Dr. Aminul Islam

Published:
2021-01-09 10:30:11 BdST

অসুস্থ কন্যার জন্য মওলানার চিকিৎসা নিতে গিয়ে প্রবাসীর স্ত্রী ধর্ষিত ও অন্তঃসত্ত্বা


ফাইল ছবি 

সংবাদদাতা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলায়  এক মওলানার কাছে অসুস্থ কন্যার জন্য আবুল উলায়া শেফা  শরীফে দোয়া চিকিৎসা নিতে গিয়ে   'দোয়া চিকিৎসক' হুজুরের  ধর্ষণের শিকার হয়ে অন্তঃসত্ত্বা হয়েছেন এক প্রবাসীর স্ত্রী। এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে অভিযুক্ত মাওলানা সিরাজুল ইসলামকে (৩০) আটক করেছে পুলিশ।

নবীনগর থানা পুলিশ বলছে, প্রাথমিকভাবে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। অভিযুক্ত মাওলানা সিরাজুল ইসলাম হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার বড়গাঁ গ্রামের মৃত আশিকুল ইসলামের ছেলে।

মামলা বিবরণে জানা যায়, ভুক্তভোগী ওই নারী বর্তমানে দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তার বয়স ২৫ ও দুই কন্যা সন্তানের জননী। গত দুই মাস আগে আবুল উলায়া শেফা  শরীফে ওই নারী তার অসুস্থ ৫ বছরের শিশু কন্যার জন্য দোয়া চিকিৎসা আনতে গেলে দরজা বন্ধ করে দিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে মাওলানা সিরাজুল ইসলাম। পরে ভুক্তভোগী নারীকে হুমকি দেয়া হয় এই বিষয়ে কারও কাছে কিছু বললে কিংবা অভিযোগ করলে তার ও তার শিশুকে কুফরির মাধ্যমে বান মেরে হত্যা করা হবে। সে ভয়ে ধর্ষণের বিষয়টি এতদিন গোপনই রেখেছিলেন ওই নারী। কিন্তু ধর্ষণের কারণে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ায় স্বামীর বাড়ির লোকজন বিষয়টি টের পেয়ে যায়। পরে ওই নারী ধর্ষণের বিষয়টি প্রকাশ করলে স্থানীয় বিষয়টি মীমাংসা করার জন্য বৃহস্পতিবার বিকালে নবীনগর ভোলাচং উচ্চ বিদ্যালয়ে মাঠে বসে। পুলিশ খবর পেয়ে রাতে ওই ধর্ষক মাওলানা সিরাজুল ইসলামকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে।

মওলানা  সিরাজুল ইসলাম মানুষজনকে নানান রোগের জন্য দোয়াদরুদ পড়ে চিকিৎসা  দিতেন । তার বিপুল সংখ্যক রোগী ছিল। রোগবালাই মওলানার  দোয়াদরুদে ভাল হয়, এমন বিশ্বাস স্থানীয় জনগোষ্ঠীর। 

সেই বিশ্বাসে ধর্ষিত নারী মওলানার কাছে গিয়েছিল। 

 

আপনার মতামত দিন:


কলাম এর জনপ্রিয়