SAHA ANTAR

Published:
2021-01-11 12:22:57 BdST

"আমরা ৪৯ দিনের একদিন একবারও কেউ কাউকে সামান্য একটু কড়া কথা পর্যন্ত বলিনি"


রাজিক হাসান

লন্ডন থেকে 

________________

১৯৬০ সালের কথা। চারজন রুশ সৈনিক সহ একটি বার্জ সামুদ্রিক ঝড়ের কবলে পড়ে। চূড়ান্ত অনিশ্চয়তার মধ্যে ভেসে চলে প্রশান্ত মহাসাগরে।

৪৯ দিন ভেসে চলার পর বার্জটি উদ্ধার হয় সানফ্রান্সিসকোতে। আসখাদ জিগানসিন, ফিলিপ পপলাভস্কি, আনাতলি ক্রিউচকোভস্কি ও ইভান ফেদত্ভ, এই চার সৈনিক ছিল সেই বার্জটিতে। এই চার রুশ যুবক খুবই রহস্যময় ঠেকছিল মার্কিনিদের কাছে।

উদ্ধারের পর এই চার যুবক একটি সাক্ষাৎকার দেয় সাংবাদিকদের কাছে।

সাংবাদিক : আমি জানি, যে ধরনের অনিশ্চিত অবস্থার মধ্যে তোমরা পড়েছিলে, তাতে মানুষ অমানুষ বনে যায়, মেজাজ বিগড়়ে যায়, একেবারে পশু হয়ে যায়. তোমাদেরও নিশ্চয়ই এ রকম দশাই ঘটেছিল, এক টুকরো রুটি আর এক ঢোক খাবার জলের জন্যে তোমরা এ ক'দিন ভীষণ ঝগড়া আর প্রচন্ড মারামারি করেছ নিশ্চয়?

জিগানসিন : তা হবে কেন ? আমরা ৪৯ দিনের একদিন একবারও কেউ কাউকে সামান্য একটু কড়া কথা পর্যন্ত বলেনি। যখন আমাদের খাবার জল ফুরিয়ে আসছিল, তখন আমরা প্রত্যেকেই আধা গ্লাস করে জল খেতাম - এর বেশি এক ফোটাও কেউ খায়নি। কেবল যেদিন আমারা আনাতোলি ক্রিউচকভস্কির জন্মদিন পালন করছিলাম সেদিন তাকে পুরো এক গ্লাস জল খেতে দিয়েছিলাম, কিন্তু তা ফিরিয়ে দিয়েছিল সে।

সাংবাদিক : ওই নরকযন্ত্রণার মধ্যেও তোমরা সহযাত্রী বন্ধুর জন্মদিনের কথা মনে রেখেছিলে? একেবারেই অবিশ্বাস্য মনে হচ্ছে ! আচ্ছা জিগানসিন তোমরা কি একবারও মৃত্যুর কথা ভাবোনি?

জিগানসিস : মোটেই না। আমরা সবাই তো তরুণ, কারুরই মৃত্যুর বয়স হয়নি।

সাংবাদিক : তোমরা সময় কাটাতে কী করে? তুমিই বলো, পপলাভস্কি।

পপলাভস্কি : আমরা নানা কৌতুক করতাম নিজেদের মধ্যে। মাছ ধরার বড়শিগুলো ঠিকঠাক করতাম। আশখাদ জিগানসিস সিগন্যাল ল্যাম্পটি মেরামত করত। মাঝে মাঝে আমি উচ্চস্বরে একটি বই পড়তাম। সবাই মিলে গাইতাম।

সাংবাদিক : কী বই পড়তে তুমি?

পপলাভস্কি : জ্যাক লন্ডনের 'মার্টিন ইডেন'।

সাংবাদিক : অবিশ্বাস্য !

ফেদোতভ : ফিলিপ আয়াকর্দিয়ান বাজত, আমরা নাচতাম, গাইতাম।

সাংবাদিক : তোমাদের ঐতিহাসিক আয়াকর্দিয়ানটি দেখাও তো আমাকে।

ফেদোতভ : খুবই দুঃখিত। ওটি আমরা খেয়ে ফেলেছি।

সাংবাদিক : কী বলছো? খেয়ে ফেলেছ মানে?

ফেদোতভ : যা বলছি, ঠিক তাই। আমারা ওটা খেয়ে ফেলেছি। আয়াকর্দিয়ানটিতে তো চামড়া ছিল, সে চামড়া খুলে কুচি কুচি করে কেটে সমুদ্রের জলে রান্না করে নিয়েছি।

আয়াকর্দিয়ানের চামড়াটা ছিল ভেড়ার। ঠাট্টা করে বলেছিলাম যে, আজ আমরা দুরকমের মাংস খেলাম - প্রথমটি আয়াকর্দিয়ানের, দ্বিতীয়টি আমদের বুট জুতোর।

সাংবাদিক : এ সময়েও তোমরা ঠাট্টা তামাশা করতে পার? আমি তো এটা কিছুতেই বুঝে উঠতে পারি না। বলতে পার কোন ধরনের মানুষ তোমরা?

জিগানসিস : কেন আমরা তো সহজ মানুষ।

পশ্চিমা সাংবাদিক জীবনে সর্বপ্রথম এই মডেলের সামনে দাড়িঁয়ে এবং এদের কথা শুনে নিজের চোখ-কানকেই বিশ্বাস করতে পারে নি সেদিন।

আসলে, সহজ মানুষ সহজে মেলে না। সব জায়গায় সব পরিবেশে সহজ মানুষ তৈরিও হয় না।

"সহজ মানুষ ভজে দেখনারে মন দিব্যজ্ঞানে
পাবিরে অমূল্য নিধি বর্তমানে
ভজ মানুষের চরণ দুটি
নিত্য বস্তু হবে খাঁটি
মরিলে সব হবে মাটি
ত্বরায় এই ভেদ লও জেনে"

-----------------------------------------------------------------------
তথ্যসূত্র : K Plalanov - Psychology as You May Like It (Moscow 1965)

আপনার মতামত দিন:


কলাম এর জনপ্রিয়