Ameen Qudir

Published:
2019-08-28 14:42:58 BdST

সময়মত ১০০ কোটি টাকা খরচ না করায় ডেঙ্গি রোগীদের জন্য এবার হাজার কোটি টাকা খরচ


সময়মত ১০০ কোটি টাকা খরচ না করায় ডেঙ্গি রোগীদের জন্য এবার হাজার কোটি টাকা খরচ
ডেস্ক
_______________________

সিটি করপোরেশনগুলো যদি ১০০ কোটি টাকা খরচ করে মশা নিধনের কাজটা করতো। তাহলে সরকারি হাসপাতালগুলোকে ডেঙ্গি রোগীদের সারিয়ে তুলতে হাজারো কোটি টাকা খরচ করতে হত না।
এমনই বিশ্লেষণ এখন বাংলাদেশের স্বাস্থ্য সেক্টরের বিশেষজ্ঞদের।
তারা বলছেন, সময়ের এক ফোঁড়। অসময়ের দশ ফোঁড়। কোথায় সময় মত ১০০ কোটি টাকা খরচ। আর কোথায় হাজারো কোটি টাকা অপচয়। তারপরও সিটি কর্পোরেশনগুলোর ঘুম ভাঙছে না। তারা তামাশা ও কেরিকেচারে ব্যস্ত।
ঢাকা বিভাগীয় এম.আই.এস সম্মেলনে
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদও আক্ষেপ করে অনেক কথা বললেন। তিনি সেখানে বলেছেন, আগামী পাঁচ বছর ধরে প্রতিবছর ডেঙ্গিজ্বরের সংক্রমণ হবে, এমন আশঙ্কা প্রবল । এজন্য এখন থেকেই দীর্ঘ মেয়াদী আমাদের প্রস্তুতি নিতে হবে ।
এ বছর ডেঙ্গিরোগের চিকিৎসার জন্য সরকারি হাসপাতালগুলোতে এক হাজার কোটি থেকে দুই হাজার কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে। ডাক্তার, নার্স ও স্বাস্থ্য বিভাগীয় কর্মচারীদের সব ধরণের ছুটি বাতিল করে দিন রাত চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়েছে । অথচ সিটি করপোরেশনগুলো যদি ১০০ কোটি টাকা খরচ করে মশা নিধনের কাজটা করত তাহলে অবস্থা এতটা মারাত্মক হত না ।
ডা. আজাদ বলেন,
ঢাকা থেকে রোগীরা ডেঙ্গিজ্বর নিয়ে গ্রামের বাড়িতে গিয়েছেন এবং রোগ ছড়িয়েছেন । ইদের আগে আমি জনগণের প্রতি আহবান জানিয়েছিলাম, ঢাকায় যারা জ্বরে আক্রান্ত হবেন, ঈদের ছুটিতে তারা যেন গ্রামের বাড়ি না যান । উন্নত দেশগুলোতে কোনো শহরে কোনো সংক্রামক রোগের প্রাদুর্ভাব হলে বা মহামারী দেখা দিলে, সেই শহরের চারদিক সীল করে দেয়া হয় । ওই শহরের মানুষ শহরের বাইরে যেতে পারে না, আর বাইরের মানুষ সেই শহরে প্রবেশ করতে পারে না । তখন সেই রোগ সেই শহরের বাইরে ছড়াতে পারে না, কিংবা শহরের বাইরের কোন মানুষ সেই সংক্রামক ব্যধিতে আক্রান্ত হয় না ।

ডেঙ্গি জ্বর মারাত্মক রূপ ধারণ করার পর পরই ডেঙ্গি জ্বর পরীক্ষার কিটের সংকট দেখা দিল । দেশে বিদেশে যোগাযোগ করে মাত্র দুই দিনের মধ্যে আমরা এই সংকটের সমাধান করেছি । প্রাইভেট ডায়াগনোস্টিক সেন্টারগুলো ডেঙ্গি জ্বরের রক্ত পরীক্ষার জন্য ১২০০ থেকে ২৭০০ টাকা ফিস নিত । তাদের সাথে বসে, তাদেরকে অনেক বুঝিয়ে সুঝিয়ে সেই খরচ ৫০০/- টাকায় নির্ধারণ করেছি । অনিচ্ছা সত্ত্বেও তারা তা মেনে নিয়েছে ।
ডা. আজাদ বলেন,
হাইকোর্টে ডেঙ্গি রোগ বিষয়ে রিট হয়েছে । শুনানি চলাকালে হাইকোর্ট ডেঙ্গি জ্বর ম্যানেজ করতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারীরা যে সেবা, যে শ্রম দিয়েছেন এর প্রশংসা করেছে । মাননীয়া প্রধানমন্ত্রীও আমাদের এই ডেডিকেশনের ব্যাপারে সন্তুষ্ট ।

আপনার মতামত দিন:


মেডিক্যাল ক্যাম্প এর জনপ্রিয়