ডেস্ক

Published:
2021-04-28 10:26:12 BdST

স্বাস্হ্য, স্বাস্হ্য শিক্ষা এবং আমরা


 

অধ্যাপক ডা: দীপক নাগ
——————————————-
ছোটবেলায় শুনেছি “Money loss nothing loss, health loss something loss but character loss everything loss”. আমি এটার সাথে সবসময়ই কিছুটা দ্বিমত পোষন করতাম। আমার কাছে মনে হত “What is a character in our Bangladesh , may not be considered a character at all in UK”. তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে এর সত্যতা আছে বৈকি, সেহেতু আমি ইহাকে something loss বলতে রাজী আছি।আমার মতে “Health is the most precious wealth in life”. উদাহরণ সরুপ বলা যায়, সোনামীতে অনেক লোক মৃত্যুবরন করেছে, আমরা দু:খ প্রকাশ করেছি কিন্তু নিজেরা কাজ ঠিকই করেছি। এমনকি আমাদের অতি আপনজন, মা-বাবার মৃত্যু হলেও আমরা অতি দু:খিত হই, তথাপি আমাদের বসে থাকলে চলে না, তাদের সৎকারের জন্য কাজ করতে হয়।একবেলা না খেলেও অন্য বেলায় খেতে হয়।কিন্তু আজ আমার যদি প্রচন্ড মাথা ব্যাথা হয় বা জ্বর উঠে অথবা আংগুলটা কেটে যায় সংগে সংগে আমার কাজ বন্ধ হয়ে যাবে, জীবন স্তব্ধ হয়ে যাবে। আপন স্বাস্হ্য নিজের কাছে এতটাই গুরুত্বপূর্ণ। অনুতাপের বিষয় এই যে, আমাদের অনেক গুণীজন কিংবা বুদ্ধিজীবিগণ জ্ঞান অর্জন বা বিতরনের জন্য দিবসের অধিকাংশ সময় ব্যয় করলেও নিজ স্বাস্হ্যের জন্য দৈনিক একটি ঘন্টাও সময় দেয় না। স্বাস্হ্য নিয়ে সবারই এত অবহেলা সত্যি দু:খজনক।

এবার আসা যাক স্বাস্হ্য শিক্ষা নিয়ে। পৃথিবীতে সব শিক্ষাই গুরুত্বপূর্ণ এবং নি:সন্দেহে প্রয়োজনীয়।আধুনিক উন্নত প্রযুক্তির যুগে লেখাপড়ার বিবেচনায় অনেকেই মনে করেন “Science is better”. আমাদের ভাল ছাত্রদেরকে সেজন্য আমরা অধিকাংশ ক্ষেত্রে বিজ্ঞান বিভাগেই পড়তে বলি।আমি শুধু এখানে একটি কথা যোগ করতে চাই “Science is better BUT live science is the best”.
দু একটি উদাহরণ দিলে বিষয়টি আরও পরিষ্কার হবে। যেমন ধরুন, একজন প্রকৌশলী অনেক হিসাব নিকাশ করে একটি অট্টালিকার কাঠামো ও ডিজাইন তৈরী করল। এই ক্ষেত্রে উনি আরও ১৫ দিন বা ১মাস সময় নিয়ে তা আবার এটার পরিবর্তন ও পরিবর্ধন করতে পারেন। অন্য একটি উদাহরণ বলি, অপরাধ বিজ্ঞানে একজনকে দোষী সাব্যস্ত করতে অনেক সময় নিয়ে তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে, এর পর আবার পক্ষে বিপক্ষে সাক্ষ্য প্রমান নেওয়ার সুযোগ থাকে। এইবার চিন্তা করুন একজন ডাক্তার হাসপাতালে বসে আছেন, একজন রোগী হার্টের সমস্যা নিয়ে আসলে অথবা অন্যজন পেটে জখম নিয়ে ইমারজেন্সিতে আসলে ডাক্তারের কি রোগীকে অপেক্ষা করতে বলে বই খুলে বিষয়টি একটু দেখে নিয়ে চিকিৎসা দেয়ার সুযোগ থাকে? অথবা সেখানে কি ডাক্তারের চিকিৎসায় ভুল করার অবকাশ থাকে? এই অতি দ্রুত সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়াটাই হচ্ছে অন্য বিয়য়ে লেখাপড়ার চেয়ে ভিন্ন এবং শ্রেষ্ঠত্ব (superiority). ইট বালি সিমেন্ট ইত্যাদি জড় পদার্থ বা কাগজ পত্র ফাইল নিয়ে ঘাটা ঘাঁটির চেয়ে living cell বা tissue নিয়ে কাজ করাকে অবশ্যই গুরুত্ব দিতে হবে।

এখন একটু জানা দরকার আমরা কোথায় আছি। স্বাস্হ্য শিক্ষাটাকে আমরা সাধারন শিক্ষার চেয়েও নিচে নামিয়ে ফেলেছি।বিভিন্ন কারনে উচ্চ মেধাবীর বদলে মধ্য এমনকি নিন্ম মেধাবী ছাত্ররা টাকার বিনিময়ে ভর্তি হচ্ছে চিকিৎসা বিজ্ঞানে পড়তে। যত্রতত্র মেডিক্যাল কলেজ স্হাপন বা স্হাপনের অনুমতি প্রদান, অনেকে এখন এটাকে একটি ব্যবসা ছাড়া আর কিছুই দেখছে না। পরিসংখ্যান অনুযায়ী খোদ ঢাকাতে যতগুলি মেডিক্যাল কলেজ আছে লন্ডন বা নিউইয়র্কে এর অর্ধেকও নাই। দু:খজনক হলো, আমাদের এইসব মেডিক্যাল কলেজে না আছে পর্যাপ্ত শিক্ষক, না আছে লাইব্রেরী, না আছে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা শিক্ষা সরম্মাজাদি। ছাত্রদের থাকা আর ক্লাসরুম তৈরীর পূর্বেই শুরু হয়েছে কলেজ কার্য্যক্রম। জানিনা এরা ডাক্তার হয়ে বের হয়ে দেশের জনগনের কতটুকু চিকিৎসা সেবা দিতে পারবে।

পরিশেষে, আমার আমেরিকা প্রবাসী এক ডাক্তার বন্ধুর কথা দিয়ে শেষ করতে চাই। সে লিখেছে, আমেরিকাতে প্রতি বৎসর ২১ হাজার ডাক্তার তৈরীর প্রয়োজন কিন্তু তারা তৈরী করে মাত্র ১৬ হাজার। বাকী ৫ হাজার সারা বিশ্ব থেকে প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার মাধ্যমে সেরা ডাক্তারদেরকে নিয়ে থাকে। প্রশ্ন হলো, তারা কি পারে না এই ৫ হাজার প্রয়োজনীয় ডাক্তার তৈরী করতে আরও কয়েকটা মেডিক্যাল কলেজ বানিয়ে? অবশ্যই পারে। নিশ্চয়ই তারা তাদের স্বাস্হ্য ও স্বাস্হ্য ব্যবস্হাটাকে এত হালকা ভাবে দেখতে চায় না, যেমনটি দেখছি আমরা।

তাই আমি আবার বলছি, স্বাস্হ্যই জীবনের অমূল্য সম্পদ এবং সকল সুখের মূল।রাষ্ট্র তথা প্রতিটি নাগরিকের উচিত সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে এর সঠিক মূল্যায়ন করা।


অধ্যাপক ডা: দীপক নাগ
বিভাগীয় প্রধান, রেটিনা বিভাগ
জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইন্সটিটিউট ও হাসপাতাল
[email protected]

আপনার মতামত দিন:


মেডিক্যাল ক্যাম্প এর জনপ্রিয়