Ameen Qudir

Published:
2018-01-11 03:50:45 BdST

দেশে ভুয়া ডক্টরেট সাড়ে ৮ হাজার : পদোন্নতি বাগাচ্ছেন ভুয়ারা


 

 

ডাক্তার প্রতিদিন
_____________________

ভুয়া ডক্টরেটদের ধরতে মাঠে নামছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরের হিসেবে দেশে সাড়ে আট হাজারের মতো ব্যক্তি ভুয়া ডক্টরেট ডিগ্রি নিয়েছেন দেশি-বিদেশি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে। তাদের অনেকে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করছেন। দুদক ইতিমধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরের (ডিআইএ) কাছে এ সংক্রান্ত তথ্য চেয়েছে। তদন্তে সহযোগিতা করার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন এবং বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সহায়তা নেবে দুদকের এ সংক্রান্ত তদন্ত টিম।

দুদকের একজন পরিচালক বলেন, সারা দেশের জাল সনদ নিয়ে দুদকের বড় একটি টিম কাজ করছে। জাল সনদের কাজ করতে গিয়ে প্রচুর ভুয়া পিএইচডি ডিগ্রি ধরা পড়ছে। এ ডিগ্রি নিয়ে অনেকেই পদোন্নতি, আর্থিক সুযোগ নিচ্ছেন। এতে সরকারের অতিরিক্ত অর্থ খরচ হচ্ছে। এ জন্য এ সনদকে অগ্রাধিকার দিয়ে কাজ করছি।

এ বিষয়ে দুদকের সচিব মিডিয়াকে বলেন, জাল সনদ ধরতে দুদকের কয়েকটি টিম সারা দেশে কাজ করছে। সেখানে যত ধরনের জাল সনদ পাওয়া যাবে সবগুলো তদন্ত করে ধরা হবে।

 

Image result for fake PHD


দুদকের কর্মকর্তারা জানান, তদন্তে আমরা এমন পিএইচডি ডিগ্রি পেয়েছি যারা এ ডিগ্রি নেয়ার ন্যূনতম শর্ত পূরণ করেনি। এটা দেখার দায়িত্ব থাকা প্রতিষ্ঠানগুলো চরম ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান মিডিয়াকে বলেন, এ ব্যাপারে নোটিশ দিতে দিতে হয়রান হয়ে গেছি। ইউজিসির আইনে ভুয়া পিএইচডি ধরার কোনো সুযোগ নেই। এটা ফৌজদারি অপরাধ। কারণ এ সনদ দেয়া ও নেয়ার ক্ষেত্রে আর্থিক লেনদেন হয়। তাই এগুলো ধরার দায়িত্ব দুদক ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর। আর ইউজিসিতে জাল সনদ ধরার উইং নেই, লোকবলও নেই। তাই দুদকের এ উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। তিনি বলেন, ভুয়া পিএইচডি সনদ নিয়ে অনেকেই সরকারি ও বেসরকারি দপ্তরে কাজ করে। সবাইকে ধরা উচিত।

 

Related image

দুই বছর আগে ডিআইএ’র দেয়া তথ্য অনুযায়ী তখন এমন ভুয়া সনদধারী ছিল ৫ হাজারের মতো। এখন তা সাড়ে আট হাজার হবে বলে ডিআইএ সূত্র জানিয়েছে। এ ব্যাপারে পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরের যুগ্ম পরিচালক বিপুল চন্দ্র সরকার গণমাধ্যমকে বলেন, জাল সনদ নিয়ে আমরা বেশ উদ্বেগের মধ্যে আছি। তদন্ত করতে গিয়ে প্রচুর জাল সনদ পাচ্ছি। যার মধ্যে পিএইচডি ডিগ্রি পাওয়া যাচ্ছে। দুদক চাইলে আমরা এ সংক্রান্ত সব তথ্য তাদের দেব। দুদক এবং আমাদের কাজ প্রায় সমান।


বিনোদন এর জনপ্রিয়