SAHA ANTAR

Published:
2022-09-25 08:46:41 BdST

বিবাহ-সমস্যা :" প্রেগনেন্ট প্রেমিকাকে ছেড়ে অন্য মেয়েকে বিয়ে করেছিলাম, এখন স্ত্রী সব জানে: কী করি?"


সুখের আড়ালে অসুখ। প্রতিকী ছবি

 

ইন্দ্রানী বসু

_____________

এই ব্যক্তি প্রেমিকার সঙ্গে লিভ ইন সম্পর্ক(Live In) ছিলেন। তখন তাঁদের সন্তান হয়। এরপর তিনি পরিবারের চাপে অন্য একজনকে বিয়ে করেন। স্ত্রী সব জেনে গিয়েছে। কী করবেন? বিশেষজ্ঞের পরামর্শ রইল;

প্রশ্ন: আমি এখন খুব খারাপ একটি পরিস্থিতির মধ্যে আছি। এই পরিস্থিতি যে কখনও আমার জীবনে আসতে পারে, তা আমি আগে ভাবিনি। আসলে আমিই হয়তো খুব খারাপ কাজ করেছি। একজন মেয়েকে আমি ভালোবেসেছি(Live In)। কিন্তু তারপরেও আমি যা করেছি, তার কোনও ক্ষমা হয় কিনা জানি না। এখন আমি প্রচণ্ড কষ্টের মধ্যে আছি।

কী করব তাও বুঝতে পারছি না। কী করা উচিত হবে তাও স্পষ্ট নয় আমার কাছে। কী ভাবে সম্পূর্ণ পরিস্থিতি আবার আগের মতো করব। সব ঠিক হবে আমাদের মধ্যে, তা জানি না। আমায় একজন বিশেষজ্ঞ পরামর্শ(Relationship Tips) দিয়ে সাহায্য করুন। আমি সম্পূর্ণ ঘটনা বিস্তারিত বলছি।

ঘটনাটি ঠিক কী?

সবাইকে আমার পরিচয় দিতে পারলাম না। আমি আমার প্রেমিকার সঙ্গে লিভ ইন করতাম। সেই সময় আমাদের একটি সন্তান হয়। আমরা দ্বিতীয় সন্তানের জন্য অপেক্ষা করছিলাম।

আমার প্রেমিকা গর্ভবতী ছিলেন। কিন্তু আমার ভাগ্যে লেখা ছিল অন্য কিছু। আমার বাবা ও মা আমায় অন্য একটি মেয়েকে বিয়ে করতে বাধ্য করেন। সেই মেয়েটির পরিবার দীর্ঘদিন ধরে আমাদের পরিবারিক বন্ধু।

আমরা একে অপরকে চিনতাম। এরপর আমার লিভ ইন গার্লফ্রেন্ড আমার বিয়ের কথা জানতে পারেন। আমায় ছেড়ে বাচ্চাদের নিয়ে চলে যায়। আমার পরিবারও সেই কথা জানতে পারে। এমনকী আমার স্ত্রীও আমায় ছেড়ে চলে যাওয়ার হুমকি দিচ্ছে। আমি মানছি, এটা আমার ভুল ছিল।

আমার পরিবারকে সম্পর্কের কথা জানানো উচিত ছিল। আমি আমার সঙ্গীকে এবং সন্তানকে ছাড়া থাকতে পারব না। কিন্তু ও আমার সঙ্গে এখন কোনও যোগাযোগই রাখতে চায় না। আমি কিছু বুঝতে পারছি না। আমার ভীষণ মন খারাপ লাগছে। কী করব এখন? অনুগ্রহ করে আমায় সাহায্য করুন।

বিশেষজ্ঞের পরামর্শ

উত্তর দিচ্ছেন কামনা ছিব্বার। আমাদের লিখে পাঠানোর জন্য ধন্যবাদ। আপনি যে আমাদের সমস্যার কথা জানিয়েছেন, তা শুনে আমরা খুশি হলাম। যাই হোক, আমরা বুঝতে পারছি, আপনি একটি খুব কঠিন পরিস্থিতির মধ্য়ে আছেন।

প্রথমে আপনাকে বুঝতে হবে যে, আপনি ঠিক কী করতে চান ও কী চান। আপনি বিবাহিত। আপনার স্ত্রী আছেন। আবার আপনার একজন সঙ্গীও আছেন, যার একজন সন্তান আছে। আপনার কাছে একাধিক চয়েস থাকতেই পারে। কিন্তু আপনাকে একটি সিদ্ধান্ত নিতেই হবে। কারণ, এই কঠিন পরিস্থিতিতে আপনি কী করবেন, তা বুঝতে হবে আপনাকে।

এই পরিস্থিতিতে মন খারাপ হওয়াই স্বাভাবিক

আপনি এমন একটি পরিস্থিতিতে আছেন, যেখানে আপনার মনখারাপ হওয়াই স্বাভাবিক। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে শুধুই নিজের কথা ভাবলে চলবে না। বরং, অনেকেই এই পরিস্থিতিতে যন্ত্রণার মধ্য়ে আছেন। সবাইকেই এই খারাপ পরিস্থিতিতে জড়িয়ে ফেলেছেন আপনি।

অনেকগুলো সম্পর্ক এর জন্য সাফার করছে। যেমন, আপনার পরিবার, স্ত্রী এর মধ্যে তো আছেনই। এছাড়াও আপনার ছোট্ট সন্তান ও আপনার পার্টনার কিন্তু এই পদক্ষেপের জন্য খুব কষ্ট পাচ্ছে। সবার উপরেই খুব মানসিক চাপ পড়েছে।

আপনার যা করা উচিত

কখনও কখনও আগে এগিয়ে যাওয়ার হলে এক পা পিছিয়ে আসতে হয়। তাড়াতাড়ি করে কোনও সিদ্ধান্ত নেবেন না। ধীর স্থির হয়ে বসুন। একবার ভাবুন প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত। আপনি কী করেছেন, কী কাজ করতে চলেছেন, কী ভুল ইতিমধ্য়েই করে ফেলেছেন। এই সব কথা আরও একবার নতুন করে ভাবুন। কারণ, এই মুহূর্তে আপনি সেরকম কাউকে পাশে পাবেন না। পাশে না পাওয়াই হয়তো স্বাভাবিক। তাই এবার এই একা সময়ে নিজেকেই ভাবতে হবে। তাই বসে সম্পূর্ণ ঘটনাটা ভাবুন।

অন্যের কথাও ভাবুন

এমন একটা পরিস্থিতিতে আপনি আছেন, যা আপনাকে আরও খারাপ পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিতে পারে। যদি এই মুহূর্তেই আপনি একটি সঠিক সিদ্ধান্ত না নিতে পারেন। তাই এটা আপনার জন্যে খুব গুরুত্বপূর্ণ সময়। নিজের দুঃখ যন্ত্রণা পাশে সরিয়ে রেখে এবার এই এতগুলো সম্পর্কের কথা ভাবুন। হয়তো সবার সমর্থন আপনি পাবেন না। পাশে কাউকে পাবেন না। কিন্তু আপনাকেই দৃঢ় সিদ্ধান্ত নিতে হবে। প্রয়োজনে একজন থেরাপিস্টের সাহায্যও নিতে পারেন। যা আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করবে। তাঁর কাছে সব কথা খুলে বলুন। হয়তো সেখান থেকেই আলোর উৎস বেরিয়ে আসবে।
সৌজন্য এই সময়

___________

আপনার মতামত দিন:


কলাম এর জনপ্রিয়