Ameen Qudir

Published:
2019-05-22 12:00:47 BdST

চিকিৎসা শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবার সাথে জড়িত প্রশাসন এত নতজানু কেন?


 

 

ডা. কামরুল হাসান সোহেল
___________________________

চিকিৎসা শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবার সাথে জড়িত প্রশাসন এত নতজানু কেন?যে কোন ঘটনায় তারা নিপীড়িতের পক্ষ নিতে ভয় পায় উল্টো নিপীড়নকারীর পক্ষে নানা খোড়া যুক্তি দেখান। নির্যাতিত ছাত্র,ছাত্রী,ইন্টার্নি ডাক্তার বা উপজেলা হোক কিংবা জেলা সদর হাসপাতাল বা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জুনিয়র চিকিৎসক, সিনিয়র কনসালটেন্ট এমনকি অধ্যাপক ডাঃ এ বি এম আব্দুল্লাহ স্যার ও যখন আক্রান্ত হলেন তখনো স্বীয় স্বীয় কর্মক্ষেত্রের প্রশাসন নিপীড়নকারীর সাথে সমঝোতা করেছেন, একটি ঘটনার জন্য ও স্বীয় প্রশাসন নিজ থেকে মামলা করেনি বা করলেও খুব দ্রুত মামলা তুলে নিয়ে আপোষ করেছে নিপীড়নকারীদের সাথে। কখনো কখনো উল্টো জরিমানা দিয়েছে গুন্ডা,মাস্তানদের।এতে করে সবাই বুঝে নিয়েছে ঘরে বউয়ের হাতে ঝাড়ুপেটা খেলেও একটি জায়গায় যে কেউ গিয়ে গুন্ডামী, মাস্তানি করে আসতে পারবে আর তা হলো হাসপাতাল হোক তা সরকারি কিংবা বেসরকারি। হাত নিশপিশ করলে যার গায়ে হাত তোলা যাবে সে হলো নিরীহ ডাক্তার। কাউকে যে ভাষায় খুশি,যেভাবে খুশি গালি দেয়া যাবে, অপদস্থ করা যাবে সে হলো ডাক্তার।

সেই থেকে হাসপাতালগুলো আক্রান্ত হচ্ছে, ডাক্তাররা আক্রান্ত হচ্ছে। নির্যাতনের শিকার হচ্ছে সবাই নারী,পুরুষ সব চিকিৎসকই আজ নির্যাতনের শিকার, নারী চিকিৎসকরা তো ধর্ষণের শিকার হয়েছে, হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে নিজ কর্মস্থলে ডাঃ সাজিয়া রহমান ইভা। যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছে, ইভটিজিং এর শিকার হয়েছে,হচ্ছে প্রতিনিয়ত। কখনো একটি ঘটনার ও কোন বিচার হয়নি,অপরাধীর শাস্তি হয়নি।আজ চিকিৎসকদের এই দুরবস্থার জন্য নতজানু প্রশাসন, দুর্বল নেতৃত্ব। এখনো যদি প্রশাসন আমাদের কর্মস্থলের নিরাপত্তা নিশ্চিত না করতে পারে, তাহলে সামনে এই ধরণের খারাপ ঘটনা প্রতিনিয়ত ঘটতেই থাকবে। আমাদের প্রশাসন আর প্রশাসকদের মেরুদণ্ড কবে সোজা হবে না কি চিরকালই কুঁজো হয়ে চলবেন তারা?
______________________

ডা. কামরুল হাসান সোহেল :
আজীবন সদস্য, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ , কুমিল্লা জেলা।
কার্যকরী সদস্য স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ
আজীবন সদস্য,বিএমএ কুমিল্লা।
সেন্ট্রাল কাউন্সিলর, বিএমএ কুমিল্লা

আপনার মতামত দিন:


কলাম এর জনপ্রিয়