ডাক্তার প্রতিদিন

Published:
2020-05-23 11:15:51 BdST

করোনা চিকিৎসায় অতি উচ্ছাসে দুষ্ট ওষুধ


মেজর ডা.খোশরোজ সামাদ
______________________

অতি সম্প্রতি সোসাল মিডিয়াসহ বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় কয়েকজন বাংলাদেশী চিকিৎসকের উদ্ধৃতি দিয়ে 'আইভারমেকটিন' নামের ওষুধ দ্বারা ৯০ টাকায় করোনা চিকিৎসায় সাফল্য দাবী করা হয়।

২।আইভারমেকটিন ওষুধটি 'প্যারাসাইটের' বিরুদ্ধে কার্যকরী ওষুধ। স্ক্যাবিজ, গোদরোগ, বিভিন্ন রকম কৃমির বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হয়। অদ্যবধি বিশেষ কিছু শর্ত সাপেক্ষে বিশেষভাবে অসুস্থ রোগীদের চিকিৎসায়' র‍্যামডিসিভির' ওষুধটি ছাড়া কোন ওষুধকেই ফুড এন্ড ড্রাগ এজেন্সি বা অন্য কোন ওষুধ নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান কোভিড -১৯ চিকিৎসায় সবীকৃতি দেয় নি।

৩।একটি ওষুধ নতুন কোন রোগে চিকিৎসার জন্য ব্যাপক রকম গবেষণা প্রয়োজন। সেই গবেষণার প্রথম পর্যায় ল্যাবরেটরি বা ভিট্রো টেস্টে সফল হলেও প্রাণী এবং সর্বোপরি মানুষের উপর প্রয়োগ করে সাফল্য পাওয়ার স্তর এখনও পেরুনো হয় নি। সুতরাং গবেষণার শেষ দুটি স্তর না অতিক্রম করা পর্যন্ত কোন ওষুধ প্রয়োগই বিধি সম্মত নয়ই বরং ঝুঁকিপূর্ণ ।কোন
গবেষণা করতে গেলে এই সংক্রান্ত অনুমোদন প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের অনুমোদন এবং ,'ইথিক্যাল ' দিকটিও মানা হয় নি ।গণমাধ্যমে তথ্য উন্মুক্ত করবার আগে 'চিকিৎসা বিজ্ঞান ভিত্তিক সবীকৃত কোন জার্নালে' গবেষণাটির ফলাফল প্রকাশ করাও হয় নি।

৪।কোন ওষুধই পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া মুক্ত নয়। এই ওষুধ প্রয়োগে ' নিউরোটকসিসিটির ' মত মারাত্মক পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া করতে পারে।
আইভারমেকটিনের সাথে যুগপৎ ' ডক্সিসাইক্লিন ' প্রয়োগের কথা বলা হয়েছে। ডক্সিসাইক্লিন একটি এন্টিবায়োটিক, করোনা ভাইরাসের উপর এর কোনই ভূমিকা নেই।

৫। অতি উচ্ছাসে দুষ্ট এইসব তথ্য গণমাধ্যমে প্রচার সাধারণ মানুষের মনে আইভারমেকটিনের উপর মিথ্যে আশাবাদ আনতে পারে। ফলে অনেকেই এটি নিজে নিজেই সেবন করতে পারেন (Self medication )।এ ছাড়া কোন কোন চিকিৎসকও রোগীর অনুরোধের চাপে পড়ে প্রেসক্রিপশন করে ফেলতে পারেন । তাতে অনেকেই মূল করনীয় হাত সাবান দিয়ে ধোয়া, মাস্ক পরা, সোসাল আইসোলেশন উপেক্ষা করতে পারেন।ফলে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ সামগ্রিকভাবে বাঁধাগ্রস্ত হতে পারে।

____________________
মেজর ডা.খোশরোজ সামাদ
ক্লাসিফাইড স্পেশালিষ্ট,ফার্মাকোলজি
আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল কলেজ

__________________

AD...

আপনার মতামত দিন:


কলাম এর জনপ্রিয়