Ameen Qudir

Published:
2020-01-06 01:33:08 BdST

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তিন চিকিৎসকের জামিন হয়েছে


 

ডেস্ক
__________________

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তিন চিকিৎসকের আজ ৫ জানুয়ারি জামিন হয়েছে। এ তথ্য জানিয়ে চট্টগ্রাম বিএমএর সাধারণ সম্পাদক ডা. ফয়সল ইকবাল চৌধুরী দাবি জানান , এখন চট্টগ্রাম বিভাগের বিক্ষুব্ধ ডাক্তার সমাজের দাবি , অবিলম্বে মিথ্যা বানোয়াট মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।
এর আগে ৪ জানুয়ারি চট্টগ্রামে তাদের মুক্তির দাবিতে এক ঘণ্টার কর্মবিরতি পালন করে চট্টগ্রাম বিএমএ।

চট্টগ্রামের সংবাদ সূত্র জানায়, ৪ জানুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তিন চিকিৎসককে কারাগারে পাঠানোর প্রতিবাদে ১ ঘণ্টার কর্মবিরতি পালন করেছেন চট্টগ্রামের চিকিৎসকরা। বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন (বিএমএ) চট্টগ্রাম শাখার উদ্যোগে বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এ কর্মসূচি পালন করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. নাসির উদ্দিন মাহমুদ। তিনি বলেন, বিএমএর ১ ঘণ্টার কর্মসূচি ছিল। চিকিৎসকরা তা পালন করেছেন। তবে এ কর্মবিরতিতে রোগীদের কোনো ভোগান্তি পোহাতে হয়নি বলে দাবি করেছেন বিএমএ নেতৃবৃন্দ।


তারা বলছেন, কর্মসূচির আগে-পরে চিকিৎসকরা স্বাভাবিক চিকিৎসা সেবা দিয়েছেন। শুধু এক ঘণ্টার জন্য দায়িত্ব পালন থেকে বিরত ছিলেন। ইমার্জেন্সিসহ সবধরনের জরুরি সেবা কর্মসূচির বাইরে ছিল। এদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ঘটনায় কেন্দ্রীয় বিএমএ বা অন্যান্য জেলায় কোন ধরনের কর্মসূচি পালিত হয়নি। তাই সংশ্লিষ্টরা চট্টগ্রামে কর্মসূচি পালন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএমএ চট্টগ্রামের সাধারণ সম্পাদক ডা. ফয়সল ইকবাল চৌধুরী বলেন, চিকিৎসকদের অধিকারের প্রশ্নে এবং পেশার স্বার্থে দেশের যে কোনো স্থানের ঘটনায় কর্মসূচি পালনের অধিকার চট্টগ্রাম বিএমএর রয়েছে।

ডা. ফয়সল ইকবাল চৌধুরী--------------


ঢাকাসহ অন্যান্য জেলায় কর্মসূচি ছিল না স্বীকার করে বিএমএ চট্টগ্রামের সভাপতি ডা. মুজিবুল হক খান আজাদীকে বলেন, চিকিৎসা কোনো ফৌজদারি কর্মকাণ্ড নয়। তাই দোষী সাব্যস্ত হওয়ার আগে কোনো চিকিৎসককে কারাগারে পাঠানোর বিষয়টি গ্রহণযোগ্য নয়। যার কারণে আমরা চট্টগ্রাম বিএমএর পক্ষ থেকে কর্মসূচি পালন করেছি। কারা পালন করলো, কারা করলো না-সেটি আমাদের বিবেচ্য নয়।
৫ জানুয়ারির মধ্যে ওই চিকিৎসকদের জামিন না হলে কেন্দ্রীয় বিএমএর সাথে আলোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানিয়েছিলেন ডা. ফয়সল ইকবাল চৌধুরী।
প্রসঙ্গত, গত ১৩ নভেম্বর ভুল চিকিৎসায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের মুন্সেফপাড়া এলাকার ক্রিসেন্ট কিন্ডার গার্টেনের সহকারী শিক্ষিকা নওশিন আহমেদ দিয়ার মৃত্যুর অভিযোগে তার পরিবার আদালতে মামলা করেন। এতে অভিযুক্ত তিন চিকিৎসক হলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া খ্রিস্টিয়ান মেমোরিয়াল হাসপাতালের পরিচালক ডা. ডিউক চৌধুরী, অরুনেশ্বর পাল অভি ও শাহাদাত হোসেন রাসেল। মামলায় হাইকোর্ট থেকে চার সপ্তাহের জামিন নেন তিন চিকিৎসক। পরে ১ জানুয়ারি ওই তিন চিকিৎসক আদালতে হাজির হয়ে পুনরায় জামিন আবেদন করেন। দুই দফা জামিন আবেদনের ওপর শুনানি শেষে আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আপনার মতামত দিন:


মেডিক্যাল ক্যাম্প এর জনপ্রিয়