Ameen Qudir

Published:
2019-10-11 12:17:27 BdST

মাইক্রোচিপ দিয়ে ডায়েবেটিস ১ বেশ আগে ধরা পড়বে



অধ্যাপক ডা. শুভাগত চৌধুরী

উপমহাদেশের প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ চিকিৎসক ও লেখক ___________________________________________

ডায়েবেটিস এখন সারা বিশ্বে মহামারী হয়ে আছে। বিশ্বের প্রায় ৪২২ মিলিয়ন লোক আছে এর করাল কবলে, আর তারা গ্রহন করছে জীবনভর ওষুধ। বিজ্ঞানের প্রচেষ্টা চলছেই এর নিরাময় সন্ধানে। তবে কি এই ক্রনিক রোগ পরাভূত হবে? হলেই বা কত দূরে আমরা?

বলা হয় থাকে অন্ধত্ব, কিডনি বিকল, হার্ট অ্যাটাক আর স্ট্রোকের বড় কারণ ডায়বেটিস। ৪০ বছর আগে যে পরিমান ডায়বেটিস ছিল, ইতিমধ্যে তা বেড়েছে এর ৪ গুণ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমান, অচিরেই ডায়বেটিস হয়ে উঠবে মানুষের মৃত্যুর ৭তম প্রধান কারণ। এখনও এর নিরাময় নেই, এখনও এর দীর্ঘ মেয়াদি জটিলতা সমস্যা হয়ে আছে।

ডায়েবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে হরমোন ইনসুলিন। অগ্ন্যাশয় থেকে নিঃসৃত এই হরমোনের প্রয়োজন দেহকোষে গ্লুকোজ অধিগ্রহণের জন্য। আর এর অভাব হলে রক্তে বেড়ে যায় সুগার।

আছে টাইপ-১ ডায়েবেটিস, এক অটোইমুন রোগ, এতে ইনসুলিন উৎপাদনকারী অগ্ন্যাশয়ের বিটাকোষ ধ্বংস হয়ে যায়। জীবনভর এদের ইনসুলিন, ইঞ্জেকশন নিতে হয়। বিপরীতপক্ষে, টাইপ-২ ডায়েবেটিস হলে হয় ইনসুলিন রেজিস্ট্যান্স, ইনসুলিন কার্যকারিতা হারাতে থাকে, রক্তে গ্লুকোজ সুস্থির রাখার ক্ষমতা ক্রমে ক্রমে নষ্ট হতে থাকে। এদের জীবন-যাপনে পরিবর্তন এনে, স্থূল থাকলে মেদ কমিয়ে, ব্যায়াম করে, খাদ্য বিধি মেনে, প্রয়োজনে ওষুধ দিয়ে নিয়ন্ত্রনে রাখতে হয়।

টাইপ-১ ডায়েবেটিসের ক্ষেত্রে চেষ্টা করা হচ্ছে সেল থেরাপি অগ্ন্যাশয়ের হারিয়ে যাওয়া বিটাকোষ প্রতিস্থাপন করে কিভাবে আবার ইনসুলিন নিঃসরণ ফিরে পাওয়া যায়। আর এতে হবে নিরাময়।

আইলেট প্রতিস্থাপন কি দূরগত সম্ভাবনা?

যেহেতু টাইপ-১ ডায়েবেটিস অটোইমুন রোগ, তাই এর উৎসমূল কি ইম্যুনো থেরাপি দিয়ে আক্রান্ত করা সম্ভব? আরও বিকল্প কৃত্রিম প্যান ক্রিয়াস? টাইপ-২ ডায়েবেটিসের জন্য ইনসুলিন উৎপাদন উদ্দীপিত করা। গত ৪০ বছর ধরে মুখে খাবার ওষুধ আর ইনজেকশন আছে এরপরও গ্লুকোজ ভালো নিয়ন্ত্রণ তা বলা যাবে না। এরপর বিজ্ঞানীদের লক্ষ্য মাইক্রো বীয়োম (বিশেষ করে গাট মাইক্রো বীয়োম) আর একটি সম্ভাবনা সুচ বিহীন বিপ্লব।

আগামী আরও ভাবনাঃ

মাইক্রোচিপ যা দিয়ে ডায়েবেটিস ১ হওয়ার বেশ আগে ধরা পড়বে। আর ন্যানো রোবটস যারা রক্ত স্রোতে বহমান থেকে রক্তের গ্লকোজ মাপবে আর পরিমাণ মতো ইনসুলিন জোগান দেবে।

শুধু কথার কথা নয়, নিকট আগামীতে মাইক্রো রোবটিক্স হবে ওষুধ গ্রহণ আর দেহে সরবরাহের এর একটি উল্লেখযোগ্য অংশ।

আপনার মতামত দিন:


মানুষের জন্য এর জনপ্রিয়