Ameen Qudir

Published:
2019-08-02 11:22:47 BdST

ডেঙ্গু থেকে জীবনরক্ষায় যা করবেন , যা করবেন না


 


ডা. সুলতানা এলগিন
মটিভেশনাল জনকর্মী।
সহযোগী অধ্যাপক , মনোরোগবিদ্যা বিভাগ,
কনসালটেন্ট, ওসিডি ক্লিনিক।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা।
___________________________

শুরুতেই বলে রাখি , ডেঙ্গু বা ডেঙ্গি রোগ নিয়ে অকারণ আতঙ্কিত হবেন না। ভয় পাবেন না। বিশেষজ্ঞগন আশ্বস্ত করছেন, ডেঙ্গু মরণব্যাধি নয়: অবহেলা ও বিলম্ব চিকিৎসায় রোগীর মারাত্মক অবনতি ঘটে। দ্রুত সঠিক চিকিৎসায় নিরাময় হবেই।
তাই কোন রকম আশঙ্কা হলে হাসপাতালে আসুন। পরীক্ষা করান। অনলাইনে যতই উদ্দেশ্যমূলক অপপ্রচার থাকুক, বাংলাদেশের শীর্ষ চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিকেল ,চট্টগ্রাম মেডিকেল,মিটফোর্ড, সোরাওয়ার্দী হাসপাতাল সহ সকল পর্যায়ের সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা ডেঙ্গির বিরুদ্ধে সর্বাত্মক লড়াই ও সেবায় নিয়োজিত। এর মধ্যে ইদের সরকারি ছুটি বাতিল করা হয়েছে। ডাক্তারদের ওপর আস্থা রাখুন। তারা নিজেদের জীবন বাজি রেখে সেবা করছেন।

কি করবেন, কি করবেন না

১. কোন রকম আশঙ্কা হলে হাসপাতালে আসুন। পরীক্ষা করান। হাসপাতালে বা স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানে আসতে দেরী করবেন না। জ্বর হলে দেখি না কি হয়, কোন পরীক্ষা নীরিক্ষা করবেন না। ওটা ডাক্তারদের ওপর ছেড়ে দিন।

২. অনলাইন নানা অপপ্রচার ও মিডিয়ার উদ্দেশ্যমূলক অপপ্রচারে বিভ্রান্ত হবেন না। ডাক্তাররাও মানুষ। তারা যন্ত্র নন। ঈশ্বরও নন। তাদের টুক টাক ভুল হতে পারে। কিন্তু সেটা এতই কম যে, গোনার মধ্যেই আসে না। প্রতি হাসপাতালে সর্বাত্মক ডেঙ্গি চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। প্রায় ১০০ শতাংশ ক্ষেত্রে ডাক্তাররা সঠিক পথে চিকিৎসা দিচ্ছেন। তবে যে শোকাবহ কিছু ঘটনা ঘটছে, তা বেশীর ভাগ ভুক্তভোগী পরিবারগুলো অজ্ঞতাপ্রসূত অবহেলার জন্য। এক্ট অব গডও খুবই কম।

 

৩. ধরা যাক, আপনার আমার বাসায় বা বাড়িতে কারও ডেঙ্গি হয় নি। সেজন্য আত্মপ্রসাদ লাভ করবেন না। বরং এজন্য স্বস্তি বোধ করার পাশাপাশি কতগুলো সামাজিক কাজ করুন।

৪. প্রথমে নিজের বাসা বাড়ি ভাল করে দেখুন। কোথাও এডিস মশা জন্ম সহায়ক জল জমতে দেবেন না।

৫. পুরো ঘরবাড়ি পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন। এটা চাইলে সম্ভব। আমি সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রর এক শহরে ওসিডির বিশ্ব সম্মেলনে অংশ নিয়ে এলাম। এই সুযোগে আমেরিকার পাঁচটি বড় নগরী ঘুরে এলাম। বাঙালী দের বাসাবাড়িতেই ছিলাম। সেখানে দেখেছি, মাত্র তিন চারজন বাঙালির এক একটি পরিবার দশ কাঠার ওপর করা বিশাল ডুপ্লেক্স বাড়ি ও সংলগ্ন এলাকা গৃহকর্মী ছাড়াই কিভাবে পরিস্কার করে রাখছেন।
আমরা বিদেশে গিয়ে যদি বাড়ি ঘর কোনরকম গৃহকর্মী ছাড়াই পরিস্কার রাখতে পারি, তবে বাংলাদেশে বা বাংলায় বা ভারতবর্ষে বসে কেন নিজের বাড়িঘর পরিচ্ছন্ন রাখতে পারবো না। নিজেকে প্রশ্ন করুন। আত্ম উপলব্ধি করে আসুন কাজে নেমে পড়ি ।

 

৬.আজ শুক্রবার । ছুটির দিনে পুরো বাড়ি বা বাসা আসুন ভাল করে পরিচ্ছন্ন করি। এ কাজে বিলম্ব বা গাফিলতি করবেন না।

৭. সরকারকে বা দুর্বল সিটি করপোরেশনকে দোষ দিয়ে লাভ নেই। ওসব আপনার আমার মত দোষের গুণের মানুষ পরিচালনা করছে। তাদের ভরসায় থাকবেন না। বরং নিজের ওপর ভরসা করুন।

৮. তেল মালিশ, হারপিক, ব্লিচিং পাউডার জাতীয় শয়তানি মস্তিষ্কের প্রচারণাায় বিভ্রান্ত হবেন না। ওসবে কান দেবেন না। বরং ডাক্তারের ওপর ভরসা করুন। চিকিৎসকদের দেয়া গাইড লাইনের ওপর ভরসা করুন। সেগুলো অনুসরণ করুন।

৯. আপনার আমার বাসা পরিস্কার করে এবার আসুন আশে পাশে নজর দেই। কারও বাসা বাড়িতে জল জমে থাকা নজরে এলে আসুন সবিনয়ে সেই বাসার লোকজনকে জানাই। এ নিয়ে অপ্রীতি নয়। দোষারোপ নয়। পরস্পর বন্ধন গড়ে তুলি।

 

১০. আপনার আমার বাসায় গৃহকর্মী থাকতে পারে। তাদের জ্বর জ্বারি হলে দেখি না কি হয় ভঙ্গীতে বসে না থেকে আসুন তাকেও হাসপাতালে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যাই। আমাদের নিজেদের স্বজনদের ক্ষেত্রে বিলম্ব চিকিৎসায় যেমন ক্ষতি, তেমনি এই জরুরি প্রয়োজনীয় মানুষদের জীবন মহামূল্য। তাদের সেবায় গাফিলতি যেন না করি।

১১. যেসব স্বজন কাছে পিঠে থাকেন না, এমন আত্মীয়দের আসুন খোঁজ খবর নেই। তাদেরকে সতর্ক ও সচেতন করি। ঢাকা বাইরে যারা আছেন, তাদেরকে সচেতন করি।

১২. ডেঙ্গি রোগ মোকাবেলায় কলকাতা দারুণ সাফল্য দেখিয়েছে। সেটা যেমন কলকাতার মেয়রদের গুনপনায় হয়েছে, তেমনি সবচেয়ে বড় কর্মতৎপরতা চালিয়েছেন কলকাতার বাসিন্দারা। তারা বাড়ি পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করে ডেঙ্গি তাড়িয়েছেন। আসুন আমরাও নজির স্থাপন করি।

আপনার মতামত দিন:


মানুষের জন্য এর জনপ্রিয়