Ameen Qudir

Published:
2019-06-26 18:32:12 BdST

কোনটা ইনডিকেটিভ আর কোনটা ইনডিকেটিভ সিজার নয়, সেটা কে নির্ধারন করে দেবে ?


 

 

ডা. আতিকুজ্জামান ফিলিপ
_______________________

প্রসূতি মায়ের অপ্রয়োজনীয় সিজার বন্ধে আদালতের নির্দেশনা চেয়ে রিট করেছেন জনৈক আইনজীবী!

ভালো কথা।
আমরাও ব্যাপারটি জানি!
কোথাও কোথাও বিশেষ করে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে কিছু কিছু ক্ষেত্রে কতিপয় চিকিৎসক 'রুগির সিজার' নিয়ে যে এমন ম্যালপ্রাক্সিস করেন না সেটা জোর দিয়ে বলার সুযোগ নেই!

অবাক হবেন যে এদেশে উল্টোচিত্রও আছে!
কিছু কিছু ক্ষেত্রে সিজারের ইনডিকেশন না থাকা সত্ত্বেও রুগি বা রুগির স্বজনও চিকিৎসককে সিজার করাতে বাধ্য করেন!
এমন নজিরও এইদেশে নেহাতই কম নয়!

যাইহোক, দু'রকম চিত্রই আমাদের আছে!
আমরাও চাই না এইরুপ ম্যালপ্রাক্সিস আরো হোক!

কিন্তু বার্নিং কোয়েশ্চেনটা হলো কোনটা প্রয়োজনীয় আর কোনটা প্রয়োজনীয় নয় অর্থাৎ কোনটা ইনডিকেটিভ সিজার আর কোনটা ইনডিকেটিভ সিজার নয় সেটা কে নির্ধারন করে দেবে ?

রুগির স্বজন নাকি সাংবাদিক নাকি উকিলবাবু!?

এমনিতেই এদেশের চিকিৎসকরা দৌড়ের উপর আছে!
এর উপর 'গোদের উপর বিষফোঁড়া'র মতো বোধ করি আরেকটা নতুন উপসর্গ যুক্ত হতে যাচ্ছে!

সাম্প্রতিক সময়ে আমরা অহরহভাবে দেখছি চিকিৎসাবিদ্যা সম্পর্কে বিন্দুমাত্র জ্ঞান না থাকা সত্ত্বেও এদেশে কোনটি ভুল চিকিৎসা আর কোনটি ভুল চিকিৎসা নয় সেটি নিরুপন করে দিচ্ছে রুগির স্বজন ও একশ্রেনীর সাংবাদিক!
ফলস্বরুপ চিকিৎসক নিগৃহের ঘটনা ঘটছে একের পর এক।

আমাদের অভিজ্ঞতা বলছে-
ইনডিকেটিভ সিজারেও রুগির স্বজন আর সাংবাদিকরা ননইনডিকেশনের অভিযোগ এনে চিকিৎসক নিগৃহে আরো দশ ধাপ এগিয়ে যাবেন!
সিজারের ক্ষেত্রেও এমন অচলাবস্থার সৃষ্টি হলে ভোগান্তিতে পড়বেন রুগিরাই!
কারন তখন চিকিৎসকরা ইনডিকেটিভ সিজারেও হাত গুটিয়ে বসে থাকবেন!

অনাকাঙ্ক্ষিত ভবিষ্যৎ অচলাবস্থা নিরসনে আমাদের চিকিৎসকদেরকেও এগিয়ে আসতে হবে।
যে অল্প কয়েকজন চিকিৎসক এই ধরনের ম্যালপ্রাক্সিস করে আমাদের পুরো কম্যূনিটিকে বিতর্কিত করছেন তাদের বিরুদ্ধে আমাদের সমস্ত চিকিৎসক কম্যূনিটিকে প্রতিবাদি হতে হবে।

আদালত নয় বরং মেডিকেল এথিক্স এবং কোড অব প্রফেশনাল কন্ডাক্টের প্রতি অবিচল থেকে এবং বিএমডিসিকে যুগোপযোগী করে এই ধরনের ম্যালপ্রাক্সিসের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির ব্যাবস্থা করে ও তার যথাযথ প্রয়োগ ঘটিয়ে জনমনে যে অনাস্থা তৈরি হয়েছে তা দুর করতে পারলেই এই সমস্যার সমাধান সম্ভব।।
__________________________

ডা. আতিকুজ্জামান ফিলিপ।
সহ-তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ,স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ
যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, চিকিৎসক পরিষদ, বিএসএমএমইউ।
Doctor ,t Bangabandhu Sheikh Mujib Medical University
Former Secretary General বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ শাখা ,দিনাজপুর।
Studied MBBS. at Dinajpur Medical College, Dinajpur

আপনার মতামত দিন:


মেডিক্যাল ক্যাম্প এর জনপ্রিয়