Ameen Qudir

Published:
2019-08-03 20:54:07 BdST

মশার তাবিজ এবং একটা কালো মুরগী আর একটা আধুলি


 


ডা. সাঈদ এনাম
________________________

মশার কামড়ে ম্যালেরিয়ায় অতিষ্ঠ হয়ে এক বলদ গেলো "বাবার দরবারে"। মশক বিশেষজ্ঞ বাবার কাছে নাকি সব কিছুর তাবিজ পাওয়া যায়। পাওয়া যায় মশা মারার তাবিজ, ভুতে ধরার তেল পড়া আর মরিচ পড়া। যার যেটা দরকার বাবা তাকে সেটা দেন।

বাবার দরবারে গিয়ে বলদের আর্জি, " বাবা মশার জ্বালায়তো আর বাঁচিনে। কিছু একটা দেন.."।
বাবা "হক মাওলা" বলে একটা তাবিজ দিয়ে বলদের মাথায় দিলেন একটা "ফুঁ...,চু মন্তর চু..হ..."। আর বললেন, "যাহ, তাবিজ মতো চলবি আর ডান হাতের কনুই থেকে ঠিক এক বিগা উপরে এটা বেঁধে রাখবি, তোকে আর মশা জীবনেও কামড়াবেনা.. "।

বলদ বাবার চরনে চুমু দিয়ে হাদিয়া হিসেবে একটা কালো মুরগী আর একটা আধুলি রেখে আসলো।

আগে বলদ টুকটাক মশারী বা কয়েল দিয়ে রাতে ঘুমাতো কিন্তু এবার মশক বাবার তাবিজ পেয়ে আহলাদে গদগদ হয়ে সেটাও বাদ। সব ছেড়েছ তাবিজ পড়ে বউরে নিয়ে আমুদ করতে করতে গেলো শু'তে।

মশা কি আর তাবিজ মানে। সেই সুযোগে লাখে লাখে মশা দিলো বলদ কে আচ্ছা মতো হূল। সাত সকালে সাধের বউ মশার কামড় খেয়ে ক্ষেপে গিয়ে করলো তারে ঝাড়ু পিটা।

বইয়ের প্যাঁদানি খেয়ে রেগেমেগে বলদ তাবিজ ছুঁড়ে ফেলে ধরতে গেলো বাবাকে , বাবার দরবারে।

এদিকে বাবার সব মুরীদ গন বলদ রে ধরে দিলো আচ্ছা ধুলাই। "সাহস কতো, আমাগো মশক বিশেষজ্ঞ বাবারে মারতে আইছে। যা ব্যাটা বাড়িত যা। গিয়ে দেখ তাবিযে কি লেখা। সেটাই মেনে চল, মশা দিতোনো তরে আর মশা কামড়.."

বলদা বাড়ি এসে তাবিজ খুলেতো অজ্ঞান। লেখা আছে আরবীতে,
"ওরে বলদা..., মশার ঔষধ মশারী আর তোর আশপাশ পরিষ্কার রাখবি,মশা তরে কামড়াইতোনো..."

ডা. সাঈদ এনাম
ডি এম সি,কে-৫২।

সাইকিয়াট্রিস্ট

 

আপনার মতামত দিন:


কলাম এর জনপ্রিয়