ডেস্ক

Published:
2021-05-04 13:39:27 BdST

বিল ও মেলিন্ডার তালাক বাংলাদেশী ঘটনা হলে যে সব ভয়ঙ্কর ঘটনা ঘটতো


 

ডা. জোবায়ের আহমেদ
_________________
বিশ্বের অন্যতম ধনী, ১২৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের মালিক, সারা জাহানে ব্যাপকভাবে পরিচিত বিল গেটস ও মেলিন্ডা গেটস তাদের ২৭ বছরের দাম্পত্য জীবনের ইতি টেনেছেন।
টুইটারে এই ঘোষণা দিলেন তারা দুজন।
অনেক চিন্তাভাবনা করেই তারা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।
তারা বলছেন
We no longer believe we can grow together as a couple in this next Phase of our lives.
আমাদের দেশেতো দেখি হাহাকার পড়ে গেছে।
মানুষজন নানা গবেষণা শুরু করে দিয়েছেন।
তাদের মতামত ও রিয়েকশন জানাচ্ছেন।
নানাধরণের ট্রল ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গেছে যেগুলো নারী পুরুষ দুই পক্ষের জন্য অপমানজনক।
অন্যের জীবন নিয়ে চর্চা করার, আড্ডায় অন্যকে নিয়ে মাতামাতি ও নিন্দা করার মত বদ অভ্যাস আমাদের পুরানো রোগ।আমরা মানুষকে নিয়ে কাল্পনিক কথা বলতে আরাম পাই।আমরা জানিনা দু'জন মানুষের জীবনের সব গল্প, লুকানো বিষাদ,অব্যক্ত কথা।
তারপরও আমরা কেন অন্যকে নিয়ে মেতে থাকি?
আমাদের দেশে হলে ছিঃ ছিঃ পড়ে যেতো।
নানা মানুষ নানা মুখরোচক খবর দিয়ে বেড়াতেন।
আমাদের পত্রিকাগুলো অনুসন্ধানী নিউজ ছাপাতো।
কেউ বলতো বুইড়া বামের ভীমরতী ধরছে।
কেউ হাজির হতেন পরকীয়া তত্ত্ব নিয়ে।
কেউ হাজির হতেন বিল গেটস মেলিন্ডার মায়েদের ভূমিকা নিয়ে।
কেউ বলতো মেলিন্ডা লোভী।সব লুটে নিয়ে এখন বিলকে ছেড়ে গেছে।
কারো কারো জন্যতো এটা বিস্ময়কর ব্যাপার এমন ধনী একজন পুরুষকে ডিভোর্স দেওয়া যায়?
কল্পনাকেও হার মানানোর মত ঘটনা।
ঘরে ঘরে ভাবীরা, খালামনিরা মেলিন্ডার মুন্ডুপাত করতে থাকতেন এবং আফসোস করতেন এমন ধনকুবের পুরুষকে ছেড়ে মেলিন্ডা কতবড় ভুল করলো এবং এখন তার কি হবে?
কেউ বলতো,বিল গেটস এর মুখোশ খুলে গেছে।
বাইরে মানবিক মানুষ সেজে থাকলেও সে একজন দুঃশ্চরিত্র মানুষ এবং নারী নির্যাতনকারী।
ইতিমধ্যে নারী নির্যাতন মামলা হয়েও যেতো।
অনেক আইনজীবীরা মেলিন্ডার পাশে বিনা পারিশ্রমিকে আইনী সেবা দিতে এগিয়ে আসার ঘোষণা দিতেন।
নারীবাদীরা সোশ্যাল মিডিয়ায় বিলের শাস্তি চেয়ে নানা প্রবন্ধ লিখতো,মানববন্ধন করতো।
বিলের পক্ষের মিডিয়া খবর দিতো মেলিন্ডার কয়টা গোপন প্রেম আছে,সে কিভাবে পোশাকের মত প্রেমিক পাল্টাতো এবং কিভাবে বিল গেটসকে নিয়মিত ধোঁকা দিয়ে যেতো।
বিল ও মেলিন্ডা দুইজনেই ফেসবুকে লম্বা লম্বা পোস্ট লিখতো।দুইজনের ওয়ালে আমরা হুমড়ি খেয়ে পড়তাম।ছেলেরা মেলিন্ডাকে ফেরেশতা তুল্য বলে সব সাপোর্ট দেওয়ার অঙ্গীকার করে ফেলতো।তারা বিলের শাস্তি চাইতো।অনেক মেয়েরা বিলের পক্ষ নিয়ে মেলিন্ডাকে কুটনী মহিলা বলে বিলকে সান্ত্বনা দিতো। এবং যেকোনো প্রয়োজনে দিনরাত তারা বিলকে আগলে রাখার কথা জানাতো।
মেলিন্ডা ও বিল দুইজন দুইজনকে ফেসবুক আদালতের মুখোমুখি করে কে কতটা খারাপ তা প্রমাণে ব্যস্ত হতো।
মেলিন্ডা বলতো,শুধু আমার মত নারী দেখেই এই বুড়ো টাকাওয়ালা খাটাসের সংসার করলাম ২৭ বছর।
আমার সাধারণত অন্যের জীবন নিয়ে আগ্রহ নেই।
আমি কখনো কারো প্রাইভেট স্পেসে ঢুকে পড়িনা।
কারো ব্যক্তিজীবন নিয়ে পরচর্চা করার মত জগণ্য রুচি আমার নেই।
আমি শুধু ভাবলাম আমাদের দেশের পুরুষ ও মহিলারা এমন সুন্দর ভাবে পারস্পরিক সম্মান বজায় রেখে একটা দীর্ঘ বছরের দাম্পত্যের ইতি টানতে সক্ষম কিনা?
জীবনের গল্প গুলো কল্পনার চেয়েও বড় বেশি নাটকীয়।
বিল ও মেলিন্ডা তাদের দাম্পত্য জীবনের ছন্দ হারিয়েছেন। কি কারণ তা জানার দরকার আমার নেই।
তারা সুন্দর ভাবে একটা দাম্পত্য শেষ করার ঘোষণা দিয়েছেন এবং একসাথে তাদের প্রতিষ্ঠিত মেলিন্ডা এন্ড বিল গেটস ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে একসাথে কাজ করে যাবেন বলেছেন।
আমাদের দেশে ডিভোর্স এর পর দুইজন একসাথে কাজ করতে পারার কথা চিন্তাও করা যায়না।
কারো বিরুদ্ধে কারো অভিযোগ নেই।
তাদের মিলছেনা আর।
তারা ভেঙে দিয়েছেন।
তাদের দুইজনকে অভিনন্দন।
আমাদের দেশেও অনেক দম্পতি এমন টানাপোড়েনের দাম্পত্য বয়ে যান। তাদের সাহস নেই।
তারা ভাবেন মানুষ কি বলবে,সমাজ কি বলবে।
অনেকের পরিবার কখনোই ডিভোর্স মেনে নেয়না।
আমার পরিচিত একজন ডাক্তার মেয়ে অনেক চেষ্টা করেও ডিভোর্স দিতে পারেনি।
এই নরকের দাম্পত্য সে চায়না কিন্ত তার মা চায়।কারণ ছেলের অনেক টাকা,বাড়ি গাড়ি।
আবার ডিভোর্স ইস্যু করে অনেকেই অনেক পুরুষের ক্যারিয়ার ও জীবন তছনছ করে দেন।
বিল ও মেলিন্ডার ২৭ বছরের দাম্পত্য ও ৭ বছরের বিয়ের আগের প্রেম। দীর্ঘ সময় তারা একসাথে।
দুই মেয়ে ও একছেলেকে বড় করেছেন একসাথে।
কোন কিছুর দোহাই দিয়ে তারা একসাথে থাকতে চাননি।
তাদের বাচ্চারাও নিজেদেরকে অসহায় ভাবছেনা।
মনের বিরুদ্ধে তারা এই দাম্পত্য এগিয়ে নিতে অনিচ্ছুক।
এবং তাদের দেশ ও সমাজ তাদেরকে মনের কথা শুনে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য নিন্দা করেনা।
আমাদের দেশে পুরো ভিন্ন চিত্রই দেখা যেতো।
এবং আশেপাশের মানুষ মনের আনন্দে কেউ বাঁচতে চাইলে তাদের জীবন নরক বানিয়ে ফেলতো।
সম্পর্ক ও ক্যান্সার ভাবনা শিরোনামে আমার একটা লেখা আছে।
যখন একটা দাম্পত্য বা রিলেশন ক্যান্সারের মত হয়ে যায়,তখন দ্রুতই তা শেষ করে মুক্ত হয়ে গেলে দেহ ও মনের জন্য তা উত্তম।
বিল ও মেলিন্ডা গেটস এর জন্য শুভকামনা।

আপনার মতামত দিন:


কলাম এর জনপ্রিয়