ডাক্তার প্রতিদিন

Published:
2020-05-19 12:56:16 BdST

‘মেডোর্ণা’র প্রথম করোনা টিকা  : যেভাবে , যে প্রক্রিয়ায় খবরটি জানাল তারা


 

ডা. তিতাস মাহমুদ ,
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে
______________________
একটা আশার খবর পেলাম:

এই রুদ্ধদ্বার পরিস্থিতিতে কেউ কেউ খবরটিতে খানিকটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন। খুব সকালে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস অংগরাজ্যে ‘মেডোর্ণা’ নামের একটি গবেষণা সংস্থা, কোরোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক মানবদেহে প্রয়োগের আংশিক এবং অসমর্থিত ফলাফল জানিয়েছে।

গবেষণার প্রথম পর্বে (ফেইজ ওয়ান) সাধারণত প্রতিষেধকটি আদৌ মানবদেহে সহনীয় এবং নিরাপদ কী না, তা অল্প কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবীদের (এক্ষেত্রে ৪৫ জন) শরীরে ঢুকিয়ে দেখা হয়। মেডোর্ণা এই প্রতিষেধকটি তৈরীতে নতুন একটি পদ্ধতি অবলম্বন করেছে। এরা নিজস্ব ল্যাবরেটারিতে ভাইরাসের mRNA, যেখানে স্পাইক প্রোটিনটি আছে, সেটি সম্পূর্ণ কৃত্রিম উপায়ে তৈরী করে, তা মানবদেহে মার্চ মাসের মাঝামাঝিতে তিনটি মাত্রায় ঢুকিয়েছিলেন। সুখবর হচ্ছে, দেহে এ তিনটি মাত্রাই সহনীয়। তবে যারা ৩য় বা সর্বোচ্চ মাত্রাটি ( ১২৫ মাইক্রোগ্রাম) পেয়েছেন, তাদের শরীরে খানিকটা বেশি জ্বর এসেছিলো।

বর্তমানে গবেষণার দ্বিতীয় পর্বে (ফেইজ টু ট্রায়াল) আরো বেশি সংখ্যক স্বেচ্ছাসেবীর (এক্ষেত্রে ৬০০ জন) শরীরে প্রতিষেধকটি দেয়া হচ্ছে। এই পর্বে সাধারণত দেখা হয় প্রতিষেধকটি আদৌ কার্যকর কী না! অর্থাৎ তাকে প্রমাণ করতে হবে, সে ভাইরাসকে নিশ্চিতভাবে শরীর থেকে নির্মূল করতে সক্ষম। বিজ্ঞানীরা ইতিমধ্যে প্রমাণ পেয়েছেন, রক্তে ঢুকিয়ে দেয়া এই কৃত্রিম করোনা mRNA, ৮জন স্বেচ্ছাসেবীর ৮জনেরই শরীরে যথেষ্ট এন্টিবডি উৎপাদন করেছে। শুধু তাই নয়, এই এন্টিবডিগুলো ল্যাবটারিতে রাখা করোনা ভাইরাসকে অক্ষম করে দিয়েছে। ভাইরাসের বংশবৃদ্ধিও বন্ধ হয়েছে। এযাবৎ এসব গবেষণার দেখভাল করেছেন খোদ ডা. ফাউচি, যিনি বর্তমান পৃথিবীতে সংক্রামণ ব্যাধির অন্যতম মহাগুরু।

আসছে জুলাই মাসে গবেষণার তৃতীয় পর্ব ( ফেইস থ্রি ট্রায়াল) শুরু হবে। এই পর্বে কয়েক হাজার স্বেচ্ছাসেবাীকে আসল প্রতিষেধকটি এবং অন্য হাজারকে নকল পানি ( প্ল্যাসিবো) দেয়া হবে। এ দু’দলের কেউ জানবে না কে আসল আর কে নকল। তারপর টানা কয়েকমাস যাবতীয় তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে তুলনামূলক ফলাফল প্রকাশ করা হবে। যোগ বিয়োগ করে দেখা হবে আসল আর নকলের ভেতর কারা বেশি আক্রান্ত হয়েছেন করোনায় আর ক’জন ছিলেন করোনামুক্ত।

ভিডিও লিঙ্ক

https://www.facebook.com/titas.mahmood/videos/10157102884566657/?t=0

 

AD..

আপনার মতামত দিন:


ফার্মাসিউটিক্যালস এর জনপ্রিয়