SAHA ANTAR

Published:
2022-09-28 11:51:51 BdST

"কেন যে ২৫ কোটি টাকার র লটারি জিতলাম" বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন অনুপ






সংবাদ সংস্থা
_____________

অনুপ। বয়স ৩০ বছর। পেশায় তিনি একজন অটোরিকশাচালক। স্ত্রী–সন্তান নিয়ে অভাবের সংসার অনুপের। তাই তো কাজের খোঁজে মালয়েশিয়ায় যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন। ছেলের জমানো অর্থে মালয়েশিয়ায় যাওয়ার বন্দোবস্তও হয়। এ মাসের শুরুতেই মালয়েশিয়ায় যাওয়ার কথা ছিল তাঁর। কিন্তু অনুপ মালয়েশিয়ায় যাওয়ার এক দিন আগে সরকারের একটি লটারিতে ২৫ কোটি রুপি জেতার খবর পান। তাঁর জীবনে বিপত্তিরও শুরু এখানেই।

 


লটারি জেতায় গণমাধ্যমের নজরে আসেন অনুপ। গণমাধ্যমকর্মীরা তাঁর বাড়িতে ভিড় করতে শুরু করেন। অনুপের লটারি জেতার খবর জানাজানি হয়ে যাওয়ার পর সাহায্যপ্রার্থী অসংখ্য মানুষের ভিড় লেগে যায় তাঁর বাড়িতে। প্রথমে খুশি হলেও এখন সবার যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ অনুপ বলছেন, "কেন যে ২৫ কোটি টাকার র লটারি জিতলাম; লটারি না জিতলেই ভালো হতো।"

লটারি জেতার এক সপ্তাহের মাথায় অনুপের বিরক্তি চরম সীমায় ওঠে। তখন নিজের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম অ্যাকাউন্টে একটি ভিডিও পোস্ট করেন তিনি। সেখানে অনুপকে বলতে শোনা যায়, লটারি জেতার পর থেকেই অসংখ্য মানুষ আর্থিক সাহায্য চেয়ে তাঁর দ্বারস্থ হচ্ছেন। তাঁর বাড়িতে ভিড় করছেন। এত আবদার আর নিতে পারছেন না তিনি। আবার সবাইকে তা বুঝিয়েও পরিস্থিতি সামাল দিতে পারছেন না। তাই সবাইকে তাঁর বাড়িতে না আসার অনুরোধ জানান অনুপ।


তাঁকে ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের বিরক্ত না করার অনুরোধ জানিয়ে অনুপ ওই ভিডিওতে বলেন, ‘এখন মনে হচ্ছে, লটারিটা যদি না জিততাম! এর চেয়ে তৃতীয় পুরস্কার পেলে ভালো হতো।’ মানুষের এত জ্বালাতন থেকে বাঁচতে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বাড়ি অন্যত্র স্থানান্তরের কথাও ভাবছেন বলে সেখানে জানান অনুপ। নিজে বাড়ি ছাড়া। পালিয়ে অন্য বাড়িতে থাকেন।

অনুপের লটারি জেতা নিয়ে ভারতের জাতীয় গণমাধ্যমগুলোও খবর প্রকাশ করেছিল। অবশ্য এর কারণও আছে। কারণ, এর আগে কেরালা রাজ্যে কেউ এত বড় অর্থমূল্যের লটারি জেতেনি। অনুপ ওই লটারি কিনেছিলেন ১৭ সেপ্টেম্বর। পরদিন তাঁর মালয়েশিয়ায় যাওয়ার কথা ছিল। মাটির ব্যাংকে ছেলের জমানো অর্থ দিয়ে মালয়েশিয়ায় যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন তিনি। কিন্তু লটারি জেতার কারণে তাঁর আর মালয়েশিয়ায় যাওয়া হয়নি। এখন বাড়িঘর ছাড়ার কথা ভাবছেন।

অনুপ বলেন, ‘লটারি জেতার খবর পেয়ে খুব খুশি হয়েছিলাম। মানুষজন ও গণমাধ্যমকর্মীরা ক্যামেরা নিয়ে আমার বাড়িতে এসে কথা বলছিলেন। এসব নিয়ে খুব খুশি ছিলাম। কিন্তু দ্রুত পরিস্থিতি বদলে যায়। এখন বাড়ি ছেড়ে কোথাও যেতে পারছি না। সন্তান অসুস্থ কিন্তু তাকেও চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যেতে পারছি না।’

লটারির পুরো ২৫ কোটি রুপি অবশ্য পাবেন না অনুপ। সরকারি কর কাটার পর মোট ১৫ কোটি দেওয়া হবে তাঁকে। অনুপ বলেন, ‘আমার লটারি জেতার খবর জানাজানি হওয়ার পর থেকে প্রতিদিন সকাল হলে মানুষজন আমার বাড়িতে ভিড় করতে শুরু করে। আমি সবাইকে বলি, আমি লটারি জিতেছি কিন্তু লটারির ওই অর্থ আমাকে এখনো দেওয়া হয়নি। এখনো আমি এক রুপিও পাইনি। কিন্তু অসংখ্যবার সবাইকে এ কথা বলার পরও কেউই আমার সমস্যা বোঝার চেষ্টা করেনি।’


অনুপ আরও বলেছেন, মানুষের কাছ থেকে পালিয়ে বাঁচার জন্য তিনি ও তাঁর পরিবার এখন আত্মীয়দের কাছে চলে গেছেন। এদিকে কেরালা রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, অনুপের জন্য এক দিনের প্রশিক্ষণ কর্মসূচি আয়োজন করা হবে, যাতে করে তিনি এ অর্থ কীভাবে ব্যবহার করবেন, তার ধারণা পেতে পারেন।

আপনার মতামত দিন:


কলাম এর জনপ্রিয়