Ameen Qudir

Published:
2019-10-04 10:25:56 BdST

কিছু কিছু রোগীর কথা শুনলে ডাক্তারদেরও মন ভাল হয়ে যায়


ডা. গুলজার হোসেন উজ্জ্বল


_______________________________

কিছু কিছু ডাক্তারের কথা শুনলেই যেমন রোগীদের মন ভাল হয়ে যায়, তেমনি কিছু কিছু রোগীর কথা শুনলে ডাক্তারদেরও মন ভাল হয়ে যায়৷

এজাজুল ইসলাম (আসল নাম নয়) তেমনই একজন রোগী। শুরুতেই তিনি আমার মন ভাল করে দিয়েছেন।

এজাজুল ইসলামের বয়স একষট্টি। লোকটার ভেতর একটা অদ্ভুত মায়া আছে৷ বাড়ি সুনামগঞ্জ। বৃহত্তর সিলেটের আঞ্চলিক টানে কথা বলেন৷ মায়াটা আরো বেড়ে যায়৷ আস্তে আস্তে টেনে টেনে কথা বলেন। প্রতিটি শব্দ চয়নে স্নিগ্ধ সরলতার ছাপ।

রোগের কথা বলতে গিয়ে কান্নায় ভেংগে পড়লেন।

-কিচ্ছু খাইতে পারিনা স্যার। একদম শুখায়ে গেছি। দশ কেজি উজন খইমা গেছে৷

ভিজিটিং কার্ড বের করে দেখালেন। সেখানে বছর পাঁচেকের আগের ছবি। সুদর্শন একজন পুরুষের ছবি।

ভিজিটিং কার্ডে লেখা ট্রিপল এম. এ।

- আমি স্যার ট্রিপল এম.এ। এলএলবিও খরছি।

ছবিটা দেখিয়ে বললেন " এইটা স্যার আমি আছিলাম। এখন কি হইয়া গেছি!"

বলেই আবার কান্না- " কিচ্ছু খাইতে পারিনা স্যার। রখত কমি গেছে। তিন ব্যগ রখত ভরছি। ডাঃ বিষ্ণু স্যারে আফনার কাছে পাডাইছুইন৷ তাইনে অনেক বড় ডাক্তার। তাইনে আফনের কাছে পাডাইছুইন।....... আমি খিতা বাচুমনি স্যার? "

সান্ত্বনা দিলাম। বললাম " মনে জোর রাখেন। জীবন মৃত্যু অনিশ্চিত বিষয়৷ আপনার আগে আমার মৃত্যু হয়ে যেতে পারে।"

আরো কিছু কথা হলো।

প্রাথমিক ধাপের পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে দ্বিতীয়বার ভিজিট করতে আসলেন এজাজুল ইসলাম ট্রিপল এম.এ। আমার মধ্যে দুরকম অনুভুতি কাজ করছে৷ একদিকে রোগের ডায়াগনোসিসে পৌছানোর আনন্দ৷ আরেকদিকে কঠিন অসুখের বিষাদ।

"ব্রেকিং ব্যাড নিউজ" পর্ব শুরু করব৷ জিজ্ঞেস করলাম -আপনার সাথে কে কে আছে?
- কেউ নাই স্যার৷ আমি একা মানুষ। প্রতিবেশি একজনরে নিয়া আসছি।
- পরিবারের সদস্যরা কোথায়? স্ত্রী-পুত্র-কন্যা?
- আমি স্যার বিয়া শাদী করছিনা।
- তাই? বেশতো। এই জীবন কেমন কাটলো বলুনতো? বেশ আনন্দে ছিলেন? স্বাধীনতা উপভোগ করেছেন খুব ?

 

- ভাল না স্যার। আনন্দ নাই। আমি আসলে সময় পাইছিনা। ছুট ছুট ভাইবোন আছিল। তারারে লেখা পড়া শিখাইছি। নিজেও লেখা পড়া করছি। বিদেশ ছিলাম অনেকদিন৷ তবে এখন কিছুটা অবসর আছি৷ বিয়া করব স্যার৷ অসুখটা ভাল হইলেই বিয়া করব ভাবতেছি।

হঠাৎ বুকের ভেতরটা হাহাকার করে উঠলো। "ব্রেকিং ব্যাড নিউজ" কঠিন হয়ে উঠলো।

একষট্টি বছরের অবিবাহিত পুরুষ এজাজুল ইসলামের AML নামের একটি কঠিন ব্লাড ক্যান্সার ধরা পড়েছে৷

করুনাময়ের কাছে আমি অনেকদিন কিছু চাইনি। গতদুদিন যাবত কেবল ঘুরে ঘুরে একটা কথাই কানে বাজছে- "এবার অসুখটা ভাল হইলে বিয়া করব স্যার"।

হে করুনাময় প্রভু, এই মানুষটির আশাটা কি পূরণ হবেনা? আমি তো কিছু চেয়ে তোমাকে বিব্রত করিনাই অনেকদিন। এজাজ সাহেবের বিয়েটা দেখতে চাই। প্লিজ,নিরাশ করোনা।
______________________________
ডা. গুলজার হোসেন উজ্জ্বল । রক্তরোগ বিশেষজ্ঞ। সুলেখক। দু বাংলায় সমাদৃত প্রখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী ।

আপনার মতামত দিন:


মেডিক্যাল ক্যাম্প এর জনপ্রিয়