Dr. Aminul Islam

Published:
2021-11-28 13:09:04 BdST

মেডিক্যাল ম্যালপ্রাকটিস বনাম ক্রিমিনাল অফেন্স এবং টিআইএন


লেখক

 

ডা আজাদ হাসান
____________________

আমাদের দেশে "মেডিক্যাল ম্যালপ্রাকটিস" এবং "ক্রিমিনাল অফেন্স" সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা না থাকার কারণে চিকিৎসকদেরকে প্রায়শঃই বিভিন্ন রকম বিব্রত - কর পরিস্থিতির শিকার হতে হয়।
"মেডিক্যাল ম্যালপ্রাকটিস" এবং "ক্রিমিনাল অফেন্স" এই দুয়ের মাঝে ক্লিয়ার ডিমার্কেশন তুলে ধরতে আমার আজকের লেখা।
একজন চিকিৎসক তাঁর একাডেমিক নলেজ, প্রফেশ -নাল ট্রেনিং, প্রফেশনাল স্কিল এবং প্রফেশনাল এক্স - পেরিয়েন্স এর মাধ্যমে অর্জিত জ্ঞানের আলোকে রোগীর চিকিৎসা দিয়ে থাকেন। চিকিৎসকের সার্বক্ষ - -ণিক চেষ্টা বা ইনটেনশন থাকে একজন রোগীকে চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ করে তোলা বা কমফোর্টেবল লাইফ দেয়া। কোনো চিকিৎসকই ইন্টেনশনালি কোনো রোগীর মৃত্যু হোক, তা চান না। তাই তো রোগীর শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত চিকিৎসক আপ্রাণ চেষ্টা করেন রেগীকে সুস্থ করে তুলতে।
পক্ষান্তরে একজন ক্রিমিনাল-এর ইনটেনশন থাকে কিভাবে কোনো ব্যক্তিকে হত্যা করা যায় তার চেষ্টা এবং সে জন্য সে পূর্ব পরিকল্পনা করে এবং সেটা বাস্তবায়নের জন্য পরিকল্পনা মোতাবেক আগায়। এবং টার্গেট ব্যক্তির মৃত্যু নিশ্চিত করে সে ক্ষান্ত হয়।
লক্ষ্য করুন এখানে একজন লোকের মৃত্যুর ক্ষেত্রে দুই পেশার লোকের চিন্তা, চেতনা এবং ইনটেনশন দুই রকম। তাই কোন রোগীর মৃত্যু হলে চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে "দায়িত্ব অবহেলার মামলা" কখনো "হত্যা মামলা" বা "ক্রিমিনাল অফেন্স" হতে পারে না।

কোনো রোগী চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরণ করলে সংক্ষুব্ধ আত্মীয়-স্বজন চিকিৎসায় অবহেলার অভি -
- যোগ করে সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক বা মেডিক্যাল টীমের বিরুদ্ধে মামলা করতে পারেন, ক্ষতিপূরণ চাইতে পারেন। আইনগত ভাবে রোগীর পরিজনদের সেই অধিকার আছে। এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সেটা চর্চা হয়ে থাকে।

এখন কথা হলো, মৃত ব্যক্তির সংক্ষুব্ধ আত্মীয়-স্বজনরা
কোথায় মামলা করবে?
কোন ধারায় মামলাগুলো পরিচালিত হবে?
মামলাগুলোর জাজমেন্ট কে দিবেন?

প্রথম কথা হলো, চিকিৎসায় অবহেলা জনিত মামলা সমূহ Professional malpractices / Professional misconduct হিসেবে বিবেচিত হতে হবে।
Professional malpractices / Professional misconduct -এর মামলা গুলো বিএমডিসিকে নিষ্পত্তি করতে হবে।
বিএমডিসিকে আধুনিকায়ন করতে হবে। আর সেজন্য প্রয়োজন~
ডিসেন্ট্রালাইজেশন করা। অর্থাৎ প্রতিটি বিভাগীয় শহরে বিএমডিসির অফিস স্থাপন করতে হবে। এবং পর্যায়ক্রমে তা প্রতিটি জেলায় সম্প্রসারিত করতে হবে।
বিএমডিসির আইনি উইংটিকে শক্তিশালী করতে হবে।
কোনো চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার ক্ষমতা থাকতে হবে। (যদিও চিকিৎসকদের প্রফেশনাল রেজিষ্ট্রেশন বাতিল করার ক্ষমতা এখনো আছে, তবে শাস্তি মূলক ব্যবস্থা গ্রহনের ক্ষেত্রে বিএমডিসির ক্ষমতা আরো ডিটেইলস এবং স্পেসিফিক হওয়া বাঞ্ছনীয়)।
মেডিকো-লিগ্যাল মামলা সমূহ মেডিক্যাল এক্সপার্টদের সমন্বয়ে গঠিত জুরি বোর্ডের মাধ্যমে নিষ্পত্তি হওয়া বাঞ্ছনীয়। প্রয়োজনে আইনের মাধ্যমে বিএমডিসির যেখানে যতটা ক্ষমতা বৃদ্ধি করা প্রয়োজন তা করার ব্যবস্থা নিতে হবে।
এ ক্ষেত্রে আর একটি কাজ করা যায় সেটা হলো, যে সব "মেডিকো-লিগ্যাল কেস" যদিও বা "ক্রিমিনাল কেস" হিসেবে কোর্টে আসে (বা উঠে), সংশ্লিষ্ট বিচারক সে সব মামলা বিএমডিসি বরাবর রেফার্ড করবেন। এই নিয়মটি আইনের আওয়াতায় আনতে হবে।
মেডিক্যাল জুরি বোর্ড কর্তৃক কোন চিকিৎসক সন্দেহাতীত ভাবে দোষী সাব্যস্ত না হওয়া পর্যন্ত কাউকে অপরাধী হিসেবে অবহিত করা যাবে না, কোনো প্রিন্টিং মিডিয়ায় ধারণার উপর নির্ভর করে কোনো নিউজ প্রকাশ করা যাবে না।
আর একটি বিষয় গুরুত্বপূর্ণ তা হলো, যে কোন মেডিকো-লিগ্যাল নিউজ প্রিন্টিং মিডিয়ায় প্রকাশ করার আগে সংশ্লিষ্ট সংবাদ মাধ্যম এ বিষয়ে নিজস্ব মেডিক্যাল এক্সপার্টদের মতামত গ্রহন সাপেক্ষে তা প্রকাশ করবে। নতুবা "ডায়রিয়ার রোগীর চিকিৎসায় কলেরা স্যালাইন কেনো?" এ জাতীয় নিউজ হেড লাইন বন্ধ হবে না।
চিকিৎসকদের জন্য মেডিক্যাল ম্যাল-প্রাকটিস ইন্সুইরেন্স চালু করতে হবে এবং তা বাধ্যতা মূলক করতে হবে।।
আশা করি উল্লেখিত পদক্ষেপ সমূহ নেয়ার মাধ্যমে বিরাজমান পরিস্থিতি হতে পরিত্রাণ পাওয়া যেতে পারে।।

প্রসংগত উল্লেখ্য, বিএমডিসির রেজিষ্ট্রেশন করতে টিআইএন থাকতে হবে, এই শর্তটি একটি অগ্রহনযোগ্য নিয়ম। বিএমডিসি কোন যুক্তিতে বিএমডিসির রেজিষ্ট্রে - শন করতে টিআইএন থাকতে হবে, এই শর্ত জুড়ে দিয়েছে তা আমার বোধগম্য নয়। কেননা,
বিএমডিসির কাজ হলো, বাংলাদেশের অভ্যন্তরে চিকিৎসা পেশা প্রাকটিস করার জন্য উপযুক্ত শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং প্রয়োজনীয় প্রফেশনার এক্সপেরিয়েন্স সম্পন্ন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে বৈধভাবে অনুমোদন বা প্রফেশনাল রেজিষ্ট্রেশন দেয়া।
আর টিআইএন-এর বিষয়টি আর্থিক সংশ্লিষ্ট এবং সরকারের রাজস্ব বোর্ডের দায়িত্ব।

আমরা যদি আমাদের দেশের অন্যান্য পেশা ভিত্তিক সদস্যদের প্রতি লক্ষ্য করি, তা হলেও কেউ একটি নজির দেখাতে পারবেন না যেখানে "প্রফেশনাল রেজিষ্ট্রেশন"-এর সাথে টিআইএন সার্টিফিকেট এর বাধ্য বাধকতার শর্ত যুক্ত করা হয়েছে। কিংবা
আমরা যদি বাহিরের দেশে যেখানে "প্রফেশনাল রেজিষ্ট্রেশন" ছাড়া রোগীর চিকিৎসা দেয়া তো দূরের কথা রোগীর গা-ও স্পর্শ করা অবৈধ, এমন কি সে সব দেশে ট্যাক্স-এর হার আমাদের দেশের তুলনায় অনেক বেশী হলেও সে সব দেশেও কিন্তু "প্রফেশনাল রেজিষ্ট্রেশন"-এর সাথে টিআইএন কিংবা ট্যাক্স রিটার্নকে সম্পর্ক যুক্ত করা হয় নাই।

নির্দিষ্ট পরিমাণ আর্থিক ইনকাম হলে বা কর যোগ্য আয় থাকলে তাঁর জন্য আয়কর প্রদান করা বাধ্যতা মূলক সেটা দেখ ভাল করার দায়িত্ব রাজস্ব বোর্ডের বা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের। তাই, অন্য ডিপার্টমেন্টের দায়িত্ব বিএমডি -সির ঘাড়ে সওয়ার হওয়ার বিষয়টি কোনো ভাবে সমর্থন যোগ্য নয়।

এই নিয়মটি অচিরে রহিত করা উচিৎ।

সিওমেক-২১

আপনার মতামত দিন:


মেডিক্যাল ক্যাম্প এর জনপ্রিয়