Ameen Qudir

Published:
2019-11-11 17:49:30 BdST

বাংলাদেশের এই ডাক্তারের কাছে থেকে দরিদ্র রোগীও সুচিকিৎসা না পেয়ে ফেরেন না




ডা. রশিদুল আলম সুজন
_________________________

বাংলাদেশের এই চিকিৎসকের কাছে থেকে কোন রোগী সুচিকিৎসা না পেয়ে ফেরেন না । তিনি তার সর্বাত্মক চেষ্টা করেন রোগীকে সুস্থতা দিতে। রোগী গরিব হোক, ধনী হোক, কেউ ফেরে না। যার ফি দেওয়ার ক্ষমতা নেই, তিনি তাকে দেন বিনা ফি তে চিকিৎসা। ওষুধপত্র পর্যন্ত কিনে দেন। এই ডাক্তারের নাম ডা. গনপতি আদিত্য। তিনি সহযোগী অধ্যাপক কার্ডিওলজি।

তার লোকসেবা সম্পর্কে কেউ তেমন জানতো না শুধু রোগীরা বাদে। এভাবেই চলছিল। রোগীর চাপ ও দাবি বাড়ছিল , তাই তিনি কিভাবে কে সেবা পাবেন , সে সম্পর্কে একটি নির্দেশিকা টাঙিয়েছিলেন তার চেম্বারে। ডা. গনপতি আদিত্য একদমই ভাবেন নি , তার এই ' সামান্য' কথাগুলো এভাবে ব্যাপক আলোচিত হবে। তিনি তার পেশাগত কাজের প্রয়োজনেই কথাগুলো লিখে রাখেন তার চেম্বারে। সেখান থেকেই তা কেউ ছবি তুলে আপলোড করে ইন্টারনেটে। তার পর তা হাজারো শেয়ার হয়েছে।


কি লেখা ছিল সেখানে:
লেখা ছিল:
যাদের জন্য ফিস দেয়ার প্রয়োজন নেই-

১. আমার সরাসরি সম্মানিত শিক্ষকগণ

২. বীর মুক্তিযোদ্ধা, বীরঙ্গনা ও তাদের স্বামী, স্ত্রী ও সন্তান (প্রথমবার অবশ‌্যই পরিচয়পত্রের কপি দিতে হবে)

৩. ভিক্ষুক ও হতদরিদ্র জন

৪. কবি (কমপক্ষে একটি প্রকাশিত কবিতার বই থাকতে হবে এবং এক কপি প্রদান করতে হবে)

# অন‌্যান‌্য ক‌্যাটাগরি ডাক্তারের নিজস্ব বিবেচনায় আছে।

ডা. গনপতি আদিত্য বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজর সহযোগী অধ্যাপক। কার্ডিওলজি। অত্যন্ত সজ্জন লোকসেবী চিকিৎসক।
পড়াশোনা করেছেন রংপুর মেডিকেলে।
তার সম্পর্কে নিকট জনেরা জানান, ছাত্রজীবন থেকেই বাংলাদেশের ডা. গনপতি রোগী সেবায় অন্তপ্রাণ। মেডিকেল জীবনের শেষ দিকে তার কাছে দরিদ্র রোগীরা আসতো। তিনি কাউকে ফেরাতেন না। এখনও তাই । টাকা থাকুক, বা না থাকুক , তিনি রোগীর সমান যত্ন নেন। তাকে বাঁচানোর আপ্রাণ চেষ্টা করেন।

আপনার মতামত দিন:


মানুষের জন্য এর জনপ্রিয়