Ameen Qudir

Published:
2019-09-25 10:15:43 BdST

বিষন্নতা থেকে সুস্থ হওয়া কিশোরী এখন বিশ্বখ্যাত অভিনেত্রী: খুললেন লিভ লাভ লাফ ফাউন্ডেশন


 

ডেস্ক/ সংবাদ সংস্থা
__________________________

দীপিকা পাড়ুকোন নিজে দীর্ঘকাল বিষন্নতার রোগী ছিলেন। একা একা থাকতে পছন্দ করতেন। খুব কষ্টের ছিল দিনগুলো। কৈশোর থেকে তারুণ্যে পা দেবার দিনগুলোয় ওই মনোরোগের শিকার হন তিনি। ছিলেন গুরুতর ও সি ডি রোগী। তার বাবা মা সবাই তার পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। দীপিকা পাড়ুকোন মনোআরোগ্য সেবালয়ে চিকিৎসা নেন। সুস্থ হয়ে ওঠেন সম্পূর্ণ। পরে বিষন্ন সেই কিশোরী এখন বিশ্বখ্যাত অভিনেত্রী। ভুলে যান নি সেসব দিন । তাই নিজেই এখন মানসিক স্বাস্থ্য সচেতনতার এম্বাসাডর।
নিজ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠা করেছেন লিভ লাভ লাফ ফাউন্ডেশন। স্বজন ও সহযোগীদের নিয়ে সম্প্রতি এ বিষয়ে একটি লেকচার সিরিজ উদ্বোধন করেছেন দীপিকা।
দীপিকার এই দাতব্য প্রতিষ্ঠানটি ২০১৫ সালে যাত্রা শুরু করে। যারা মানসিক চাপ, দুশ্চিন্তা ও হতাশায় ভোগেন তাদের মাঝে আশার আলো ছড়িয়ে দেওয়াই এর লক্ষ্য। এই লক্ষ্যে ‘লিভ, লাভ, লাফ’ শিরোনামে লেকচার সিরিজের প্রথম সংস্করণ উদ্বোধন করা হয়েছে।
দীপিকার অনুষ্ঠানে উপস্থিত শর্মিলা ঠাকুর
প্রথম লেকচারটি প্রদান করেছেন পুলিৎজার পুরস্কারজয়ী লেখক এবং পদ্মশ্রী ভূষিত ড. সিদ্ধার্থ মুখার্জী। দিল্লির তাজমহলে অনুষ্ঠিত এই আয়োজনে দীপিকা পাড়ুকোনের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন অনিশা পাড়ুকোন, প্রকাশ পাড়ুকোন, উজ্জ্বলা পাড়ুকোন, শর্মিলা ঠাকুর, আয়ুষ্মান ভারতের প্রধান নির্বাহী ইন্দু ভূষণ, নীতি আয়োগের প্রধান নির্বাহী অমিতাভ কান্ত, ড. রেনু স্বরূপ, ড. বলরাম ভার্গব, অধ্যাপক বিজয় রাঘব প্রমুখ।

 

দীপিকার বাবা প্রকাশ পাড়ুকোন এবং মা উজ্জ্বলা  পাড়ুকোন_________

লিভ লাভ লাফ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা দীপিকা বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে নানান পেশার ব্যক্তিত্বকে এই লেকচারে আমন্ত্রণ জানানো হবে। বিশেষ করে মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে যাদের উৎসাহ আছে তাদের অভিজ্ঞতা সবাইকে জানানোর জন্যই এই উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।

 

দীপিকার বোন অনিশা পাড়ুকোন____________

দীপিকা মনে করেন, মানসিক স্বাস্থ্য সচেতনতায় মিডিয়ার অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার সুযোগ আছে। এজন্য তিনি মিডিয়াগুলোকে এগিয়ে আসতে উদাত্ত আহ্বান জানান।

আপনার মতামত দিন:


মানুষের জন্য এর জনপ্রিয়