Ameen Qudir

Published:
2019-05-23 11:29:20 BdST

কলা খাচ্ছি না বিষ খাচ্ছি !



ডেস্ক
__________________

রাজধানীর আড়ত সহ বাংলাদেশের বিভিন্ন হাট-বাজারে কলা পাকাতে মেশানো হচ্ছে কার্বাইড জাতীয় রাসায়নিক পদার্থ। ফলে কলার বাহ্যিক রং ১২ ঘণ্টার মধ্যেই হলুদ ও আকর্ষণীয় আকার ও রং ধারণ করছে। বিষাক্ত এই কেমিক্যাল মানবদেহের জন্য মারাত্নক ঝুঁকিপূর্ণ।


বিভিন্ন হাটবাজারে যেসব কলা বিক্রি করা হচ্ছে তার প্রায় বেশির ভাগ বিষাক্ত কেমিক্যাল দিয়ে পাকানো। খুব তাড়াতাড়ি যাতে এসব কলা পেকে যায় তাই ব্যবসায়ীরা এই কেমিক্যাল মিশিয়ে থাকেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কলা ব্যবসায়ী জানান, কলায় এসব পদার্থ মেশালে কলা দ্রুত পাকে এবং কলা দেখতে খুব সুন্দর দেখায়, তাই কাস্টমাররা এসব কলা কিনে নিয়ে যায়। এতে আমাদেরও লাভ হয় বেশি। কৃত্রিমভাবে পাকানো কলা খুব দ্রুত পচেও যায়।
নির্বিকার চিত্তে কলা ব্যবসায়ী বলেন, সবাই মেশায় তাই আমিও মেশাই।

কেমিক্যাল মেশানোর প্রক্রিয়ার বিষয়ে এক ব্যবসায়ী জানান, কলা আমরা অনেক দূর থেকে নিয়ে আসি। আসতে আসতে তিনদিন লেগে যায়। আনার পর একটি বদ্ধ ঘরে রেখে রাসায়নিক ছিটানো হয়। ছিটানোর ফলে এই কলা জলদি পেকে যায়। আমাদের বিক্রি করতেও সুবিধা হয়। তাই তারা একসঙ্গে কলা পাকাতে রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার করেন।


এ বিষয়টি নিয়ে ডাক্তাররা বলেন, বিষাক্ত এসব দাহ্য পদার্থ মিশানো কলা খাওয়া স্বাস্থ্যে জন্য ক্ষতিকর এবং সাথে সাথে বমিভাব ও ডায়রিয়া হওয়ার আশঙ্কা বেশি থাকে। কেমিক্যাল মিশ্রিত কোন খাদ্য গ্রহণ করলে তার প্রভাব পড়ে লিভার ও কিডনীর উপর।
ওইসব খাদ্য গ্রহণের পরে তা দাহ্যে পরিণত হওয়ার পর নিঃসারণ ঘটে লিভার এবং কিডনির মাধ্যমে। ফলে কেমিক্যাল মেশানো খাদ্য শরীরের এই দুটি অংশের উপর প্রভাব ফেললেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রে কিডনিকেই বেশি ক্ষতিগ্রস্থ করে।

 

আপনার মতামত দিন:


কলাম এর জনপ্রিয়