Dr. Aminul Islam

Published:
2021-06-09 08:09:13 BdST

সিঙ্গাপুর হতে যাচ্ছে এক অরন্য নগরী


অধ্যাপক ডা শুভাগত চৌধুরী
বাংলাদেশের স্বাস্থ্যাচার্য
_______________________

সিঙ্গাপুর হতে যাচ্ছে এক অরন্য নগরী ।

সেই কবে গিয়েছি সিঙ্গাপুর , একবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সন্সথার ফেলশিপে আর কাজ করলাম সিঙ্গাপুর জেনারেল হাস্পাতাল আর এন ইউ এইচ।
কি চমৎকার ছবির মত নগরি ( দেশ) ।
সুশৃঙ্খল , সুশাসিত ।
এখন শুনছি টাটকা অক্সিজেনে ভরপুর এক নগরি বানাতে চলেছে সিঙ্গাপুর। ঘন অরন্য গড়ে উঠবে আর এর কোলে থাকবে মানুষের আবাস।
অবশ্য আমি যে দুবার গেছি দেখেছি পরিবেশ দূষণের কোন সুযোগ নেই সেই দেশে। আর শব্দদূষণ ত নয়ই । আমাদের দেশের যারা এখানে অবিরাম পরিবেশ দুষিত করছেন শব্দ বোমা ছেড়ে কান ঝালাপালা করেন ওরা ওখানে সুবোধ শান্ত ভদ্র। সুশীল । আশ্চর্য । পরিবেশ আর সুশাসন মানুষকে বদলে দেয়। যেদিকে যাবেন সবুজ। নাই গাড়ির আওয়াজ, কালো ধোঁয়া ,দারুন স্পিড , যান জট ।
এবারত ট্রাফিক মুক্ত নগরি হতে চলেছে । আমি রাস্তায় দেখেছি বেশির ভাগ ট্যাক্সি । রাস্তার পাশে দাঁড়ালে ট্যাক্সি পাশে এসে দাঁড়াবে ,। বাঁধা দর। কোন দরাদরি নাই বা বশি ভাড়া নেই।
এখন কি করে হবে সেই নগরি ট্র্যাফিক মুক্ত?
হা থাকবে চলাচলের যান কিন্তু সব মাটির নিচে। মাটির উপরে সবুজ বন আর ছায়া বীথি , শুধু সাইকেল আর পয়দল ।পায়ে হাটা ।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সেখানে একমাস থাকা খাওয়ার জন্য যে অর্থ বরাদ্দ করেছিল এতে এক মাস খুব উচ্চ মানের হোটেলে থাকা যায়না তবে আমরা তাই থাক্ লাম বি প স নামে আবাসে । সেখানে বাংলাদেশ ভারত পাকিস্তান আর শ্রী লঙ্কা থেকে আগত তারা থাকে আমরাও থাকলাম । মন্দ না । থাকা ,মানে রাতে সারাদিন সন্ধ্যে পর্যন্ত হাসপাতালে কাজ আর দুপুরে ওখানেই মুখে কিছু গুজে দেওয়া আর রাতে বিপ স এ আহার । মাঝে মধ্যে উইক এন্ড হলে পাশের মোস্তফা মার্কেটের পাশে ইনডিয়ান
হোটেলে বিরিয়ানি আর মাঝে মাঝে মান্সের ঝোল ভাত। দেখা হল বেশ কয়েক স্থান এর মধ্যে সিঙ্গাপুরে আমার হাসপাতালের সহকর্মীদের সৌজন্যে সেন্তসা আইল্যান্ড । জুরং বার্ড পার্ক , মেরিনা বে, চিড়িয়া খানা ।
ওদেশে মানুষ এত ভাল যে হাসপাতাল আর ল্যাবে কাজ করাও আনন্দ দায়ক অভিজ্ঞতা । দুদিন আমি হাস্পাতালে মিটিং রুমে একদিন বাংলাদেশের স্বাস্থ্য আরেকদিন কোলেস্টেরল এর উপর বক্তৃতা দিলাম
কোলেস্টেরলের উপর বক্তৃতা ওরা খুব উপভোগ করল কারন আমি বাস্তব অভিজ্ঞতা , জীবনাচরণ , পুষ্টি এসব মিলিয়ে বলাতে এদের ভাল লাগল , আমি রিসার্চ উপস্থাপন করলে এতো মজা পেতনা আর এরা রিসার্চ উপস্থাপনা প্রতিদিন শুনে কিছুটা বোর

যাহোক কোথা থেকে কোথায় এলাম।
আগের ব্যাপা রে ফিরে আসি।

সিঙ্গাপুরের নাম হবে ফরেস্ট টাউন বা অরন্য নগরী । একে তেনগা প্রকল্প ও বলা হচ্ছে। ৭০০ হেক্টর জমির উপর ৫ টি বাস যোগ্য জেলা নিয়ে এই শহরে থাকবে ৪২ হাজার বাড়ি ।
সিঙ্গাপুরের পশ্চিমের এলাকা যেখানে আগে সেনা বাহিনির প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ছিল ছিল এক বড় ইট ভাটা আর এর লাগোয়া বিশাল তেনাগা অরন্য।
তবে শহর হবে খুব ব্যয় বহুল । সাধারনের নাগালে থাকবেনা।
থাকবে ৫ টি বাসযোগ্য ডিসট্রিক্ট । এদের জীবিকার সন্সথান থাকবে। ১০০ মিটার চও ড়া বনভাগ, থাকবে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণের ব্যবস্থা। জলাধার। প্রমোদ ভ্রমনের ব্যবস্থা।
স্মার্ট সিটি সুচকে বিশ্বে প্রথম সিঙ্গাপুর । এশিয়ার সবুজতম দেশ বলেও খ্যাত। এখানে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রন , হাওয়ার চলাচল সব হবে নিয়ন্ত্রিত।
থাকবে স্মার্ট আলো । জন মানব হীন স্থানে এমনি আলো নিভে যাবে ।
বিদ্যুৎ সাশ্রয় হবে। থাকবে না আলাদা আলাদা বাতানুকুল । স্বয়ংক্রিয় বর্জ্য সংগ্রহ আর মাটির নিচে গমন। বিদ্যুতের ব্যবহার গ্রাহক দেখবেন প্রয়োগ করা হবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ।
আমাদের দেশ যারা চালান তারা বহুবার বার বার বিদেশ সেসব দেশের ভাল জিনিষ নিজ দেশে কাজে লাগাতে পারেন। অনেকের মাথায় শপিং আর বিত্ত বানানো থাকলে এসব কি করে হবে । ব্যতিক্রম আছে তবে এরা সংখ্যা লঘু ।

আপনার মতামত দিন:


মানুষের জন্য এর জনপ্রিয়