ডাক্তার প্রতিদিন

Published:
2022-09-22 10:32:57 BdST

"১৫ বছরের ছোট ছেলের সঙ্গে পরকীয়া করছে স্ত্রী, ওদের শারীরিক ঘনিষ্ঠতাও হয়েছে, পরামর্শ চাই মেডাম"


 

 

DESK,DAKTAR PROTIDIN

________________________


এই ব্যক্তির স্ত্রী তাঁর থেকে ১৫ বছরের ছোট এক ছেলের সঙ্গে পরকীয়ায় লিপ্ত। এই কথা জানিয়েছেন তিনি। খুবই কষ্ট পেয়েছেন ব্যক্তি। মনোরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ চেয়েছেন। জবাবে ডাক্তার যে পরামর্শ দিলেন;


ভুক্তভোগীর বক্তব্য
আমার স্ত্রীর বয়স ৪৬ বছর। ও আমায় ঠকিয়েছে। একজন ১৫ বছরের ছোট পুরুষের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক(Physical Intimacy) হয়েছে ওর। আমি যখন ওকে প্রশ্ন করেছি, তখন ও সব কথা স্বীকার করেছে। ও বলেছে যে, ওই ছেলেটির সঙ্গে ওর প্রায় দেড় মাস ধরে শারীরিক ঘনিষ্ঠতা হয়েছে। এমনকী সে এই কথাও বলেছে যে, ছেলেটির সঙ্গে তার দেখা হত এবং অফিসে ওরা ঘনিষ্ঠ হত।

ওই ছেলেটির সঙ্গে সে ২ রাত একটি হোটেলেও ছিল। তখন আমি বাচ্চাদের নিয়ে বাবা ও মায়ের কাছে গিয়েছিলাম। সে স্বীকার করেছে যে, এটা নিয়ে আগে থেকেই প্ল্যান করে রেখেছিল ও। আমাদের সন্তান আছে। শুধুমাত্র তাদের কথা ভেবেই আমি স্ত্রীকে ছেড়ে যাইনি। ওর সঙ্গে আছি। কিন্তু ইতিমধ্য়ে ১০ মাস কেটে গিয়েছে। আমি ভালো করে ঘুমাতে পারিনি। আমি জানি, আমি ওকে কখনও ক্ষমা করতে পারব না। এমনকী এটাও ভুলতে পারব না, ও কী করেছে। ও চিটিং করেছে। আমি কী করব?

বিশেষজ্ঞের পরামর্শ

পরামর্শ দিচ্ছেন একজন উপমহাদেশ থ্যাত মনোরোগ চিকিৎসক ।


আমাদের লিখে পাঠানোর জন্য ধন্যবাদ। আমাদের ভালো লাগল যে, আপনি আপনার সমস্যার কথা লিখে পাঠালেন। আমরা আপনাকে সাহায্য করার চেষ্টা করব। আপনি যা লিখে পাঠিয়েছেন, তা পড়ে আমরা বুঝতে পারছি যে, আপনি খুব কঠিন পরিস্থিতিতে আছেন। আপনি খুবই আঘাত পেয়েছেন। আর সেটাই খুব স্বাভাবিক। তাই আমরা আপনাকে সাহায্য করার সম্পূর্ণভাবেই চেষ্টা করব।

এটা সত্য়িই কষ্টের


সঙ্গী যখন প্রতারণা করে, তখন তা আমাদের সত্যিই খুব কষ্ট দেয়। আমাদের আঘাত করে। আমরা সেটা নিয়ে ভাবতে ভাবতে ক্লান্ত হয়ে পড়ি। সত্যি বলতে, এই ঘটনা আপনাকে অনেকদিন ধরেই কষ্ট দিচ্ছে। প্রায় ১০ মাস এই খারাপ অভিজ্ঞতার মধ্য়ে দিয়ে যাচ্ছেন আপনি।

আমরা এই কথাও বুঝতে পারছি যে, আপনার স্ত্রী যা করেছেন, তা আপনি ভুলতে পারছেন না। এমনকী যা হয়েছে, তাও আপনার জন্যে সহজেই ভুলে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। এটা আপনার সঙ্গে স্ত্রীর সম্পর্কে একটি দাগ ফেলে গিয়েছে।

ক্ষমা করার কথা ভেবেছেন?

কিন্ত কী জানেন, ক্ষমা করে দিলে হয়তো পরিস্থিতি সামান্য হলেও বদলাতে পারে। কারণ, আপনার মধ্য়ে থেকেই এই অনুভূতিটা আসবে। একবার যদি ক্ষমা করে দিতে পারেন, তাহলে আপনার মনেই তার অন্যরকম প্রভাব পড়বে। এমনকী সেই মানুষটি যদি ক্ষমা নাও চান, তাহলেও তিনি ক্ষমা করে দিতে পারেন একদম মন থেকে। কারণ, আপনি মনের মধ্য়ে যতদিন পর্যন্ত সেই যন্ত্রণা ও খারাপ ঘটনাটি রেখে দেবেন, আপনি ততদিন ভীষণভাবে সাফার করবেন। সেটি আপনাকে কষ্ট দেবে।

তাই এর মধ্য়েই আপনার সম্পর্ক খারাপ হয়েছে। বিষাক্ত হয়ে উঠেছে আপনার কাছে। এবার তার আরও খারাপ প্রভাব পড়তে শুরু করতে পারে। যা আপনার সঙ্গে স্ত্রীর সম্পর্ক খারাপ করতে পারে। এছাড়াও আপনার সন্তানের উপরেও তার প্রভাব পড়তে পারে।

একবার চেষ্টা করুন এভাবে


আপনি যদি একবার ক্ষমা করে দিতে পারেন, তাহলে পরিস্থিতি বদলে যেতে পারে। চেষ্টা করুন আপনার স্ত্রীকে ক্ষমা করে দেওয়ার। তাহলে এক সময় গিয়ে আপনিই মনে শান্তি পাবেন। মানে, আপনাকে স্ত্রীকে ক্ষমা করে দিতেই হবে, এরকম কোনও জোর দিচ্ছি না। কিন্তু সব কিছু আরও একবার ভেবে ক্ষমা করে দেওয়ার ভাবতেই পারেন আপনি।

এরপরও সব ঠিক না হলে...

এরপরেও যদি পরিস্থিতি ঠিক না হয়, তাহলে পরবর্তী পদক্ষেপ করতে হবে। যেমন এরপরেও যদি আপনি স্ত্রীকে ক্ষমা করতে না পারেন, এবং আপনার মনের মধ্য়ে সেসব কথা থেকেই যায়, তাহলে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে হবে। আপনি মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ সাইকো থেরাপিস্টের অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিন। সেভাবেই বুকিং করুন। সাইকোথেরাপিস্টের কাছে গিয়ে মনের কথা খুলে বলুন। তিনি আপনাকে এই যন্ত্রণাদায়ক পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে সাহায্য করবেন।

আপনার মতামত দিন:


প্রেসক্রিপশন এর জনপ্রিয়