Ameen Qudir

Published:
2019-09-08 11:00:09 BdST

বায়োমেট্রিক বিভ্রাট: বাধ্য হয়ে ২ টার মধ্যে ওটি শেষ করে বাকী রোগীদের ফিরিয়ে দিতে হবে!


ডা. হৃদয় রঞ্জন রায়

________________________

 

অফিসে হাজিরার জন্য ফিংগার প্রিন্ট বায়োমেট্রিক মেসিন বসেছে। এখন থেকে অধিদপ্তর ও মন্ত্রনালয়ের কর্তারা অন্য সবার অফিসে আগমন (চেক ইন) ও বহির্গমন (চেক আউট) ঢাকায় বসে মনিটর করতে পারবেন। সকাল ৮ টা থেকে ৮ঃ৩০ টার মধ্যে চেক ইন এর টিপসই দিতে হবে। ৮ঃ৩০ থেকে ৯ টায় হলে বিলম্ব চেক ইন দেখাবে। আর ৯ টার পর হলে সম্ভবতঃ অনুপস্থিত। আবার বিকালে ২ টা থেকে ২ঃ৩০ টার মধ্যে চেক আউট করতে হবে। ২ঃ৩০ থেকে ৩ টার মধ্যে হলে অস্বাভাবিক চেক আউট। ৩ টার পর মনে হয় আর চেক আউট হবে না।

 

আমার সমস্যা বহুবিধ। সকাল ৭ টায় ক্লাস। তখন বায়োমেট্রিক মেশিনের জায়গাটি তালাবদ্ধ থাকে। তালা খুলবে ৮ টার কিছু আগে। ক্লাস শেষ হতে ৮ঃ৩০ টার মত বেজে যায়। অর্থাৎ লেট প্রেজেন্ট। মানে দাড়াচ্ছে আগে এসেও দেরী দেখাচ্ছে মেসিন। যদি ক্লাস শেষ হতে ৯ টা পার হয়ে যায় তাহলে তো অনুপস্থিত। প্রিন্সিপাল স্যার অবশ্য বলেছেন ক্লাসের মাঝখানে এসে ফিংগার প্রিন্ট দিয়ে আবার ক্লাসে যেতে। কিন্তু আমার কাছে বিষয়টা কেমন জানি লাগছে!

 

এ তো গেল চেক ইন সমস্যা। এবার চেক আউট নিয়ে একটু বলি। অপারেশন ডে তে সাধারণতঃ ৩ঃ৩০ থেকে ৪ টার আগে ওটি থেকে বের হতে পারি না। ততক্ষণে মেশিনের জায়গা তালাবদ্ধ। একইভাবে প্রিন্সিপাল স্যার অবশ্য ওটির মাঝখানে এসে চেক আউট টিপ সই দিতে বলেছেন। কিন্তু ওটি থেকে বিধ্বস্ত অবস্থায়, রক্ত-পুঁজ গায়ে, ওটি ড্রেসে এতদূর আসতে হবে টিপসই দেবার জন্য? টিপসই দিয়ে আবার ওটিতে ঢোকা কি সম্ভব? আর কেনই বা ঢুকব? আর অপারেশনের মাঝখানে যদি হয় তাহলে তো সেটাও সম্ভব না। বাধ্য হয়ে ১/২ টার মধ্যে ওটি শেষ করে বাকী রোগীদের ফিরিয়ে দিতে হবে। কারন চাকুরী বাঁচলে তবেই না অপারেশন। টিপসই না দিলে তো চাকুরী নট! জনভোগান্তি বাড়লে আমার কিই বা করণীয় আছে?

 

চেক আউট আর চেক ইন তো হল। এবার আসি অন্য প্রসঙ্গ। অনেক সময়ই জরুরী সিরিয়াস রোগী থাকলে যে কোন সময়ই অফিসে যেতে হয়। রাত ৩/৪ টা পর্যন্ত ওটি করতে হয়। বাস একসিডেন্ট, মারামারি, গোলাগুলি, ভিআইপি রোগী ভর্তি হলে পরিচালক স্যার ফোন করে যখন তখন মেডিকেলে কল করেন। সেসবের বায়োমেট্রিক হিসাব তো নেই!

 

তাহলে? কি হচ্ছে এসব?
_________________________

 

লেখক ডা. হৃদয় রঞ্জন রায় । লোকসেবী চিকিৎসক। সুলেখক।সহযোগী অধ্যাপক, রংপুর মেডিকেল কলেজ।

আপনার মতামত দিন:


মেডিক্যাল ক্যাম্প এর জনপ্রিয়