
আমরা যখন ছাত্র ছিলাম তখন এক সেট মানব কংকালের দাম ছিলো মাত্র কয়েকশো টাকা। সামগ্রিক দ্রব্যমূল্যের বৃদ্ধি, টাকার অবমূল্যায়ন, মানব কংকাল বেচাকেনার কোন বৈধ নীতিমালার অভাব, মেডিকেল কলেজের সংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে দাম এখন আকাশছোঁয়া। ৫০ হাজারেও এখন ভালো একসেট মানব কংকাল পাওয়া দূঃস্কর।
অনেক সময়ই কবর থেকে মানব কংকাল চুরি এবং মানব কংকাল চোরাচালানের খবর পাওয়া যায় । চোরাচালানের কংকাল সমূহের উৎস সম্পর্কিত কোন তথ্য কখনোই কোন খবরে পেয়েছি বলে মনে পড়ে না।
কখনো শুনিনি এই কংকাল তৈরির জন্য ব্যবহৃত এই মৃতদেহগুলোর খুন এবং গুমের কারণে কাউকে কখনো কোন প্রশ্ন করা বা শাস্তি দেয়া হয়েছে কিনা। চিকিৎসা শিক্ষা সহ অন্যান্য যে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা গবেষণাগারে যে সমস্ত মানব কংকাল সংরক্ষিত আছে বা ব্যাবহৃত হচ্ছে সেই সকল কংকাল সমূহের উৎস সম্পর্কিত কোন তথ্য কি আদৌ আছে কোথাও। কার কাছ থেকে কেনা হয়েছে, আছে কোন খরিদা রশিদ ?
এই কংকাল গুলো তো আমার আপনার কোন হারিয়ে যাওয়া আপনজনেরও তো হতে পারতো ??!!
আমাদের দেশে চিকিৎসা শাস্রে বা গবেষণার উদ্দেশ্যে স্বেচ্ছায় নিজ মৃতদেহকে দান করার খবর আমরা পাই তবে তা কালেভদ্রে। প্রতি দশকে হয়তো হাতে গোনা কয়েকটা। বাদবাকি আসে বিভিন্ন দুর্ঘটনায় অন্য কোন কারণে সরকারি হাসপাতালে মৃত বেওয়ারিশ মৃতদেহ গুলো।
চিকিৎসা শাস্ত্রে মানব কংকাল বা মানব শবদেহ ব্যবহারের বিপক্ষে আমি নই, তবে এবিষয়ে একটি সুস্পষ্ট নীতিমালা থাকতে হবে এবং তা পালন করতে হবে।
প্রস্তাবনা সমূহঃ-
১.প্রত্যেকটি মৃতদেহ বা কংকালের জন্য উনার রাষ্ট্রীয় পরিচয় এবং NID নাম্বার, মৃত্যুর দিন তারিখ কারণ এবং মৃতদেহ হস্তান্তর প্রক্রিয়ার উল্লেখ সহ একটি নির্দিষ্ট নম্বরের উল্লেখ সহ সনাক্তকরণ পত্র বা পরিচয় পত্র থাকতে হবে।
২.অজ্ঞাত ব্যাক্তির ক্ষেত্রে মৃতদেহ প্রাপ্তিস্থান বা দুর্ঘটনার স্থান তারিখ উল্লেখ এবং মৃতদেহ প্রাপ্তি কালে উনার ছবি মৃতদের সনাক্তকরণ পত্রে সংযুক্ত থাকতে হবে। এবং অবশ্যই একটি মৃতদেহ সনাক্তকরণ নাম্বার দিতে হবে।
৩.মৃতদের বা কংকাল যে ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কাছে থাকবে তিনি এই সনাক্তকরণ বা পরিচয় পত্রের হেফাজত করবেন।
৪.মানব কংকাল বেচাকেনার জন্য একটি নির্দিষ্ট নীতিমালা থাকতে হবে - যেমন কে বা কারা বিক্রি করতে পারবেন। ব্যাক্তি পর্যায়ে ক্রয় বিক্রয় সংরক্ষণ করা যাবে কিনা। ব্যাক্তি পর্যায়ে সংরক্ষণের ক্ষেত্রে কোথায় কোথায় ব্যবহার করা যাবে। ছাত্রছাত্রীদের ক্ষেত্রে হোস্টেলে রাখা যাবে কিনা অথবা ছুটির দিনে পড়াশোনার জন্য বাড়িতে নিতে পারবেন কিনা ইত্যাদি ইত্যাদি।
৫.প্রতিবার হাত বদলের ক্ষেত্রে মৃতদেহ সনাক্তকরণ নাম্বারের উল্লেখ সহ নির্দিষ্ট ফরমে চুক্তিপত্র সম্পাদন করতে হবে।
৬.চিকিৎসা শিক্ষার সাথে সম্পৃক্ত সকল শিক্ষার্থী, শিক্ষক এবং লোকজন দের উচিৎ হবে এই সকল মৃত মানুষদের কে একটি শিক্ষা উপকরণ না ভেবে একজন মানুষ হিসাবে তাদের প্রাপ্য সন্মান তাদেরকে দেয়া।
যিনি তার অতি প্রিয় অমূল্য দেহটি উৎসর্গঃ করেছেন আপনাদের এবং আপনাদের কাছে সন্মানিত চিকিৎসা বিজ্ঞানের জন্য, তিনি সামান্য এতটুকু সন্মানের জন্য প্রার্থনা তো করতেই পারেন আপনাদের কাছে।
(ছবি - নেট থেকে নেয়া। এটি একটি অর্থবহ ছবি । কংকাল হয়ে যাওয়া মানুষটি হাঁটু গেড়ে করজোড়ে প্রার্থনা করছেন যেন আমরা উনাকে সন্মান না করতে পারলেও অন্তত অ-সন্মান যেন না করি)
ডা সুরেশ তুলসান।
কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ।

আপনার মতামত দিন:


মেডিক্যাল ক্যাম্প এর জনপ্রিয়