Dr. Aminul Islam

Published:
2021-04-07 13:51:08 BdST

ইতিহাসের ১০ বিস্ময় কাহিনি


 

অধ্যাপক ডা শুভাগত চৌধুরী 

বাংলাদেশের স্বাস্থ্যাচার্য

---------------------------------------

ইতিহাসের কিছু ঘটনা যেগুলো শুনলে চোয়াল নেমে আসবে বিস্ময়ে।

এ কেচ্ছা কেচ্ছা নয়। নিজে পড়ে আনন্দ পেলেন ভাল আর পড়ে শোনাতে পারেন ঘরে বাচ্চাদের তারা মজা পাবে এই করোনা কালে ঘর বন্দী হয়ার সময়।

কেউ কী পৃথিবীকে একঘেয়ে , চলছে চলবে এমন মনে করেন কিন্তু ইতিহাস তা স্বীকার করেনা । ঘটনা বহুল এই বসুন্ধরা আর আমাদের সময় , কাল। অনেক রহস্য আর ইতিহাসের অনেক বাঁক ঘুরে চলেছে জীবন ।

১। মালী হল রাজা।
খৃষ্টপূর্ব ১৮৬১। রাজা এরা ইমিত্তি , ইসিনের এক ছোট সুমেরিয়ান নগরি শাসন করছিলেন( এখন দক্ষিন ইরাক)
একদিন রাজ পুরোহিতরা ঘোষণা করলেন দৈব বানী হয়েছে রাজার অবিলম্বে মৃত্যু হবে। দৈব বানী অসফল করার জন্য রাজা লুকালেন এক
গোপন স্থানে আর সাধারন এক নাগরিককে রাজা করা হল। একজন এম্লিল বান্নি নামে এক মালীকে রাজ সিং হাসনে বসান হল উদ্যেশ্য মরলে সে মরুক।
কিন্তু পরিকল্পনা মত চলল না সব। আত্মগোপনের আস্তানায় একদিন পরিজের বাটি থেকে পরিজ গেলার সময় গলায় তা আটকে গিয়ে
এরা ইমিত্তি মারা গেলেন। মালী রাজা এ সংবাদ শুনে রাজ সিং হা সন ত্যাগ করতে অস্বীকার করলেন তার যুক্তি তার এই সিং হাসনে আরোহণ দৈব নির্দেশে হয়েছে । মালী হলেন নতুন রাজা আর শুরু করলেন নতুন রাজ বংশ ।

২। যে সূর্য গ্রহন হল যুদ্ধ অবসানের কারন।

লায়ডো মেডিয়ান যুদ্ধ চলছিল ৬ বছর , লায়ডিআন রাজত্ব (বর্তমানে আধুনিক পশ্চিম তুরস্ক ) আর প্রাচিন ইরানিয়ান মেডেসদের মধ্যে দ্বন্দ্ব ।
খৃষ্ট পূর্ব ৫৮৫ , দুই দিকের সেনারা হালিস রনে লিপ্ত হলেন। হটাত যুদ্ধের মধ্য ভাগে দিন হয়ে গেল রাত্রি আর যুদ্ধ গেল থেমে।
সূর্য গ্রহন কে এক অশুভ সঙ্কেত মনে করা হল তাই দুই পক্ষ যুদ্ধ শেষ করে শান্তি চুক্তি করলেন। প্রাচিন গ্রীক ঐতিহাসিক হেরোডটাস একে
The battle of Eclipse নামে অভিহিত করেছেন।

৩। আইসল্যান্ডি য় ভাষা ।

ভাষা বদলাতেই থাকে আমরা জানি। তবে ইংরেজি র মত ভাষায় এত পরিবর্তন অন্যগুলোতে হয়না। কিছু কিছু নিজস্ব ভাষা অনেক বছর ধরে অবিকৃত থাকে সেজন্য আইসল্যান্ডের লোক জন পুরানো অনেক লোক কথা পড়তে পারেন।

৪। ট্রয়ের ধ্বংসাবশেষ

ট্রোজান যুদ্ধের কথা অনেকে জানেন, তবে শতাব্দী শতাব্দী কাল ঐতিহাসিকরা মনে করেছেন হোমারের ইলিয়াড নিছক কল্প কথা কিন্তু তারা জানতেন না ট্রয় নগরীর ধ্বংসাবশেষ ছিল তাদের পায়ের তলায়।
কল্প কথার সেই নগরীকে পুনরুদ্ধার করা হল ১৮৬১ সালে , বর্তমান তুরস্ক যে স্থানে।

৫। গোল্ডেন গেট সেতুর নির্মাণ ।

১৯৩০ সালের দিকে একটু সেতু নির্মাণ ছিল এক বিপজ্জনক কাজ। ১৯৩৩-৩৬ সালে যখন সানফ্রান্সিসকো ওকল্যান্ড বে ব্রিজ নির্মাণ করা হয় তখন মারা যান ২৪ জন নির্মাণ শ্রমিক । এদিকে গোল্ডেন গেট ব্রিজের নির্মাণ স্থল ছিল অনন্য নিরাপত্তার নজির । এর মুখ্য ইঞ্জিনিয়ার বায়েরমেন স্ত্রাউস এর ত ত্বা বধান করছিলেন আর সে স্থানে নতুন নিরাপত্তা যন্ত্রপাতি স্থাপন করেছিলেন। এর আগে আমেরিকাতে তা ব্যবহৃত হয়নি
সব চেয়ে লক্ষ্যনিয় ছিল সেফটি নেট ডিজাইন , পড়ে যাওয়া শ্রমিকদের ধরার জন্য । প্রকল্পে খরচ হয় ১৩০.০০০ ডলার , সে সময় ছিল ডিপ্রেশন যুগ আর তখন এই ব্যয় অনেক। এভাবে জীবন বাচল ১৯ জন নির্মাণ কর্মীর । পুরো ব্রিজ নির্মাণ শেষে শ্রমিকের মৃত্যু হল ১১ জনে যা তখনকার সময় ছিল অনেক অনেক কম।

৬। কানাগয়ার সেই উত্তাল ঢেউ ।

এই চিত্র শিল্প বিশ্বে জাপানী আর্টের এক শ্রেষ্ঠ নিদর্শন হিসাবে বিবেচিত। বিখ্যাত সেই চিত্র কর্ম ছিল উড ব্লক প্রিন্ট , সৃষ্টি করেন জাপানী শিল্পী হাকুশাই । ১৮২২-৩৩ এর মধ্যবর্তী কালে। এই সেরা চিত্রকর্মে ছিল এক ভয়ানক উত্তাল ঢেউ এ নিচে এক নৌকো টাল মাটাল । পেছনে ফুজি পর্বত শৃঙ্গ । তবে মাউন্ট ফুজি নিয়ে তিনি একেছিলেন ৩৬ টি চিত্র আর এটি ছিল এর মধ্যে প্রথম।

৭। সে সময় নাসার স্যাটেলাইট আছড়ে পড়েছিল অস্ট্রেলিয়ায় ।

১৯৭৩ সালে নাসা কক্ষপথে প্রথম মহাশুন্য স্টেশন করল । স্কাই ল্যাব। প্রকল্পটি এর পর প্রত্যাখ্যাত হল আর সেই সেটেলাইট আছড়ে পড়ল পৃথিবী পৃষ্ঠে । এতে ক্ষয় ক্ষতি না হলেও অস্ট্রেলিয়া নাসার কাছে চাইল এর জন্য ৪০০ ডলার ক্ষতি পুরন । মজার ব্যাপার নাসা এখনও সেই ক্ষতিপূরণের অর্থ দিয়ে শেষ করেনি।

৮। বিরোধ দ্বন্দ্ব দ্বীপ " আইল্যান্ড অব ডিসকর্ড "

মনে আছে ১৯৮৪ সাল থকে ক্যানাডা আর ডেনমার্কের মধ্যে যুদ্ধ চলেছিল । বিরোধ একটি দ্বীপকে নিয়ে , হান্স দ্বীপ , এই ছোট্ট জন মানবহীন দ্বীপটি ছিল ক্যানেডি চেনেলে । দুটো দেশ ১৯৩০ সাল থেকে স্থির করতে পারছিলনা কে হবে এই দ্বীপের মালিক। ১৯৮৪ সাল থেকে এটি দ্বন্দ্বের দ্বীপ নামে হল অভিহিত।
প্রতি বছর প্রতি দেশের সেনারা যায় সে দেশে আর তুলে ফেলে অপর দেশের ফ্ল্যাগ আর প্রোথিত করে নিজ দেশের ফ্ল্যাগ । কিছু দূরে এক স্থানে তারা রেখে যায় একটি চিরকুট তাতে স্বাগত বার্তা থাকে পরবর্তী পরিদর্শকের জোনয় আর থাকে এক বোতল মদ। ক্যানাডিয়ান রা রাখে হুইস্কি আর ফরাসিরা রাখে শ্যানাপস এক ধরনের সুবাসিত মদ্য।

৯। গ্রীক ট্র্যাজেডির জনকের মৃত্যু ।

এইসচেলুস ছিলেন প্রাচীন এক গ্রীক লেখক আর ট্র্যাজেডির জনক ।
নাটকের চরিত্র । সে মত তার মৃত্যু হল এক মর্মান্তিক অসবাভাবিক উপায়ে। বলা হয় এক শকুন তার মাথায় একটি কচ্ছপ ফেলে দেওয়াতে তার করোটিতে ফ্রাকচার হয়ে তিনি মারা যান ।শকুন সেই কচ্ছপ পাথরের উপর ফেলতে গিয়ে পাথর ভ্রমে সে লেখকের ন্যাড়া মাথার উপর তা ফেলেছিল।

১০। ১৫১৮ সালের ডানসিং প্লেগ ।

১৫১৮ সালে, আধুনিক ফ্রান্সের সটরাসবারগ নগরী এক রহস্যময় রোগে আক্রান্ত হল। একটু অন্যরকম অসুখ , হটাত করে একজন নারী নাচতে শুরু করলেন আর এভাবে নাচলেন বেশ কিছু দিন। ৪০০ জনের মত লোক যোগ দিলেন এ কোন আনন্দ নৃত্য ছিলনা তারা বাধ্য হলেন এমন নাচতে , থামাতে পারলেন না নাচ ইচ্ছা মত।
৫০ জনের মত লোক মারা যান অপুষ্টি , অবসন্নতা আর হার্ট এটাক হয়ে । একে বলায় ১৫১৮ সালের নৃত্যময় প্লেগ" একি ছিল গন হিস্টিরিয়া না অন্য কিছু এখনও জানা যায়নি ।

আপনার মতামত দিন:


কলাম এর জনপ্রিয়